• বুধবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৮, ২ কার্তিক ১৪২৫
  • ||

‘২০১৮ সালের শেষে অথবা ২০১৯ সালের শুরুতে নির্বাচন’

প্রকাশ:  ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১২:৩১ | আপডেট : ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১২:৩৪
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট

প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা বলেছেন, ২০১৮ সালের শেষে অথবা ২০১৯ সালের শুরুতে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া আইনগত ভিত্তি পেলেই আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ব্যবহার করা হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

শনিবার (২২ সেপ্টেম্বর) আগারগাঁওয়ে নির্বাচন প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে সকালে এক প্রশিক্ষণ কর্মশালার উদ্বোধন অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন তিনি। নির্বাচনী কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষকদের প্রশিক্ষণ এবং ইভিএম ব্যবহার নিয়ে এ কর্মশালার আয়োজন করে নির্বাচন কমিশন।

এদিন সিইসি বলেন, ইভিএম চাপিয়ে দেওয়া যাবে ন। নিখুঁতভাবে যতটুকু ব্যবহার করা সম্ভব ততটুকুই করা হবে। আমরা মানুষের কৌতুহল ও সন্দেহ দূর করার চেষ্টা করব। ইভিএমে ত্রুটি থাকলে আমরা এটা ব্যবহার করব না।

তিনি আরও বলেন, শুধুমাত্র আইনগত স্বীকৃতি পেলেই এটি (ইভিএম) ব্যবহার করা হবে। এই পদ্ধতিতে সহজে ভোট প্রদান করা যায়, গণনাও করা যায় খুব সহজে। এতে ভোট কারচুপির কোনো সুযোগ নেই। তাই এটা নিয়ে জেনে তারপর মন্তব্য করলে ভাল হয়। আমাদের অবশ্যই আধুনিক প্রযুক্তির দিকে ধাবিত হতে হবে। নির্বাচনের ম্যানুয়াল পদ্ধতি থেকে আমাদের সরে আসতে হবে।

এদিনের কর্মশালায় সভাপতিত্ব করেন নির্বাচনী প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক মোস্তফা ফারুক। এ কর্মশালায় ৫০ জন কর্মকর্তা প্রশিক্ষণ নেবেন।

/রবিউল

কে এম নূরুল হুদা,একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন,ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম)

সর্বাধিক পঠিত