• বুধবার, ১৫ আগস্ট ২০১৮, ৩১ শ্রাবণ ১৪২৫
  • ||

মিরপুরে গুপ্তধনের সন্ধানে আজও অভিযান

প্রকাশ:  ২২ জুলাই ২০১৮, ১১:৫১ | আপডেট : ২২ জুলাই ২০১৮, ১১:৫৬
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট

মাটির নিচে গুপ্তধন আছে এমন জনশ্রুতি তৈরির পর ঢাকার মিরপুর মডেল থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছিলেন বাড়ির মালিক মনিরুল আলম। এমন তথ্যের ভিত্তিতে গতকাল সিটি করপোরেশনের সহযোগিতায় সেখানে তল্লাশি অভিযান শুরু করে পুলিশ। সেই বাড়িতে গুপ্তধনের সন্ধানে আজও অভিযান চলবে বলে জানিয়েছেন মিরপুর মডেল থানার ওসি মো. দাদন ফকির।

গতকাল শনিবার স্থগিত হওয়া খননকাজ আজ রবিবার আবার শুরু হবে বলে জানিয়ে তিনি বলেন, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এসে পৌঁছলে পুনরায় খননকাজ শুরু হবে।

এর আগে গুপ্তধনের সন্ধানে সেখানে তল্লাশি অভিযান শুরু করে পুলিশ। সিটি করপোরেশনের কর্মীরা ওই বাড়ির একটি রুম খোঁড়ে। তখন তল্লাশি অভিযানে পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। সকাল সাড়ে ১০টা থেকে ৩টা ৪০ মিনিট পর্যন্ত সাড়ে ৪ ফুট খনন কাজ চলে। গুপ্তধনের সন্ধান পেতে ১০ থেকে ১২ ফুটের মতো খনন করা লাগতে পারে বলে জানিয়েছেন প্রত্নতত্ত্ববিদেরা।

স্থানীয়রা বলছেন, তারা শুধু লোক মুখে শুনেই যাচ্ছেন যে, এই বাড়িতে গুপ্তধন আছে। কিন্তু কী আছে সেটি কেউ বলতে পারে না। আসলেই কি আছে, নাকি পুরোটা গুজব?

বাড়িটির বর্তমান মালিক দাবিদার মনিরুল আলম বলেন, এই খোঁড়াখুঁড়িতে যদি কোনো গুপ্তধন কিংবা স্বর্ণালঙ্কার পাওয়া যায়। তাহলে আমি বিধি মোতাবেক সব সরকারি বা রাষ্ট্রীয় কোষাগারে জমা দেবো। এমনকি খোঁড়াখুঁড়িতে যত টাকা লাগে সেটাও যদি আমাকে দিতে আমি তা দিবো।

এদিকে গতকাল খননকাজ বন্ধ করার পর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আনোয়ারুজ্জামান সাংবাদিকদের বলেন, বাড়ির অবকাঠামো বেশ দুর্বল। মজবুত কাঠামোর ওপর এই বাড়ির ঘরগুলো নির্মাণ করা হয়নি। এখানে খননকাজ করা হলে ঘরগুলো ধসে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে। তাই আজ খননকাজ বন্ধ করা হয়েছে। বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নিয়ে এ বিষয়ে পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

/এসএইচ