• শনিবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৭, ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৪
  • ||
  • আর্কাইভ

‌আমাকে গুগলের হঠাৎ কী প্রয়োজন পড়ল!

প্রকাশ:  ১৪ নভেম্বর ২০১৭, ১৩:৩৫ | আপডেট : ১৪ নভেম্বর ২০১৭, ১৩:৩৯
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট

হুমায়ূন আহমেদের জন্মদিনে সোমবার ডুডল প্রকাশ করে সার্চ ইঞ্জিন গুগল। এ নিয়ে হুমায়ূন ভক্তদের উচ্ছ্বাসের শেষ ছিল না। বিষয়টি নিয়ে এবার বিস্তারিত জানালেন প্রয়াত লেখকের স্ত্রী মেহের আফরোজ শাওন।

সোমবার গুগল ডুডলে দেখা যায়, বাগানে বই হাতে বসে আছেন হুমায়ূন আহমেদ। সামনের টেবিলে টি পট ও দুটি কাপ। পাশে একটি খালি চেয়ার। সে দিকেই এগিয়ে আসছে হলুদ পাঞ্জাবি পরা হিমু। আর চারপাশে প্রকৃতির আবহ দিয়ে সাজানো হয়েছে ইংরেজি গুগল লেখাটি।

এক ফেসবুক পোস্টে সোমবার রাতে রাতে শাওন লেখেন, ২০/২১ দিন আগে অভিনেত্রী তনিমা হামিদের ফোন। গুগল বাংলাদেশ থেকে নাকি আমার ফোন নম্বর চাওয়া হয়েছে, তিনি নম্বর দেবার অনুমতি চাইছেন। আমি অবাক হলাম। আমাকে গুগলের হঠাৎ কী প্রয়োজন পড়ল! জবাবে তনিমা যা বললেন, আমি তো অভিভূত। তাড়াতাড়ি গুগলকে আমার সাথে যোগাযোগ করতে বললাম।

পোস্টের এক অংশে তিনি লেখেন, গুগল বাংলাদেশের তরফ থেকে ফোন দিলেন হাশমী রাফসানজানি জানালেন, গুগল ডটকম ডট বিডি এ বছর পহেলা বৈশাখ, স্বাধীনতা দিবস ছাড়াও প্রথমবারের মতো বাংলাদেশের একজন লেখককে নিয়ে ডুডল করবে এবং এক্ষেত্রে তাদের একমাত্র পছন্দ হুমায়ূন আহমেদ। কিঞ্চিত অস্বস্তি নিয়ে তিনি জানতে চাইলেন এ বিষয়ে আমার কোনো আপত্তি আছে কিনা। আমি হেসেই ফেললাম। হুমায়ূনকে সম্মান জানানোতে আপত্তি! তাও কি সম্ভব!

শাওন লেখেন, তড়িঘড়ি করে অনুমতিপত্র আর অন্যান্য প্রয়োজনীয় কাগজে সই করে সুখবরটা সবাইকে দেবার জন্য যখন আমার মন আকুপাকু করছে, তখন শুনি মহা দুঃসংবাদ। এই খবর নাকি ১৩ নভেম্বর প্রথম প্রহর মানে রাত ১২.০১ মিনিটের আগে কাউকে জানানো যাবে না।

মন খারাপ করে ঘুরঘুর করি আমি। কাউকে না কাউকে তো বলতেই হবে খবরটা। দখিন হাওয়ার বারান্দায় বসে আমি আকাশের কালো মেঘগুলোকে জানাই, পাশের ছাদের রেলিংয়ে বসা কর্কশ স্বরে কা কা করা কাকটাকে জানাই, আমার বারান্দায় রাখা অযত্নে ফোটা অর্কিডের ফুলটাকে জানাই, নিষাদ-নিনিতের পোষা বিরক্ত মুখভঙ্গীর কচ্ছপ ভাতৃদ্বয় হাম্পটি-ডাম্পটিকে জানাই, আমি ফিসফিস করে আমার হুমায়ূনকে জানাই, আমি নিরব চিৎকারে পুরো বিশ্বকে জানাই, আমাদের এক কিংবদন্তি ছিলেন। আমাদের এক কিংবদন্তি আছেন। আমাদের হুমায়ূনকে কেউ ভালোবেসে সম্মান দিলে আমরা তাকে মাথায় তুলে রাখি। আমাদের হুমায়ূনকে কেউ বিকৃত করলে আমরা তাকে ছুড়ে ফেলি। আমরা হুমায়ূনকে ভালোবাসি, বড্ড ভালোবাসি।

close