• সোমবার, ২৮ মে ২০১৮, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫
  • ||

বাণিজ্য মেলায় ওয়ালটনের ল্যাপটপে সর্বোচ্চ ছাড়

প্রকাশ:  ০৪ জানুয়ারি ২০১৮, ২৩:৩২
অর্থনৈতিক প্রতিবেদক
প্রিন্ট
সব পেশার মানুষের কথা চিন্তা করে এবং তাদের ক্রয় সক্ষমতার কথা বিবেচনা করে সাশ্রয়ী দাম, উচ্চমানের প্রযুক্তিসম্পন্ন ল্যাপটপ বিক্রি শুরু করেছে দেশের শীর্ষ ইলেকট্রনিক্স, অটোমোবাইল এবং হোম অ্যাপ্লায়েন্স পণ্য উৎপাদন ও বাজারজাতকারী প্রতিষ্ঠান ওয়ালটন।

দামে সাশ্রয়ী ও অত্যাধুনিক প্রযুক্তি সম্পন্ন হওয়ায় ইতিমধ্যে ক্রেতাদেরও মন জয় করেছে দেশীয় ব্র্যান্ড ওয়ালটনের ল্যাপটপ। এবারের বাণিজ্য মেলায় ওয়ালটন প্যাভিলিয়নের দ্বিতীয় তলায় ক্রেতা ও দর্শনার্থীদের জন্য সাজিয়ে রাখা হয়েছে ল্যাপটপ। ক্রেতা ও দর্শনার্থীরা সেখান থেকে পছন্দ মতো বেছে নিতে পারছেন ল্যাপটপ। সঙ্গে পাচ্ছেন বিশেষ ছাড়। এর মধ্যে ওয়ালটনের কোর আই সিরিজের যেকোনো মডেলের ল্যাপটপে মেলা উপলক্ষে ৫ শতাংশ, কোর আই ফাইভ সিরিজে ৭ শতাংশ ও কোর আই ৭ সিরিজে ১০ শতাংশ ছাড় দেওয়া হচ্ছে।

এছাড়া উচ্চগতির কেরোন্ডা ও ওয়াক্সজ্যাম্বু সিরিজের দুই গেমিং ল্যাপটপ মডেল দুটিতে যথাক্রমে ১৫ ও ২০ শতাংশ ছাড় দেওয়া হচ্ছে। যা টাকার পরিমাণে সর্বোচ্চ ১৬৪০০ টাকা পর্যন্ত ছাড় পাচ্ছেন ক্রেতারা।

বাণিজ্য মেলায় ওয়ালটন প্যাভিলিয়ন পরিচালনার দায়িত্বে থাকা প্রতিষ্ঠানটির নির্বাহী পরিচালক (পিআর অ্যান্ড মিডিয়া) মো. হুমায়ুন কবীর বৃহস্পতিবার বলেন, যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক দুই শীর্ষ আইসিটি প্রতিষ্ঠান ইন্টেল ও মাইক্রোসফট এবং বাংলাদেশের ওয়ালটন এই তিন প্রতিষ্ঠানের যৌথ উদ্যোগে তৈরি হয় ওয়ালটন ল্যাপটপ। যাতে যুক্ত হয়েছে বিজয় বাংলা সফটওয়্যার। ওয়ালটন ল্যাপটপের বিশেষ দিক হলো এর সুদৃশ্য ডিজাইন, উন্নত ফিচার, দারুণ পারফরমেন্স, মাল্টিটাক্সিং সুবিধা এবং বাংলা ফন্টযুক্ত মাল্টি ল্যাঙ্গুয়েজ কি-বোর্ড। দামের দিক দিয়ে বাজারে প্রচলিত অন্য  ব্র্যান্ডের চেয়ে ওয়ালটন ল্যাপটপ অন্তত ২০ শতাংশ সাশ্রয়ী।

ওয়ালটন গ্রুপের অপারেটিভ ডিরেক্টর ও ল্যাপটপ প্রজেক্টের ইনচার্জ লিয়াকত আলী বলেন, ক্রেতাদের চাহিদা ও রুচির ভিন্নতা অনুযায়ী বর্তমানে বাজারে পাওয়া যাচ্ছে ২৭টি ভিন্ন মডেলের ল্যাপটপ। শিক্ষার্থী, চাকরিজীবী, ব্যবসায়ী, ওয়েব ডিজাইনার ও গেমারদের ব্যবহারের দিক বিবেচনা করেই ভিন্ন ভিন্ন কনফিগারেশন ও দামের ল্যাপটপ বাজারে ছেড়েছে ওয়ালটন।

