• শনিবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৭, ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৪
  • ||
  • আর্কাইভ

‘আ. লীগকে আর ক্ষমতায় দেখতে চায় না জনগণ’

প্রকাশ:  ১৪ নভেম্বর ২০১৭, ১৪:৩৪
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, এই  সরকারের দিন শেষ। আওয়ামী লীগের সময় শেষ হয়ে গেছে। তাদেরকে দেশের জনগণ আর ক্ষমতায় দেখতে চায় না।

মঙ্গলবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সম্মেলন কক্ষে এক আলোচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।‘জাতীয় বিপ্লর ও সংহতি দিবস’ উপলক্ষে এ আলোচনা সভার আয়োজন করে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী কৃষক দল।

খন্দকার মোশাররফ বলেন, সমাবেশের অনুমতি আপনারা এতদিন দেন নাই, আপনারা স্বৈরাচারী আচরণ করেছেন। তবুও যারা আসার, তারা পায়ে হেঁটে চলে এসেছে। সমাবেশ থেকে বার্তা দেওয়া হয়েছে যে, এই  সরকারের দিন শেষ! আওয়ামী লীগের সময় শেষ হয়ে গেছে। তাদেরকে দেশের জনগণ আর ক্ষমতায় দেখতে চায় না।

প্রধান বিচারপতির পদত্যাগ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ক্ষমতা অবৈধ হওয়ার ভয়েই সরকার তড়িঘড়ি করে প্রধান বিচারপতিকে জোর করে পদত্যাগে বাধ্য করিয়েছেন ।উচ্চ আদালতে নজিরবিহীন ও খারাপ দৃষ্টান্ত স্থাপন হলো এটা জাতির জন্য কলঙ্কজনক। দেশের জনগণ কখনোই এমনটা মেনে নিবে।

তিনি বলেন, ৭ ই নভেম্বরের যে ঘটনা, সে ঘটনাকে বিকৃত করে একটি মহল সুবিধা নিচ্ছে। আমাদের জাতিসত্ত্বার পরিচয় আমরা বাংলাদেশি, ভারতের একটা অংশে অনেকেই বাঙালি, আমাদের সঠিক পরিচয় তুলে ধরেছেন জিয়াউর রহমান। ধর্ম নিরপেক্ষতার নামে যে ধর্মহীনতা তা জিয়াউর রহমান দুরীভূত করার পদক্ষেপ নেন।

 

বিএনপির এই নেতা আরো বলেন, একজন মন্ত্রী বলেছেন, তিনি নাকি জিয়াউর রহমানের নামই জানেন না। ২৬ শে মার্চের আগে জিয়াউর রহমানের নাম কেউ জানতো না, তার মানে কি? জিয়াউর রহমানের ভূমিকার কারণেই  তাকে সবাই চিনে। গণতন্ত্রকে পুনরুদ্ধার করেছিল কে? জিয়াউর  রহমান, তাহলে বাকশাল হত্যা করেছিল কে? এজন্যই  আওয়ামী লীগ এতো ক্ষেপা বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

শামসুজ্জামান দুদু বলেন, আওয়ামী লীগের অপশাসনেই ৭ই নভেম্বরের সৃষ্টি, জিয়াউর রহমান যদি সেদিন ঘোষণা দিতেন, আরো ভয়াবহ অবস্থার সৃষ্টি। গুম খুন অপহরণ যদি বন্ধ করতে হয়, তাহলে বেগম খালেদা জিয়াকে প্রধানমন্ত্রী করতে হবে। নির্বাচন কেমন ভাবে করবো? বর্তমান নিয়মে না হলে, ৯১, ৯৬, ২০০১, চাইলে ২০০৮ এর মতো করবো। তবুও আওয়ামী লীগের অধীনে হবে না। তাদের অধীনে নির্বাচনে যাবো ঠেকা পরছে নাকি? আমরা এবার আন্দোলন কত প্রকার কি কি দেখিয়ে দেবো।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন- বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আতাউর রহমান ঢালী, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল প্রমুখ।

close