• শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৭ আশ্বিন ১৪২৫
  • ||

ফেনীতে দেশের প্রথম ৬ লেন ফ্লাইওভার উদ্বোধন

‘স্বপ্নের দুয়ার খুললো’

প্রকাশ:  ০৪ জানুয়ারি ২০১৮, ১৫:১৪
আবদুল্লাহ আল-মামুন, ফেনী
প্রিন্ট

দীর্ঘ প্রতিক্ষার পর দুয়ার খুললো ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ফেনীর মহিপালে নির্মিত দেশের প্রথম ও একমাত্র ছয় লেনের ফ্লাইওভার। বৃহস্পতিবার দুপুরে সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এ ফ্লাইওভারের উদ্বোধন করেন।

ভিডিও কনফারেন্সে শেখ হাসিনা বলেন, মহিপালে যানজট ছিল বিরাট সমস্যা। ক্রসিংয়ে যানজট নিরসনে এ ফ্লাইওভার করা হয়েছে। এ ফ্লাইওভার নির্মাণ বাস্তবায়ন করেছে সেনাবাহিনী। নির্দিষ্ট সময়ের ছয় মাস আগেই প্রকল্পের কাজ সমাপ্ত হয়েছে। ফ্লাইওভারটি চালু হওয়ায় ফেনীর সঙ্গে যোগাযোগ উন্নয়নের পাশাপাশি বাণিজ্যও বাড়বে। সময় কমবে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক ও ফেনী-লক্ষ্মীপুর আঞ্চলিক সড়কে চলাচলকারী যানবাহনের। এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ। মানুষের যাত্রাপথ সহজ করতে সরকার নানা পরিকল্পনা নিয়েছে। ফেনীর মহিপালের এই ফ্লাইওভারটিও এর একটি। এজন্য স্থানীয় জনসাধারণ ও সেনাবাহিনীকে ধন্যবাদ জানান তিনি।

অনুষ্ঠানে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে ফেনী জেলা প্রসাশকের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর কনফারেন্সে যুক্ত হন ফেনী-২ আসনের সংসদ সদস্য নিজাম উদ্দিন হাজারী, চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার আবদুল মান্নান, জেলা প্রশাসক মনোজ কুমার রায়, ফেনী চেম্বারের পরিচালক সাইফুদ্দিন।

অন্যদিকে বর্ণিল সাজে সজ্জিত ফ্লাইওভার দেখতে সকাল থেকে ফ্লাইওভার এর দক্ষিণ পাশে চাড়িপুর হাই স্কুল প্রাঙ্গণে জড়ো হয় হাজার হাজার ফেনীর সাধারণ মানুষ। ফ্লাইওভার উদ্বোধন অনুষ্ঠান উপভোগ করার জন্য তারা প্রত্যন্ত এলাকা থেকে ছুটে আসেন।

প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধন ঘোষণার সাথে সাথে ফ্লাইওভার এর ফলক উম্মোচন করেন অতিরিক্ত জেলা প্রসাশক (রাজস্ব) কুল প্রদীপ চাকমা, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মামুন, ফেনী পৌরসভার প্যানেল মেয়র নজরুল ইসলাম স্বপন মিয়াজী ও সেনাবাহিনীর কর্মকর্তারা। পরে সাংসদ নিজাম হাজারী, সংরক্ষিত নারী সংসদ সদস্য জাহানারা বেগম সুরমা, বিভাগীয় কমিশনার, জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার ও সেনাবাহিনীর কর্মকর্তারা গাড়ি চালিয়ে ফ্লাইওভার এর আনুষ্ঠানিক গাড়ি চলাচলের উদ্বোধন করেন।

ফ্লাইওভারে দাঁড়িয়ে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে নিজাম হাজারী বলেন, এই ফ্লাইওভার ফেনীবাসীর প্রাণের দাবী ছিল। এটি বাস্তবায়ন হওয়ায় প্রধানমন্ত্রীর কাছে আমরা কৃতজ্ঞ। ফ্লাইওভারটি যানজট নিরসনে ব্যাপক ভূমিকা রাখবে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, সড়ক ও জনপথ অধিদফতরের আওতায় কুমিল্লা জোনের বাস্তবায়নাধীন মহিপাল ফ্লাইওভারটির কাজ শুরু হয় ২০১৫ সালের ১ এপ্রিল। দৈর্ঘ্য ৬৬০ মিটার এবং প্রস্থ ২৪ দশমিক ৬২ মিটারের ফ্লাইওভারটি নির্মাণ করে সেনাবাহিনীর ইঞ্জিনিয়ারিং কনস্ট্রাকশন বিভাগ ও মেসার্স আবদুল মোনেম লিমিটেড। ফ্লাইওভারের সার্ভিস লেনের দৈর্ঘ্য ১৩৭০ মিটার এবং প্রস্থ ৭ দশমিক ৫ মিটার। সংযোগ সড়কের দৈর্ঘ্য ১১৬০ মিটার এবং ফুটপাথের দৈর্ঘ্য ২২১০ মিটার। ফ্লাইওভারটিতে রয়েছে ১১টি স্প্যান এবং ১৩২টি পিসি গার্ডার। এ প্রকল্পে মোট ১৮১ কোটি ৪৮ লাখ টাকা ব্যয় হয়েছে।