• বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৫ আশ্বিন ১৪২৫
  • ||

বেলাবোতে বাস-লেগুনার সংঘর্ষ, নিহত ১১

প্রকাশ:  ২০ আগস্ট ২০১৮, ২১:৫৯ | আপডেট : ২১ আগস্ট ২০১৮, ০৯:০৮
ভৈরব প্রতিনিধি
প্রিন্ট

নরসিংদীর বেলাবো উপজেলার জঙ্গিয়া নতুনবাজার এলাকার ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে বাস ও লেগুনার মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত হয়েছে ১১ জন । এছাড়াও আহত হয়েছেন অন্তত ১৫ জন।

সোমবার (২১ আগস্ট) রাত সাড়ে আটটার দিকে জঙ্গুয়া নতুন বাজার এলাকায় এ দুর্ঘটনাটি ঘটে।

নিহতরা হলেন সুনামগঞ্জের দূয়ারাবাজার এলাকার কাজিল হকের ছেলে সুজন (২৫), তার স্ত্রী সাবিনা বেগম (২০), একই এলাকার মৃত নুরু মিয়ার ছেলে আবুল হোসেন (৫৫), মৃত মন্নাফ মিয়ার ছেলে আবুল মিয়া (২৪), আসমত আলীর ছেলে মোবারক (১৮), কাশেম মিয়ার ছেলে শাহিন (১৮), আফতাব উদ্দিন (৫০), নেত্রকোনার চাপুনিয়া এলাকার মৃত মোরশেদ আলীর ছেলে রাকিবুল (৩০), একই এলাকার শফিক (২৬), সুমন (২২) এবং লেগুনা গাড়ীর চালক নরসিংদির শিবপুর থানার কাশেম মিয়ার ছেলে মাসুম (২৫)।

আহতদের মধ্য প্রায় ১৫ জন ভৈরবের বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছে বলে জানা যায়।

পুলিশ সুত্রে জানা যায়, ভৈরব থেকে ছেড়ে আসা মহাখালীগামী ঢাকা বস পরিবহনের একটি বাসের সঙ্গে বিপরীত দিক থেকে আসা ভৈরবগামী যাত্রীবাহী লেগুনার মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। বেপোরোয়াভাবে গাড়ী চালানোর কারণেই এই দুর্ঘটনাটি ঘটে। নিহতরা সবাই নরসিংদির কাদির মোল্লার আদুরী গার্মেন্টস ও নির্মাণ শ্রমিকের কাজ করতেন। গতকাল ঈদের ছুটিতে তারা লেগুনা ভাড়া করে নরসিংদী থেকে ভৈরব যাচ্ছিল। কিন্তুপথিমধ্যে এ মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ হারায়।

নিহত ১১ জনের মধ্য ৮ জন ঘটনাস্থই মারা যায়। বাকী ২ জন ভৈরব হাসপাতালে এবং ১ জনকে নরসিংদি সদর হাসপাতালে নেওয়ার পর মৃত্যু হয় । খবর পেয়ে ভৈরব হাইওয়ে থানা পুলিশ ও ভৈরব ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে সকল লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। দুর্ঘটনার পর পর ঢাকা - সিলেট মহাসড়কে গাড়ী চলাচল বন্ধ হয়ে গেলে যাত্রীরা দুর্ভোগে পড়ে এবং সড়কে জ্যাম লেগে যায়। তারপর পুলিশের সহায়তায় ১ ঘন্টা পর গাড়ী চলাচল স্বাভাবিক হয়।

দুর্ঘটনার খবর পেয়ে নরসিংদী জেলা পুলিশ সুপার সাইফুল আলম মামুন, অতিঃরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ শাহরিয়ার আলম, বেলাব উপজেলার উপজেলা নির্বাহী অফিসার উম্মে হাবিবা ঘটনাস্হলে পৌঁছে দুর্ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এছাড়াও বেলাব উপজেলার নির্বাহী অফিসার উম্মে হাবিবা জানান, দুর্ঘটনায় নিহতদের প্রত্যেক পরিবারকে লাশ দাফনের জন্য ২০ হাজার টাকা করে নরসিংদী জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রদানের ঘোষণা দেন তিনি ।

নরসিংদী পুলিশ সুপার সাইফুল আলম মামুন জানান, বেপোরোয়ারা গাড়ী চালানোর কারনেই এই দুর্ঘটনা ঘটে। পুলিশ ঘটনাস্হলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণসহ লাশ উদ্ধার করে ভৈরব হাইওয়ে থানায় নেওয়া হয়েছে ।

ভৈরব হাইওয়ে থানার ওসি তরিকুল ইসলাম জানান, দূর্ঘটনায় নিহতদের মধ্য সবারই পরিচয় পাওয়া গেছে। তাৎক্ষণিক দুর্ঘটনার খবর শুনে ঘটনাস্থল থেকে নিহতদের উদ্ধার করে থানায় নিয়ে অাসা হয়।

/অ-ভি