• রবিবার, ২২ জুলাই ২০১৮, ৭ শ্রাবণ ১৪২৫
  • ||

আতিককে পরিচিত হতে বললেন প্রধানমন্ত্রী

নীরবতা নিয়েই দেখছে তাবিথ

প্রকাশ:  ৩১ ডিসেম্বর ২০১৭, ০১:০৩
পূর্বপশ্চিম ডেস্ক
প্রিন্ট

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পাওয়ার গুঞ্জনে শীর্ষে থাকা ব্যবসায়ী নেতা আতিকুল ইসলামকে ‘পরিচিত’ হতে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

গতকাল বিকালে গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ শেষে বেরিয়ে রপ্তানি পোশাক প্রস্তুতকারকদের সংগঠন বিজিএমইএ-এর সাবেক সভাপতি আতিকুল ইসলাম বলেন, ‘বিষয়টি ছিল সৌজন্য সাক্ষাৎ, তবে প্রধানমন্ত্রী আমাকে বলেছেন ‘পরিচিত হও’। এদিকে আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য প্রার্থী আতিক মাঠে মাঠে ঘুরে বেড়ালেও বিএনপির সম্ভাব্য প্রার্থী তাবিথ আউয়াল রয়েছেন নীরব। দলীয়ভাবে প্রার্থী ঘোষণা করা হলেই তিনি মাঠে নামবেন বলে জানা গেছে।

গতকাল বেলা ২টায় গণভবনে প্রবেশ করেন আতিকুল ইসলাম। বিকাল ৩টার পর প্রধানন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন তিনি। ১৫ মিনিট কথা বলেন তারা। গণভবন থেকে বের হওয়ার পর আতিকুল ইসলাম বলেন, আমি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করতে গিয়েছিলাম। সাক্ষাৎকালে ডিএনসিসির উপনির্বাচনে মেয়র পদে মনোনয়নের ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী তাকে কিছু বলেছেন কিনা, এমন প্রশ্নের জবাবে আতিক বলেন, ‘বিষয়টি ছিল সৌজন্য সাক্ষাৎ, তবে প্রধানমন্ত্রী আমাকে বলেছেন ‘পরিচিত হও’।

আমি উত্তরের আওয়ামী লীগের এমপি ও নেতাদের সঙ্গে পরিচিত হওয়ার পাশাপাশি প্রচারণা চালাচ্ছি, সেগুলো প্রধানমন্ত্রীকে জানিয়েছি। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ একটি বড় দল। এখানে মনোনয়নের একটি পদ্ধতি রয়েছে। নিয়ম রয়েছে। আমি কাজ করে যাচ্ছি। দল যদি মনোনয়ন দেয়, তাহলে আমি নির্বাচন করব।’ গণভবন থেকে বের হয়েই রাজধানীর উত্তরার ১৪ নম্বর সেক্টরে গণসংযোগ করেন আতিকুল ইসলাম।

আজও (রবিবার) তিনি নির্বাচনী প্রচারণায় নামবেন বলে জানা গেছে। এদিকে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন উপনির্বাচনে সম্ভাব্য বিএনপি প্রার্থী তাবিথ আউয়াল এখনো নির্বাচনী প্রচারণায় নামেননি। মিন্টুর পারিবারিক সূত্র জানিয়েছে, তারা এখনো পর্যবেক্ষণ করছেন। সরকার নির্বাচন করবে কিনা সে মনোভাব দেখেই মাঠে নামতে চায় তারা।

তবে ঢাকা উত্তরে বৃহত্তর নোয়াখালী অঞ্চলের ৩০ শতাংশ ভোটারের সঙ্গে নীরবে যোগাযোগ রক্ষা করছেন বিগত নির্বাচনে বিএনপির সমর্থিত প্রার্থী তাবিথ আউয়াল। নির্বাচনের নিশ্চয়তা এবং দলীয় প্রার্থী ঘোষণার পরই জোর প্রচারণায় তিনি নামবেন বলে জানা গেছে।

উল্লেখ্য, গত ৩০ নভেম্বর লন্ডনে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ডিএনসিসি মেয়র আনিসুল হক মারা যান। ৪ ডিসেম্বর মেয়রের পদ শূন্য ঘোষণা করা হয়। নির্বাচনী বিধি অনুযায়ী মেয়রের পদশূন্য হলে ৯০ দিনের মধ্যে আরেকটি নির্বাচন অনুষ্ঠানের বাধ্যবাধকতা রয়েছে। এর আগে ২০১৫ সালের ডিএনসিসি নির্বাচনে আনিসুল হক ৪ লাখ ৬০ হাজার ভোট পেয়ে মেয়র নির্বাচিত হয়েছিলেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির তাবিথ আউয়াল পেয়েছিলেন ৩ লাখ ২৫ হাজার ভোট।