• রবিবার, ২২ জুলাই ২০১৮, ৭ শ্রাবণ ১৪২৫
  • ||

উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন কমিশন করা উচিত

——উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন কমিশন করা উচিত

প্রকাশ:  ০২ জানুয়ারি ২০১৮, ০২:০১ | আপডেট : ০২ জানুয়ারি ২০১৮, ০২:০৪
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট
বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক ডেপুটি গভর্নর খোন্দকার ইব্রাহীম খালেদ বলেছেন, আগেও ব্যাংকিং কমিশন ছিল। কিন্তু সে কমিশনের কোনো সুপারিশ সরকার আমলে নেয়নি। বর্তমানের পুরো ব্যাংকিং ব্যবস্থায় যে অস্থিরতা চলছে, তা থেকে মুক্তি পেতে হলে আবারও উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন একটি কমিশন হওয়া উচিত। ব্যাংকের সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে ইব্রাহীম খালেদ বলেন, অর্থমন্ত্রী ঘোষণা দিয়েছেন ব্যাংকিং কমিশন গঠনের আপাতত কোনো সম্ভাবনা নেই। তার মানে তারা চাইছেন না এই কমিশন। কিন্তু ব্যাংকিং পরিস্থিতির উন্নতি করতে হলে এর কোনো বিকল্প নেই। তিনি বলেন, ব্যাংকিং কমিশন গঠিত হলে তাদের কাজ হবে ব্যাংক সম্পর্কে রিপোর্ট ও সুপারিশ করা। এই সুপারিশ যেন বাস্তবায়িত হয় এমন ক্ষমতাও তাদের দিতে হবে। শুধু রিপোর্ট করার জন্য কমিশন গঠন করার কোনো দরকার নেই। নিয়ন্ত্রক কর্তৃপক্ষ হিসেবে বাংলাদেশ ব্যাংক আছে। কিন্তু কমিশনের কাজ নিয়ন্ত্রণ নয়। কমিশনের সুপারিশ বাস্তবায়নে ভূমিকা রাখবে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। অথবা যে সংস্থাকে নির্দেশনা দেওয়া হবে তারা তা বাস্তবায়ন করবে। ইব্রাহীম খালেদ বলেন, মানুষের আস্থা আছে, নিজের কাজের প্রতি সব সময় দায়িত্বশীল, সততা ও দুর্নীতিবিরোধী মনোভাব পোষণ করা সাবেক ব্যাংক কর্মকর্তা, অর্থনীতি নিয়ে যারা কাজ করেন এমন ব্যক্তিদের নিয়ে এ কমিশন গঠন করা যেতে পারে। সেখানে ব্যাংকের সাবেক এমডিরাও থাকতে পারেন। এই কমিশনের সুপারিশেই চলবে ব্যাংকের কার্যক্রম। কোনো ব্যাংক অনিয়মে জড়িত থাকলে তাদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়ার সুপারিশ করবে কমিশন। বৃহত্ বিষয় নিয়ে এই কমিশনকে তদন্ত কার্যক্রম পরিচালনা করার ক্ষমতাও দিতে হবে।