• রবিবার, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ২ পৌষ ১৪২৫
  • ||

অরিত্রির আত্মহত্যার দায় নেবেন না ক্লাস টিচার

প্রকাশ:  ০৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৬:২২ | আপডেট : ০৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৭:২৩
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট

ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষার্থী অরিত্রী অধিকারীর আত্মহত্যার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় শ্রেণিশিক্ষিকা হাসনা হেনাকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার (৬ ডিসেম্বর) দুপুরে তাকে ঢাকা মুখ্য নগর হাকিম আদালতে নেওয়া হলে হাকিম আবু সাঈদ এ আদেশ দেন।

শুনানিতে শ্রেণিশিক্ষিকা হাসনা হেনাকে আদালতে হাজির করে আটক রাখার আবেদন করেন মামলাটির তদন্ত কর্মকর্তা। হাসনা হেনার পক্ষের আইনজীবী জাহাঙ্গীর আলম জামিন চেয়ে শুনানি করেন।

এর আগে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে হাসনা হেনা পুলিশকে বলেন, আমার কাজ হলো কোনো মেয়ে যদি ঝামেলা করে তাহলে তার বাবা-মাকে নিয়ে প্রিন্সিপালের কাছে দাঁড় করানো। এ ক্ষেত্রে মোবাইল পাওয়ায় আমি তাই করেছিলাম। এ ছাড়া আমার কোনো দায় নেই। অরিত্রির বাবা-মায়ের সঙ্গে আমার কোনো কথা হয়নি। অধ্যক্ষ আমাকে যা বলেছেন আমি তাই করেছি।

তবে হাজত খানার কর্মকর্তা পুলিশের উপ-পরিদর্শক মোতালেব হোসেন জানান, তার বিরুদ্ধে কোনো রিমান্ড আবেদন না করা হয়নি। কিন্তু শিক্ষিকার জামিনের আবেদন করেছেন আইনজীবী।

এর আগে বুধবার রাত ১১টার দিকে উত্তরা ইন হোটেল থেকে তাকে গ্রেফতার করে মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ। গ্রেফতারের পর তাকে ডিবি কার্যালয়ে নেওয়া হয়।

এদিকে ভিকারুননিসার বরখাস্ত ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ নাজনীন ফেরদৌস, শাখা প্রধান জিনাত আখতারকেও গ্রেফতার করা হতে পারে বলে জানিয়েছেন ডিবির এক উর্ধ্বতন কর্মকর্তা।

প্রসঙ্গত, সোমবার দুপুরে রাজধানীর শান্তিনগরের নিজ বাসায় ফ্যানের সঙ্গে গলায় ফাঁস দিয়ে প্রাণ হারায় অরিত্রি। এ ঘটনায় মঙ্গলবার রাতে রাজধানীর পল্টন থানায় ‘আত্মহত্যার প্ররোচণাকারী’ হিসেবে স্কুলের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ নাজনীন ফেরদৌস, প্রভাতি শাখার প্রধান জিনাত আখতার ও শ্রেণিশিক্ষিক হাসনা হেনার বিরুদ্ধে মামলা করেন অরিত্রির বাবা। সেই মামলার তিন নম্বর আসামি হাসনা হেনা।

/আরিফ

অরিত্রি
apps

সর্বাধিক পঠিত