• রবিবার, ১৯ আগস্ট ২০১৮, ৪ ভাদ্র ১৪২৫
  • ||

চলে গেলেন সাহিত্যিক রমাপদ চৌধুরি

প্রকাশ:  ৩০ জুলাই ২০১৮, ০১:২৮
পূর্বপশ্চিম ডেস্ক
প্রিন্ট

বাংলা সাহিত্য জগতে পতন ঘটলো আরও এক নক্ষত্রের। মারা গেলেন বিশিষ্ট সাহিত্যিক রমাপদ চৌধুরি।

রোববার কলকাতার একটি বেসরকারি হাসপাতালে সন্ধে সাড়ে ছ’‌টা নাগাদ হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হয়ে তাঁর মৃত্যু হয়। গত ২১ জুলাই থেকে ওই হাসপাতালেই তিনি চিকিৎসাধীন ছিলেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৯৬ বছর।

সোমবার সকালে তাঁর শেষকৃত্য সম্পন্ন হবে। তিনি রেখে গেছেন স্ত্রী এবং দুই মেয়েকে। তাঁর প্রয়াণে গভীর শোক প্রকাশ পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। শোকাহত দেশ-বিদেশের সাহিত্যিক মহলও। অনেকেই তাঁর প্রয়াণে শোক প্রকাশ করেছেন।

রমাপদ চৌধুরির জন্ম ১৯২২ সালের ১৮ ডিসেম্বর রেল শহর খড়্গপুরে। সেখানেই কেটেছে শৈশব। সেখানেই স্কুলশিক্ষা। এরপর প্রেসিডেন্সি কলেজ থেকে ইংরেজিতে স্নাতক। শুরু হয় কর্মজীবন। দীর্ঘদিন যুক্ত ছিলেন আনন্দবাজার পত্রিকার সঙ্গে। লিখেছেন বহু উপন্যাস, গল্প, প্রবন্ধ। দেশের বিভিন্ন ভাষায় তাঁর উপন্যাস, গল্প, প্রবন্ধের অনুবাদ হয়েছে। তাঁর প্রথম উপন্যাস ‘‌প্রথম প্রহর’‌। অন্য উপন্যাসগুলির মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল ‘‌লালবাই’, ‘‌খারিজ’‌, ‘‌বাহিরি’‌, ‘‌বনপলাশির পদাবলী’‌, ‘‌বাড়ি বদলে যায়’‌, ‘‌ছাদ’‌, ‘‌শেষের সীমানা’‌, ‘‌আকাশপ্রদীপ’, ‘‌যে যেখানে দাঁড়িয়ে’‌, ‘‌পিকনিক’‌, ‘‌এখনই’‌‌, ‘‌দ্বীপের নাম টিয়ারঙ’‌, অভিমন্যু’‌, ‘‌বীজ’, ‘‌দরবারি’‌। শেষ লেখা আত্মজীবনীমূলক ‘‌হারানো খাতা’।

১৯৬৩–তে পান আনন্দ পুরস্কার। ১৯৮৮ সালে সাহিত্য একাডেমি পুরস্কার পান ‘‌বাড়ি বদলে যায়’‌ উপন্যাসের জন্য। ১৯৯৮–তে সাম্মানিক ডিলিট। ‘‌এখনই’‌ উপন্যাসের জন্য ১৯৭১ সালে রবীন্দ্র পুরস্কার। ২০১১ সালে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর মেমোরিয়াল ইন্টারন্যাশনাল প্রাইজ।

তাঁর বেশ কয়েকটি উপন্যাস নিয়ে সিনেমা হয়েছে। তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য উত্তমকুমার পরিচালিত ‘‌বনপলাশির পদাবলী’। এ ছাড়া ‘‌দ্বীপের নাম টিয়ারঙ’, ‘‌এখনই’‌‌, ‘‌পিকনিক’। ‘‌বীজ’‌ উপন্যাস অবলম্বনে মৃণাল সেন পরিচালনা করেন ‘‌একদিন আচানক’‌। ‘‌অভিমন্যু’‌ উপন্যাস অবলম্বনে ‘‌এক ডক্টর কি মওত’ ছবিটি তৈরি করেন পরিচালক তপন সিংহ‌।‌‌‌

-একে

মৃত্যু,রমাপদ চৌধুরি