• সোমবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৯ আশ্বিন ১৪২৫
  • ||

যুক্তরাষ্ট্রে সিনেটর পদে লড়বেন কিশোরগঞ্জের চন্দন

প্রকাশ:  ০৯ মার্চ ২০১৮, ২১:৫৯ | আপডেট : ০৯ মার্চ ২০১৮, ২২:০৬
পূর্বপশ্চিম ডেস্ক
প্রিন্ট

যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্য জর্জিয়ার ডিসট্রিক্ট-৫ থেকে ডেমোক্র্যাটিক পার্টির মনোনয়ন নিয়ে সিনেটর পদে প্রার্থী হয়েছেন মূলধারার রাজনীতিবিদ বাংলাদেশি-আমেরিকান শেখ রহমান চন্দন। শেখ রহমান নির্বাচিত হলে তিনিই হবেন জর্জিয়া স্টেট সিনেট নামের এ রাজ্যের আইন প্রণয়নকারী প্রতিনিধি পরিষদের প্রথম বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত নাগরিক।

আগামী ২২ মে ওই আসনে গুইনেট কাউন্টির নরক্রস, লিলবার্ন ও লরেন্সভিল শহরের ভোটারদের অংশগ্রহণে সরাসরি এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। স্থানীয় সময় মঙ্গলবার রাজ্য সরকারের প্রশাসনিক ভবন ডাউন টাউনের জর্জিয়া স্টেট ক্যাপিটাল ভবনে প্রয়োজনীয় প্রক্রিয়া শেষে সিনেটর প্রার্থী হিসেবে ডেমোক্র্যাটিক পার্টির পক্ষে মনোনয়ন লাভের যোগ্যতা অর্জন করেন চন্দন।

প্রার্থীতা পদ নিশ্চিত হওয়ার পরপরই তিনি আনুষ্ঠানিকভাবে জর্জিয়ার সব মূলধারার ভোটারসহ বিভিন্ন দেশ থেকে আসা অভিবাসী বিশেষ করে এশিয়ান, ভারতীয় ও বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ভোটারদের কাছে ভোট প্রার্থনা করেন।

তিনি বাংলাদেশি আমেরিকান ভোটারদেরকে তাদের ই-মেইলের মাধ্যমে সাইন-আপসহ এবং তহবিলে অর্থ সাহায্য ও নির্বাচনী প্রচারণার স্বেচ্ছাসেবক দলে নাম অন্তর্ভুক্তির অনুরোধ জানান।

নির্বাচিত হলে স্বাস্থ্যখাতে মেডিকেইড কর্মসূচি বৃদ্ধির প্রতিশ্রুতিসহ হেলথ কেয়ার ইনস্যুরেন্সকে আরও গ্রহণযোগ্য করার জন্যে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের আশ্বাস দেন শেখ রহমান। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের উচ্চশিক্ষা লাভের জন্যে আরও অধিকহারে সুযোগ সৃষ্টির দিকে তিনি নজর দেবেন বলে জানান।

চন্দন তার ই-মেইল বার্তায় মূলধারার নাগরিকদেরকে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নির্বাচনের কথা স্মরণ করিয়ে বলেন, ডেমোক্র্যাটিক দলের ভোটাররা নির্বাচনী কেন্দ্রে ১০০ ভাগ একযোগে ভোট দিতে গেলে ট্রাম্পের জয়লাভ করা সম্ভব ছিল না।

শ্বেতাঙ্গ, কৃষ্ণাঙ্গ, খয়েরী সব ভেদাভেদ ভুলে নির্বাচনের দিন ভোট কেন্দ্রে উপস্থিত হওয়ার ব্যাপারে এখনই ক্যালেন্ডারের পাতায় দাগ কেটে রাখার অনুরোধ জানান এ প্রার্থী।

শেখ রহমান চন্দন গত বছর ডেমোক্র্যাটিক পার্টির সম্মেলনে জাতীয় কমিটিতে প্রথম বাংলাদেশি কার্যকরী সদস্য নির্বাচিত হন। মূলধারার রাজনীতিতে অনেকের কাছেই অনায়াসে গ্রহণযোগ্য নেতা হিসেবে আলোচিত ব্যক্তিতে পরিণত হন।

এর আগে ২০১২ সালে তিনি জর্জিয়া রাজ্যের সাধারণ প্রতিনিধি পরিষদের প্রতিনিধি প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে সর্বপ্রথম পত্র-পত্রিকা ও মিডিয়াতে শিরোনাম হন।

স্ত্রী, এক কন্যা ও এক পুত্র নিয়ে আটলান্টায় বসবাসকারী চন্দনের বাড়ি বাংলাদেশের কিশোরগঞ্জে