• সোমবার, ২৮ মে ২০১৮, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫
  • ||

শাহনাজ রহমত উল্লাহ আর গান গাইবেননা

প্রকাশ:  ০৩ জানুয়ারি ২০১৮, ১৯:৪৪
পূর্বপশ্চিম ডেস্ক
প্রিন্ট
দেশের কিংবদন্তি সঙ্গীতশিল্পী শাহনাজ রহমত উল্লাহ। নিজস্ব গায়কী দিয়ে সমৃদ্ধ করেছেন সঙ্গীতাঙ্গন। গান গাওয়া ছেড়ে দিয়েছেন সাত বছর হল। তবুও গানের মাঝেই ভক্তরা খুঁজে বেড়ান তাকে।  শিল্পীর জন্মদিন  উদযাপন ও বর্তমান ব্যস্ততা নিয়ে একটি দৈনিক প্রত্রিকার সাথে তিনি এসব বলেন , 

* জন্মদিন উপলক্ষে বিশেষ আয়োজন রেখেছেন কী?

** দিনটি আমি সবসময় সাদামাটাভাবেই পালন করি। বিশেষ কোনো আয়োজন থাকে না। এবারও নেই। আজকের দিনে একটি এতিমখানায় এতিমদের খাওয়া দাওয়ার ব্যবস্থা করেছি।

* ছোটবেলায় জন্মদিন কীভাবে কাটত?

** ছোটবেলায় আম্মা পোলাও রান্না করতেন। আমরা সব ভাইবোন মিলে বেশ আনন্দ নিয়ে খাওয়া দাওয়া করতাম। সেই স্মৃতি আজ ভীষণ মনে পড়ে।

* দীর্ঘসময় সঙ্গীতাঙ্গন থেকে নিজেকে গুটিয়ে রেখেছেন। সময় কাটছে কীভাবে?

** প্রায় সাত বছরেরও বেশি সময় গান করি না। ঘরসংসার, আল্লাহর কাছে প্রার্থনা করেই সময় কাটে। এখন তো আসলে জীবনযাপন বদলে গেছে। সারক্ষণ মহান আল্লাহর ধ্যানেই মগ্ন থাকি, তার সন্তুষ্টি অর্জনেই চেষ্টা করি। সবার জন্য দোয়া করি যেন সবাই সুস্থ থাকেন, ভালো থাকেন। এর বাইরে আর কিছু নয়।

* যদি মনের মতো গীতিকবিতা, সুর আপনার জন্য করা হয় আর কি গাইবেন কখনও?

** যেহেতু সিদ্ধান্ত নিয়েছি আর কোনোদিনই গাইব না, সুতরাং আর কোনোদিনই গান গাইব না। আমি আমার সিদ্ধান্তেই অটল থাকতে চাই।

* তবে কি গান গাওয়াটাকে মিস করেন না?

** সেটি তো করি। কিন্তু সিদ্ধান্ত যেহেতু নিয়েছি, তার বদল হবে না।

* ভক্তরা কিন্তু আপনাকে অনেক মিস করেন...

** ভক্তদের জন্যই আজকের আমি। তাদের কষ্ট দিতে চাইনি। তবুও একটা সময় এসে সবকিছু থেকে নিজেকে আলাদা করতে হয়। অন্যদের জায়গা ছেড়ে দিতে হয়। নিজের জন্য সময় ব্যয় করতে হয়। সেটাই করছি এখন।

* আপনার গাওয়া দেশাত্মবোধক গানগুলো কিন্তু কালজয়ী হয়ে আছে। সেরকম গান এখন আর দেখা যায় না...

** আমি যখন গেয়েছি তখন হয়তো এগুলোর প্রয়োজন ছিল। এখনও আছে। তাই শ্রোতারা বাজাচ্ছেন, শুনছেন। তাছাড়া গানের প্রতি যে দরদ আমাদের সময় ছিল, সেটি হয়তো এখন আর নেই। তাই কালজয়ী গান সৃষ্টি হচ্ছে না। চেষ্টা করতে হবে। কেউ না কেউ পারবে। এটি বিশ্বাস করি।

* চলচ্চিত্রের গানেও আপনার সফলতা ঈর্ষণীয়...

** খুব বেশি গান গাইনি। যে ক’টি গেয়েছি সেগুলো প্রশংসিত হয়েছে, শ্রোতারা শুনছে। এর চেয়ে ভালোলাগার আর কী হতে পারে। এজন্য সবার কাছে আমি কৃতজ্ঞ।

* বর্তমান সঙ্গীত নিয়ে আপনার মন্তব্য কী?

** বিশেষ কিছু বলতে চাই না। যে যার মতো কাজ করছে। তবে এটুকু বলব, সবারই দায়িত্ব নিয়ে কাজ করা উচিত। ভালো কাজের গ্রহণযোগ্যতা আছে এবং থাকবে। শিল্পীসত্তা তৈরি হয় না, নিজের যোগ্যতা দিয়ে তৈরি করে নিতে হয়।


সূত্র: যুগান্তর