• বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৮, ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৫
  • ||

জাতিসংঘকে নিরপেক্ষ নির্বাচনের উদ্যোগ নিতে আহবান ফখরুলের (ভিডিও)

প্রকাশ:  ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০৪:৪৩ | আপডেট : ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০৪:৫২
মোহাম্মাদ ওবায়েদ, নিউইয়র্ক থেকে
প্রিন্ট

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলামের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল জাতিসংঘের রাজনীতিবিষয়ক আন্ডার সেক্রেটারি জেনারেল রোজমেরি এ ডিকার্লো ও সহকারি সেক্রেটারি জেনারেল মিরোস্লাভ জেনকাসহ সংস্থাটির শীর্ষ কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন। বৈঠকে বাংলাদেশের আসন্ন নির্বাচন এবং সাম্প্রতিক রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা হয়। এ সময় জাতিসংঘকে বাংলাদেশে সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের উদ্যোগ নিতে আহবান জানান মির্জা ফখরুল।

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে জাতিসংঘ সদর দপ্তরে স্থানীয় সময় বুধবার সকাল সাড়ে ১০টায় (বাংলাদেশ সময় রাত সাড়ে ১১টা) প্রায় একঘণ্টার এই বৈঠকে অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন এতে জাতিসংঘের সহকারি সেক্রেটারি জেনারেল মিরোস্লাভ জেনকাসহ সংস্থাটির পাঁচজন উর্দ্ধতন কর্মকর্তা । অন্যদিকে মির্জা আলমগীরের সঙ্গে ছিলেন তাঁর দলের অপর দুই নেতা বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা হুমায়ূন কবীর ও তাবিথ আউয়াল।

জাতিসংঘের আন্ডার সেক্রেটারি জেনারেল ও তাঁর সহকর্মীদের সঙ্গে বৈঠক শেষে বেরিয়ে যাওয়ার সময় অপেক্ষমান কয়েকজন বাংলাদেশি সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সংক্ষেপে বলেন, আসন্ন নির্বাচন নিয়ে আলোচনা হয়েছে। আমরা দেশের সামগ্রিক রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে কথা বলেছি। মানবাধিবার পরিস্থিতি নিয়ে কথা বলেছি। আমরা জাতিসংঘকে বাংলাদেশের আগামী নির্বাচন সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষভাবে সম্পন্ন করতে উদ্যোগ নেওয়ারও আহ্বান জানিয়েছি। প্রয়োজনে নির্বাচন তত্বাবধানে জাতিসংঘকে এগিয়ে আসার অনুরোধ জানিয়েছি। সেক্রেটারি জেনারেলের পক্ষে তার রাজনৈতিক বিষয়ক আন্ডার সেক্রেটারি জেনারেল, সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল ও অন্যরা আমাদের বক্তব্য শুনেছেন এবং বিষয়টি পর্যালোচনা করবেন জানিয়েছেন।

পরে নিউইয়র্ক বিএনপির নেতারা মির্জা ফখরুলের বরাত দিয়ে জানান, জাতিসংঘকে বিএনপির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, প্রশাসনের সহায়তায় বাংলাদেশের নির্বাচন পুরোপুরি নিজেদের নিয়ন্ত্রণে সম্পন্ন করে বর্তমান ক্ষমতাসীনরা আবারও রাষ্ট্রক্ষমতা দখলে রাখতে চায়। এ লক্ষে তারা বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোর বহু নেতা-কর্মীকে জেলে আটকে রেখেছে। তাদের বিরদ্ধে লাখ লাখ মিথ্যা মামলা দিয়ে রেখেছে। স্বয়ং বিএনপি চেয়ারপারসনকে মিথ্যা মামলায় জেলে আটকে রেখেছে। কোনো গ্রহণযোগ্য কারণ ছাড়াই তার জামিন পাবার অধিকার খর্ব করা হচ্ছে। এ অবস্থায় বর্তমান সরকারের অধীনে নির্বাচন সামান্যতমও অবাধ ও নিরপেক্ষ হওয়ার সুযোগ নেই। এ পরিস্থিতিতে জাতিসংঘের তত্ত্বাবধানে এ নির্বাচন অনুষ্ঠানের দাবি জানান তারা। এ ব্যাপারে জাতিসংঘ কর্মকর্তারা বিষয়টি সেক্রেটারি জেনারেলের নজরে নেয়ার আশ্বাস দিয়েছেন।

এর আগে মির্জা ফখরুল ও বিএনপি’র অপর দুই নেতা বৈঠকের উদ্দেশে মঙ্গলবার বিকেলে নিউ ইয়র্কে এসে পৌঁছান। বুধবার জাতিসংঘ কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক শেষে তাঁরা ওয়াশিংটনের উদ্দেশে রওয়ানা দেন। সেখানে মার্কিন প্রশাসনের একাধিক উর্দ্ধতন কর্মকর্তার সঙ্গে তাদের বৈঠকের কথা রয়েছে।

প্রসঙ্গত, সম্প্রতি জাতিসংঘের মহাসচিব এন্টোনিও গুতেরেস যখন ঢাকায় সফরকালে তার সঙ্গে সাক্ষাতেরএপয়েন্টমেন্ট চেয়েছিলেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। কিন্তু ওই সময় তাকে সাক্ষাত দিতে পারেননি। সে কারণেই এ পর্যায়ে বিএনপি মহাসচিবকে এখন বৈঠকের জন্য নিউ ইয়র্কে আমন্ত্রণ জানানো হয়। কিন্তু জাতিসংঘ মহাসচিব তাঁর পূর্ব নির্ধারিত সফরে আফ্রিকা ও ইউরোপ সফরে চলে যাওয়ায় তাঁর পক্ষে সংস্থার উর্দ্ধতন কর্মকর্তারা বিএনপির প্রতিনিধি দলের সঙ্গে বৈঠক করেন।

এনই/

জাতিসংঘ,মির্জা ফখরুল
apps