• শুক্রবার, ২৫ মে ২০১৮, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫
  • ||

কুমিল্লায় খালেদা জিয়ার দুই মামলার পরবর্তী শুনানি ৭ জুন

প্রকাশ:  ২৪ এপ্রিল ২০১৮, ০০:২৫
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট
কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে বাসে পেট্রলবোমা হামলায় আটজন হত্যা ও একই উপজেলার হায়দারপুল এলাকায় কাভার্ডভ্যান পোড়ানোর পৃথক দুটি মামলায় হুকুমের আসামি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিনের আবেদনের পরবর্তী শুনানি ৭ জুন নির্ধারণ করেছেন আদালত। একই সঙ্গে এ দুই মামলার আদেশ দেওয়া হবে।  

সোমবার খালেদা জিয়া ও রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীদের যুক্তিতর্ক শোনার পর কুমিল্লা জেলা ও দায়রা জজ জেসমিন আরা বেগম এ আদেশ দেন।

মামলায় বেগম খালেদা জিয়ার পক্ষে শুনানিতে অংশগ্রহণ করেন ঢাকা থেকে আসা বাংলাদেশ সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন, অ্যাডভোকেট সানাউল্লাহ মিয়া এবং কুমিল্লার অ্যাডভোকেট কাজী নাজমুস সাদতসহ অর্ধশতাধিক আইনজীবী।

রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন পিপি অ্যাডভোকেট মোস্তাফিজুর রহমান লিটনসহ বেশ কয়েকজন আইনজীবী। 

এর আগে চলতি মাসের গত ১০ এপ্রিল কুমিল্লার ৫নং আমলি আদালতের বিচারক মোস্তাইন বিল্লাহ বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন নামঞ্জুর করেন।

পরবর্তীতে তার আইনজীবীরা গত ১৬ এপ্রিল জেলা ও দায়রা জজ আদালতে জামিন আবেদন করলে আদালত সোমবার (২৩ এপ্রিল) শুনানির দিন ধার্য করেন।

শুনানি শেষে খালেদা জিয়ার পক্ষের আইনজীবী ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন সাংবাদিকদের জানান, এ দুটি মামলায় প্রধান আসামিদের সবাই জামিনে রয়েছেন, খালেদা জিয়া তো সহযোগী আসামি, তিনি সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বয়স্ক। তিনি (খালেদা জিয়া) জামিন নিয়ে বিদেশে পালিয়ে যাবেন না।

ব্যারিস্টার মাহবুব বলেন, নির্বাচনকে সামনে রেখে খালেদা জিয়াকে কারাগারে রেখেই নির্বাচন করতে চাইছে সরকার। পুলিশ বাদী হয়ে এ মিথ্যা মামলা দায়ের করেছে। জেলা জজ আদালত থেকে খালেদা জিয়া ন্যায়বিচার পাবেন বলে তিনি জানান।

আদালতের পিপি অ্যাডভোকেট মোস্তাফিজুর রহমান লিটন সাংবাদিকদের জানান, বাসে পেট্রলবোমায় ৮ যাত্রী হত্যা এবং কাভার্ডভ্যান পোড়ানোর মামলায় বেগম খালেদা জিয়ার পক্ষের আইনজীবীদের দাখিলকৃত দুটি আবেদনের পৃথক শুনানি হয়েছে। রাত ৭টা পর্যন্ত এ বিষয়ে আদালতের আদেশ হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করা যায়নি।

পরে রাত ৮টায় অ্যাডভোকেট মোস্তাফিজুর রহমান লিটন জানান, শুনানি শেষে আগামী ৭ জুন দুটি মামলার অধিকতর শুনানি ও আদেশের জন্য দিন ধার্য করে আদেশ দিয়েছেন।

উল্লেখ্য, বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের লাগাতার হরতাল অবরোধ চলাকালে ২০১৫ সালের ২৫ জানুয়ারি ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের জেলার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার হায়দারপুল এলাকায় একটি কাভার্ডভ্যান পোড়ানোর অভিযোগে খালেদা জিয়াসহ ৩২ জন এবং একই সালের ৩ ফেব্রুয়ারি ভোর রাতে চৌদ্দগ্রামের জগমোহনপুর এলাকায় দুর্বৃত্তদের পেট্রলবোমায় বাসের ৮ জন যাত্রী নিহতের মামলায় গত বছরের ১৬ নভেম্বর খালেদা জিয়াসহ ৭৮ জনের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করা হয়। উভয় মামলাই খালেদা জিয়া হুকুমের আসামি।