• বৃহস্পতিবার, ২৬ এপ্রিল ২০১৮, ১৩ বৈশাখ ১৪২৫
  • ||
  • আর্কাইভ

৪৮ বছরে পদার্পণ করলো জাবি

প্রকাশ:  ১২ জানুয়ারি ২০১৮, ২১:২১
শাহিনুর রহমান শাহিন, জাবি
প্রিন্ট

প্রতিষ্ঠার ৪৮ বছরে পদার্পণ করলো দেশের একমাত্র আবাসিক পাবলিক ইতিহাস-ঐতিহ্য এবং সাংস্কৃতিক রাজধানী খ্যাত জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়। এ উপলক্ষে শুক্রবার দিনব্যাপী এক বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে ৪৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী দিবস পালিত হয়েছে।

এদিন সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজনেস স্টাডিজ অনুষদ চত্বরে জাতীয় পতাকা ও বিশ্ববিদ্যালয়ের পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে দিবসটির উদ্বোধন করা হয়। উপাচার্য অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলাম জাতীয় পতাকা এবং উপ-উপাচার্য মো.আবুল হোসেন বিশ্ববিদ্যালয় পতাকা উত্তোলন করেন।

বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ৪৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী দিবস পালিত হয়েছে। শুক্রবার (১২ জানুয়ারি) সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজনেস স্টাডিজ অনুষদ চত্বরে জাতীয় পতাকা ও বিশ্ববিদ্যালয়ের পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে দিবসটির উদ্বোধন করা হয়। জাতীয় পতাকা ও বিশ্ববিদ্যালয়ের পতাকা উত্তোলন করেন যথাক্রমে ভিসি অধ্যাপক ফারজানা ইসলাম ও প্রো-ভিসি অধ্যাপক মো. আবুল হোসেন ও অধ্যাপক আমির হোসেন।

পরে ভিসি বেলুন উড়িয়ে বিশ্ববিদ্যালয় দিবসের কর্মসূচির উদ্বোধন করে উদ্বোধনী ভাষণে সমবেত সকলকে বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়ে ভিসি বলেন, প্রতিষ্ঠার ৪৭ বছরে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীগণ দেশ-বিদেশে যে সম্মান অর্জন করেছেন, তাতে বিশ্ববিদ্যালয় গৌরব বৃদ্ধি পেয়েছে। উপাচার্য বিশ্বজ্ঞান-বিজ্ঞান এবং শিল্প-সাহিত্য চর্চায় এ বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান আরও উচ্চস্থানে নিয়ে যেতে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের অব্যাহতভাবে কাজ করার আহবান জানান।

এরপর একটি শোভাযাত্রা বিশ্ববিদ্যালয় বিজনেস স্টাডিজ বিভাগের সামনে থেকে শুরু হয়। শোভাযাত্রায় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অামির হোসেন, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক আবুল খায়ের, রেজিস্ট্রার আবু বক্কর সিদ্দিক, বিভিন্ন অনুষদের ডিন, বিভিন্ন হলের প্রাধ্যক্ষ, বিভাগীয় সভাপতি ও শিক্ষকমন্ডলী, প্রক্টরিয়াল বডির সদস্যরা, শিক্ষক সমিতি, সিন্ডিকেট ও সিনেট সদস্য, অফিসার সমিতি, কর্মকর্তা-কর্মচারী সমিতি, জাবি স্কুল ও কলেজের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করেন।

দিবসটি উপলক্ষে দিনব্যাপী কর্মসূচির মধ্যে ছিল- সকাল ১১টায় সেলিম আল দীন মুক্তমঞ্চে ছাত্রকল্যাণ ও পরামর্শদান কেন্দ্রের আয়োজনে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, বিকাল ৩টায় পুতুল নাট্য, ৪টায় পিঠা মেলা এবং সন্ধ্যা ৫টায় ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রের উদ্যোগে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।