• শনিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৮, ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৫
  • ||

খালেদাকে অনেক শ্রদ্ধা করি, কারণ তিনি আমার মায়ের বয়সের: হাছান

প্রকাশ:  ০৪ জানুয়ারি ২০১৮, ১৬:৫৯ | আপডেট : ০৪ জানুয়ারি ২০১৮, ১৭:১৪
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট
ফাইল ছবি

পদ্মাসেতুতে না উঠতে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার আহ্বানের কড়া সমালোচনা করেছেন আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হাছান মাহমুদ। এই স্থাপনা তৈরি হলে সেতুর বদলে ফেরি দিয়ে চলাচল করতে হবে বলেও সাবেক প্রধানমন্ত্রীকে জানিয়ে দেন ক্ষমতাসীন দলের এই নেতা।

বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এক মানববন্ধনে হাছান এসব কথা বলেন। পদ্মা সেতুতে না উঠতে খালেদা জিয়ার সাম্প্রতিক বক্তব্য এবং বিএনপি-জামায়াতের জ্বালাও পোড়াও, দূর্নীতির’ প্রতিবাদে এই কর্মসূচি পালন করে আওয়ামী মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম লীগ।

হাছান মাহমুদ বলেন, আপনি (খালেদা জিয়া) দয়া করে পদ্মা সেতুর উপর দিয়ে গাড়ি চালাবেন না। আপনি পদ্মা সেতুর নিচ দিয়ে ফেরি দিয়ে যাবেন। আপনাদের বক্তব্য প্রত্যাহার করা না পর্যন্ত পদ্মা সেতুর উপর দিয়ে গাড়ি চালাবেন না।’

গত ২ জানুয়ারি ছাত্রদলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর সমাবেশে খালেদা জিয়া পদ্মাসেতুতে চলাচল না করতে জনগণকে সতর্ক করে দেন। তিনি বলেন, পদ্মা সেতুর স্বপ্ন দেখাচ্ছে সরকার। কিন্তু পদ্মা সেতু আওয়ামী লীগের আমলে হবে না। এ সেতু জোড়াতালি দিয়ে বানানো হচ্ছে। এ সেতুতে কেউ উঠবেন না। এই সেতুকে রিস্ক আছে।

এই বক্তব্যের সমালোচনা করে আওয়ামী লীগের মুখপাত্র বলেন, আপনার সব কিছুতেই জোড়াতালি দেওয়া। আপনার বয়সে জোড়াতালি, সার্টিফিকেটে জোড়তালি, সব কিছুতেই জোড়াতালি দেওয়া। তাই আপনি পদ্মাসেতুতেও জোড়াতালি দেখছেন।

‘তিন বছর আগে আপনি বলেছিলেন এই সরকার পদ্মাসেতু করতে পারবে না। কিন্তু সেতুর কাজ যখন ৫০ শতাংশ শেষ হয়েছে তখন বলছেন সেতুর উপর দিয়ে কেউ চলাচল করবেন না। কেউ গাড়ি চালাবেন না।’

‘আজ খালেদা জিয়ার মাথা খারাপ হয়ে গেছে। লন্ডন থেকে খালেদা জিয়ার শারীরীক চিকিৎসা করে এসেছেন। এখন মানসিক চিকিৎসা করানো দরকার। ’

বিএনপি চেয়ারপারস বেগম খালেদা জিয়ার সাজসজ্জা দিয়েও এ সময় কটাক্ষ করেন হাছান মাহমুদ। বলেন, সাজসজ্জার কারণেই বিএনপি নেত্রীর প্রতি তার শ্রদ্ধা থাকে না।

‘আপনাকে অনেক শ্রদ্ধা করি আমি। কারণ আপনি আমার মায়ের বয়সের। কিন্তু যখন দেখি আপনি আমার মেয়ের বয়সী সাজগোজ করেন, তখন আর শ্রদ্ধা থাকে না।’

৫ জানুয়ারি বিশৃঙ্খলা করলে ব্যবস্থা

দশম সংসদ নির্বাচনে ভোটগ্রহণের দিন ৫ জানুয়ারি কোনো ধরনের সহিংসতা না করতে বিএনপিকে সতর্ক করে দেন হাছান। বলেন, ‘আগামীকাল দেশে যদি কোন প্রকার বিশৃঙ্খলা করার চেষ্টা করা হয় তাহলে কঠোর হাতে প্রতিহত করা হবে।’

৫ জানুয়ারিকে ‘গণতন্ত্র হত্যা দিবস’ হিসেবে পালন করায় বিএনপির সমালোচনা করেন হাছান। বলেন, ‘ওই সময় ২০ দলের বিষ দাঁত ভেঙে দিয়েছিলাম গণতন্ত্র রক্ষা করার জন্য। তাই আগামী কাল হচ্ছে ‘গণতন্ত্র রক্ষা দিবস’।

বিএনপিকে সমাবেশের অনুমতি না দিতে পুলিশের প্রতি আহ্বান জানিয়ে আওয়ামী লীগ নেতা বলেন, ‘বিএনপি সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে অনুমতি চেয়েছিল সমাবেশ করার। কিন্তু অনুমতি না পেয়ে নয়া পল্টনে অনুমতি চেয়েছে। তারা এসব সমাবেশে করে যাওয়ার সময় গাড়িতে আগুন দিয়েছে, মানুষ পুড়িয়ে মেরেছে। তাদের অতীত কর্মকাণ্ডের কথা বিবেচনা করে তাদের অনুমতির কথা বিবেচনা করবেন।’

আওয়াসী মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম লীগের সভাপতি আসাদুজ্জান দূর্জয়ের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে আরও উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগ নেতা এম এ করিম, বলরাম পোদ্দার, অরুণ সরকার রানা প্রমুখ।

‘মহাশক্তিধর’র সঙ্গে দেখা করে আপোস না করায় তারানাকে সরে যেতে হয়েছে?

/প্রান্ত

apps