• বৃহস্পতিবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৮, ৩ কার্তিক ১৪২৫
  • ||

ইবির দুই শিক্ষার্থীর আত্মহত্যা, প্রশাসনের শোক

প্রকাশ:  ১০ আগস্ট ২০১৮, ১২:৪১
ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি
প্রিন্ট

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং বিভাগের দুই শিক্ষার্থী আত্মহত্যা করেছে। ওই দুই শিক্ষার্থী ফিন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং বিভাগের ২০১১-১২ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী মুমতাহেনা আফরোজ হেনা ও রোকনুজ্জামান রোকন। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টার দিকে মুমতাহেনা ফ্যানের সঙ্গে ঝুলে এবং রাত সাড়ে ৮ টার দিকে রোকন ট্রেনের নীচে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে নিশ্চিত করেছেন প্রক্টর অধ্যাপক ড. মাহবুবর রহমান। এদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই শিক্ষার্থীর অকাল মৃত্যুকে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন প্রশাসন।

ক্যাম্পাস সূত্রে জানা গেছে, মুমতাহেনা আফরোজের সঙ্গে একই বিভাগের ছাত্র রোকনুজ্জামান রোকনের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। নিজেদের সম্পর্কে টানাপোড়নের কারণে হেনা নামের ওই ছাত্রী বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টার দিকে ঝিনাইদহ শহরের ঝিনুক টাওয়ারের ৫ম তলায় তার নিজ শয়ন কক্ষে ফ্যানের সাথে ওড়না পেচিয়ে আত্মহত্যা করে। এদিকে প্রেমিকার এমন আত্মহত্যার কথা শুনে রোকনুজ্জামান রোকনও আত্মহত্যা করে।

রাত সাড়ে ৮টার দিকে কুষ্টিয়ার সদর উপজেলার মতি মিয়া রেলগেট এলাকায় পোড়াদহ থেকে গোয়ালনন্দগামী ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করে।

আত্মহত্যাকারী মুমতাহেনা আফরোজ হেনা বিশ্ববিদ্যালয়ের আল-হাদিস অ্যান্ড ইসলামিক স্ট্যাডিস বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ড. আশরাফুল আলমের মেয়ে। তার বাসা সাতক্ষীরা জেলায়। রোকনুজ্জামান রোকনের বাসা চুয়াডাঙ্গা জেলার দামুড়হুদা উপজেলায়। রোকন ফিন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং বিভাগের ২০১১-১২ শিক্ষাবর্ষের প্রথমস্থানধারী শিক্ষার্থী ছিল।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. মাহবুবর রহমান জানান, আমি সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টার পরে ছাত্রীর আত্মহত্যার বিষয়টি জানতে পারি। পরে রাত ৯ টার দিকে রোকনের বিষয়টি জানতে পারি। ওই দুই শিক্ষার্থীর মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক ছিলো। তবে হঠাৎ করে দুজনই আত্মহুতির সিদ্ধান্ত নিলেন সে বিষয়ে এখনও স্পষ্ট ধারণা পাওয়া যায়নি। ওই দুই শিক্ষার্থীর লাশ ময়না তদন্ত শেষে নিজ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।’ এ বিষয়ে পোড়াদহ জিআরপি থানার ওসি আব্দুল আজিজ বলেন, ওই ছাত্রের লাশ কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ময়না তদন্ত শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।’

ওএফ

আত্মহত্যা