• মঙ্গলবার, ১৮ ডিসেম্বর ২০১৮, ৪ পৌষ ১৪২৫
  • ||

পদ্মাসেতুতে কেউ উঠবেন না: খালেদা জিয়া

প্রকাশ:  ০২ জানুয়ারি ২০১৮, ২২:০৭ | আপডেট : ০২ জানুয়ারি ২০১৮, ২২:১৭
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট

আওয়ামী লীগ সরকার আমলে পদ্মাসেতু নির্মাণ হলে তাতে কাউকে না উঠার আহ্বান জানিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। তার দাবি, এই সেতু হবে ঝুঁকিপূর্ণ। ছাত্রদলের ৩৯ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে মঙ্গলবার বিকালে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে আয়োজিত সমাবেশে বিএনপি নেত্রী এ আহ্বান জানান।

খালেদা জিয়া বলেন, পদ্মা সেতুর স্বপ্ন দেখাচ্ছে সরকার। কিন্তু পদ্মা সেতু আওয়ামী লীগের আমলে হবে না। এ সেতু জোড়াতালি দিয়ে বানানো হচ্ছে। এ সেতুতে কেউ উঠবেন না। সমাবেশে সরকারের কঠোর সমালোচনার পাশাপাশি আগামী জাতীয় নির্বাচন নিয়েও কথা বলেন খালেদা জিয়া। বলেন, চেষ্টা করেও তাদেরকে বাদ দিয়ে নির্বাচন করা যাবে না।

এই সমাবেশ শুরু হওয়ার কথা ছিল দুপুর দুইটায়। তবে সুপ্রিম কোর্ট দিবসে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ সর্বোচ্চ আদালতে অবস্থান করায় সকাল থেকে মিলনায়তনের প্রধান ফটক তালাবদ্ধ করে রেখেছিল আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। রাষ্ট্রপতি সুপ্রিম কোর্ট ছাড়ার পর মিলনায়তন খুলে দেয়া হয়। আর এই ঘটনার নিন্দা জানান খালেদা জিয়া। সমাবেশের অনুমতি দিয়েও কেন এই কাজ করা হয়েছে তার ব্যাখ্যাও চান তিনি।

খালেদা জিয়া বলেন, শেখ হাসিনা মিথ্যাচার করছেন। সরকারি কর্মকর্তারাও মিথ্যা কথা বলছেন। তারা বলছেন যে (সমাবেশের) অনুমতি দেয়া হয়নি। এটা কেমন কথা? যদি অনুমতি না দেন তাহলে টাকা কেন নিলেন? আমাদের ছেলেপুলে কাল থেকে স্টেজ করল, সব কিছু করল কীভাবে?

অনেকদিন ধরে ছেলেরা আলোচনা সভার প্রস্তুতি নিয়েছে। অনুমতি দিয়েছে, ভাড়াও নিয়েছে। অথচ হঠাৎ করে হলরুমে তালা লাগিয়ে দিলো। এটা কেমন আচরণ?

২০১৪ সালের দশম সংসদ নির্বাচন বিএনপিকে ছাড়া হলেও আগামী জাতীয় নির্বাচনে সেটা সম্ভব হবে না বলেও জানিয়ে দেন খালেদা জিয়া। ‘২০১৮ সাল জনগণ, গণতন্ত্র এবং উন্নয়নের বছর হবে’ এমন মন্তব্য করে তিনি বলেন, ২০১৪ সালের মতো নির্বাচন আর হবে না। আমাদের লোকদেরকে ধরবেন আর ২০১৪ সালের মতো নির্বাচন করবেন... ২০১৪ সাল আর হওয়ার সুযোগ নেই। বিএনপি বড় রাজনৈতিক দল। তাকে বাদ দিয়ে কোনো নির্বাচন হবে না। সেই নির্বাচন গ্রহণযোগ্য হবে না।

আমরা নির্বাচন করবো, চাইলেও বাইরে রাখা যাবে না। তবে শেখ হাসিনার অধীনে কোনো নির্বাচন হবে না। নির্বাচন হতে হবে নিরপেক্ষ নির্দলীয়। বিএনপি নেত্রী বলেন, সংসদ ভেঙে দিয়ে নির্বাচন দিতে হবে। হাসিনার সংসদ বহাল রেখে এবং হাসিনার অধীনে কোনো নির্বাচন হবে না।

জনগণের ভোট কখনও আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসেনি দাবি করে খালেদা জিয়া বলেন, ‘কারও না কারও ওপর ভর করে তারা ক্ষমতায় এসেছে। এ জন্য তারা বিএনপিকে ভয় পায়। মানুষ বুঝে গেছে আওয়ামী লীগ আরও ক্ষমতায় থাকলে তারা আর বেঁচে থাকতে পারবে না। এ জন্য তারা চায় পরিবর্তন।

দশম সংসদ নির্বাচনে ভোটগ্রহণের তারিখ ৫ জানুয়ারি সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বিএনপিকে সমাবেশের অনুমতি না দেয়ারও সমালোচনা করেন খালেদা জিয়া। বলেন, আমরা অনুমতি চেয়েছি, কিন্তু সেখানে আরেক দলকে সমাবেশের অনুমতি দেয়া হয়েছে। আমাদেরকে অন্য কোনো দিন অন্য কোনো জায়গায় সমাবেশ করতে বলুক।

ধর্ষক প্রতিরোধক ইলেকট্রিক 'প্যান্টি'

/প্রান্ত

apps