তিনি বলেন, আমাদের সর্বশেষ যুক্ত হয়েছে প্যাশন সিরিজের ইন্টেলের সপ্তম প্রজন্মের প্রসেসরযুক্ত দুটি ল্যাপটপ। ১৫ দশমিক ৬ ইঞ্চি ডিসপ্লের এই ল্যাপটপে আছে ২ দশমিক ৫ ও ২ দশমিক ৪ গিগাহার্জ গতির কোর আই ফাইভ ৭২০০ ও কোর আই থ্রি ৭১০০ইউ প্রসেসর। বিল্টইন ইন্টেল এইচডি গ্রাফিক্স ৬২০। ৮ ও ৪ গিগাবাইট ডিডিআর৪ র‌্যাম। এক টেরাবাইট হার্ডডিক্স ড্রাইভ। শক্তিশালী ৪ সেলের স্মার্ট লিথিয়াম-আয়ন ব্যাটারি। ল্যাপটপ দুটির মধ্যে কোর আই ফাইভ এর মূল্য রাখা হচ্ছে ৪৩ হাজার ৯৫০ টাকা ও কোর আই থ্রি সিরিজের ল্যাপটপ ৩৫ হাজার ৫৫০ টাকা (মূল্য ছাড় বাদে)।

তিনি আরো বলেন, ওয়ালটনের প্যাশন সিরিজের অধীনে ছাড়া হয়েছে ১৪টি মডেলের ল্যাপটপ। যার দাম শুরু হয়েছে ২৩ হাজার ৪৯০ টাকা থেকে। সর্বোচ্চ ৫৪ হাজার ৫৫০ টাকায় পাওয়া যাবে এই সিরিজের ল্যাপটপ। ট্যামারিন্ড সিরিজে আছে ১১টি মডেল। দাম ২২ হাজার ৪৯০ টাকা থেকে ৫৪ হাজার টাকার মধ্যে (মূল্য ছাড় বাদে)। ব্যক্তিগত বা অফিশিয়াল সব ধরনের প্রয়োজনীয় কাজ সারতে জুড়ি নেই এসব ল্যাপটপের।

এছাড়াও আছে উচ্চগতির কেরোন্ডা ও ওয়াক্সজ্যাম্বু সিরিজের দুই মডেলের গেমিং ল্যাপটপ। যার দাম যথাক্রমে ৭৪ হাজার ৫৫০ এবং ৮৩ হাজার ৫৫০ টাকা (মূল্য ছাড় বাদে)। যারা গেম খেলতে ভালোবাসেন তাদের জন্য বিশেষভাবে তৈরি হয়েছে ওয়ালটনের এই ল্যাপটপ। গ্রাফিক্সের ভারি কাজ এবং ছবি বা ভিডিও এডিটিংয়ের জন্যও আদর্শ এই ল্যাপটপ বলেও জানান লিয়াকত আলী।

এদিকে শিক্ষার্থীদের জন্য রয়েছে সাশ্রয়ী মূল্যের বেশ কয়েকটি মডেলের ল্যাপটপ। যেগুলোর মূল্য মাত্র ১৯ হাজার ৯৯০ টাকা থেকে ২৪ হাজার ৪৯০ টাকা পর্যন্ত। ১৪ দশমিক ১ থেকে ১৫ দশমিক ৬ ইঞ্চি পর্দার এসব লাপটপে ব্যবহৃত হয়েছে এইচডি মানের এলসিডি ডিসপ্লে। আছে ১ দশমিক ৬ গিগাহার্জ গতির ষষ্ঠ প্রজন্মের কোয়াডকোর প্রসেসর। ৪ গিগাবাইট ডুয়াল চ্যানেল ডিডিআরথ্রিএল র‌্যাম। বিল্টইন ইন্টেল এইচডি গ্রাফিক্স ৪০৫। ৫০০ গিগাবাইট স্টোরেজ। চার সেলের লিথিয়াম-আয়ন ব্যাটারি, যা দেয় পাঁচ ঘণ্টা পর্যন্ত পাওয়ার ব্যাকআপ। আরো রয়েছে সব মডেলের ব্যাটারিতে ৬ মাসের এবং প্রতিটি ল্যাপটপে ২ বছরের বিনা মূল্যে বিক্রয়োত্তর সেবা।

এছাড়াও রয়েছে ওয়ালটন ডেস্কটপ ও মনিটর, মাউস, কি-বোর্ড, প্রিন্টারসহ অন্যান্য আইসিটি পণ্য। এর মধ্যে ডেক্সটপ এর মূল্য ২৩ হাজার ৫৫০ টাকা থেকে শুরু করে ৪৪ হাজার ৯৯০ টাকা পর্যন্ত রয়েছে এবং মনিটর রয়েছে ৮ হাজার ৫৫০ থেকে ১৩ হাজার ৯৯০ টাকা।