• বুধবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৮, ২৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৪
  • ||

সুলতান মনসুরের নির্বাসন

প্রকাশ:  ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৪:৪৯ | আপডেট : ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৫:১৩
ছরওয়ার হোসেন, নিউইয়র্ক থেকে
প্রিন্ট

সাবেক ডাকসু ভিপি ও আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সুলতান মোহাম্মদ মনসুরকে চুড়ান্তভাবে সদ্যগঠিত জাতীয় ঐক্যের ব্যানারে দেখতে পেয়ে দেশে বিদেশে আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের মাঝে যেন বুকফাটা আর্তনাদ ডুকরে উঠেছে । কেউই যেন তা মানতে পারছেন না। সামাজিক মিডিয়ায় যা প্রতিফলিত। কেউ বলছেন সুলতান মনসুর আওয়ামী লীগ নেতৃত্বের প্রতি আরেকটু নতজানু হলে এমন কি হতো? আবার কেউ বলছেন- একজন সুলতানকে আর কতো শাস্তি দিলে তা শাস্তি বলে প্রতিয়মান হতো? নানান কথা, নানান প্রশ্ন।

আমি অধমের নিরীক্ষন হলো, আওয়ামী লীগ তাঁর প্রতি অবিচার করেছে, না, তিনি আওয়ামী লীগের প্রতি অবিচার করেছেন, কে কতটুকু করেছেন তা একদিন সময়ই হয়তো বলবে। আপাততঃ এটুকু বলা যায়, আওয়ামী লীগ হারিয়েছে এক বিশাল হৃদয়ের কর্মীবান্ধব নেতা, যা সহজে সৃষ্টি হয় না, আর সুলতান মনসুর হারিয়েছেন আওয়ামী লীগ।

আওয়ামী লীগ স্বর্ণালী ইতিহাসের আতুড় ঘর আর সুলতান মনসুর সে ঘরেরই এক উজ্জ্বল তারকা। আজীবন বঙ্গবন্ধুপ্রেমী সুলতান মনসুর। দূর্ণীতিমুক্ত পরিচ্ছন্ন রাজনীতির অহংকার সুলতান মনসুর। আওয়ামী লীগের এ রত্ন সুলতান কি ব্যথায় বা কি যন্ত্রনায় বিষজ্বালা মুখে নিয়েছে, আওয়ামী লীগ থেকে হয়েছে নির্বাসিত তা কেবল বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা ও সুলতান মনসুরই ভালো বলতে পারবেন, অন্য কেউ নয়। আমরা কেবল অনুমান করতে পারি!!

যে দেশে যোগ্যতার বিচারে নয়, যতোবড়ো নেতাই হোক মূখ্যতঃ যেন স্নেহধন্য হয়েই কিংবা অপার দয়ার বদৌলতে এম পিরা দলীয় মনোনয়ন পায়, সে দেশে পারসোনালিটি বা ব্যক্তিত্বের বড়াইয়ের রাজনীতি বঙ্গবন্ধুর দেহাবসানের সাথেই উদাও হয়ে গিয়েছে তা সুলতান মনসুর টিকই জানতেন। নাকে খত দেওয়া সুলতান মনসুর শিখেননি, শিখেছিলেন স্পষ্ট উচ্চারণ, আর তাই আওয়ামী লীগে তাঁর জন্য কাল হয়ে দাড়ালো। নেতাকর্মীদের ভাষায় যা হলো - যুগের সাথে ‘তাল মেলাতে’ পারেননি।

হ্যাঁ, যুগের সাথে এই ‘তাল মেলানো’ শিখতে পারেনি বলেই সুলতান মনসুররা বঙ্গবন্ধুর রক্তের সাথে বেঈমানী করতে পারেনী, পারেনী পৌরুষত্বের সঙ্গে আপোষ করতে, হয়েছিলো দেশান্তরী আর অস্ত্রহাতে দিয়েছিলো বিদ্রোহের ডাক। যার পরিণাম কতো ভয়ংকর ছিলো, তা ভাবনার সুযোগ পায়নি। একটা নিঁখাদ ব্যক্তিত্বধারীগণের আদর্শের প্রশ্নে অতুলনীয় আপোষহীন ব্যক্তিত্বই তাঁদের বিদ্রোহের বেদীমূলে দিয়েছিলো শাঁন। বিপ্লবীর সেই ব্যক্তিত্বই তাঁর জন্য কাল হয়ে দাড়ালো।

কদমবুছি করে সালাম করা সহজ, কিন্তু, নাঁকে খঁত দিয়ে রাজনীতির শিক্ষা তাঁর নেতা বঙ্গবন্ধু তাঁকে দেননি, হয়তো তিনিও তা পাননি। এটাই চরম সত্য।

পরিশেষে বলি, ইতিহাসের রত্নসম্ভার বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ভবিষ্যত হোক উজ্জ্বলতর॥ বঙ্গবন্ধুর মানসপুত্র সুলতান মনসুরের ভবিষ্যতও হোক আলোকপূর্ণ॥ জয়বাংলা ॥ জয় বঙ্গবন্ধু ॥

লেখক: প্রবাসী, নিউ ইয়র্ক

সুলতান মনসুর আহমেদ
apps