• শনিবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮, ১ পৌষ ১৪২৫
  • ||

পাকিস্তানের ৬৯ শতাংশ মানুষ ইন্টারনেট সম্পর্কে অজ্ঞ

প্রকাশ:  ১৪ নভেম্বর ২০১৮, ১৫:২৩
তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক
প্রিন্ট

ইন্টারনেট এমন একটা প্রযুক্তি যা গোটা বিশ্বজুড়ে ব্যবহার হচ্ছে। ডাটবেজ-তথ্য উপাত্ত থেকে আরম্ভ করে সকল প্রকার প্রমাণাদি সংরক্ষণ করে রাখা যায় ইন্টারনেট। সেখানে সব কিছুর সাথে তাল মিলয়ে চলতে পারছেনা পাকিস্তান। বর্তমানে এ দেশের ৬৯ শতাংশ মানুষ ইন্টারনেট সম্পর্কে অজ্ঞ। তারা জানে না ইন্টারনেটের ব্যবহার কি।

তথ্যপ্রযুক্তি ভিত্তিক নির্ভরযোগ্য গবেষণা প্রতিষ্ঠান লার্ন এশিয়া একটি জরিপে এমন তথ্য উঠে আসে। দেশটিতে ১৫ থেকে ৬৫ বছর বয়সের মধ্যে ৬৯ শতাংশ লোক ইন্টারনেট সম্পর্কে একদমই অবগত নন বলে এ জরিপের বরাত দিয়ে স্থানীয় সংবাদমাধ্যম সোমবার (১২ নভেম্বর) প্রতিবেদনও প্রকাশ করেছে।

শ্রীলঙ্কান ওই গবেষণা প্রতিষ্ঠান বলছে, পাকিস্তানের দুই হাজার পরিবারের মধ্যে জরিপ চালানো হয়েছিল। তাতে এ তথ্য বের হয়েছে। লার্ন এশিয়া দাবি করছে, জাতীয় পর্যায়ে ১৫ থেকে ৬৫ বছর বয়সী ৯৮ শতাংশ লোককে নির্দিষ্ট করে নমুনা পদ্ধতি অনুযায়ী তাদের তথ্য নিয়ে এ জরিপ করা হয়েছে।

২০১৭ সালের অক্টোবর থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত পরিচালিত তিনমাসের এ জরিপ এটাও বুঝাতে সহায়তা করেছে যে- কীভাবে একজন ইন্টারনেট ব্যবহারকারী তথ্যপ্রযুক্তি পরিসেবা নিচ্ছেন। সেইসঙ্গে কারা এ সেবা নিচ্ছেন না বা কেনো নিচ্ছেন না, সেটাতো নিশ্চিত করেছেই।

লার্ন এশিয়ার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) হেলানি গালপায়া জানিয়েছেন, পাকিস্তান টেলিকমিউনিকেশন অথরিটির (পিটিএ) ওয়েবসাইটে ১৫২ মিলিয়ন সক্রিয় সেলুলার ফোন ব্যবহারকারীর তথ্য দেওয়া আছে। তাদের সিম রেজিস্ট্রেশনের ভালো পদ্ধতিও রয়েছে। তারপরও ব্যবহারকারীদের বিষয়ে কোনো তথ্য দিতে রাজি হয়নি প্রতিষ্ঠানটি। ব্যবহারকারীরা নারী না পুরুষ, ধনী না গরীব এসব তথ্য ছাড়াও জরিপে কোনো সহযোগিতাই করেনি তারা। এমনকি ইন্টারনেট ব্যবহারের বিষয়ে কোনো ফাঁক বোঝার সুযোগই দিতে চায়নি পিটিএ। তারপরও জরিপ হয়েছে ভালোভাবেই।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম বলছে, এ গবেষণা জরিপ ইঙ্গিত করছে, পাকিস্তানের মানুষের ইন্টারনেট ব্যবহারের সচেতনতার অভাব রয়েছে। এটা বড় সমস্যা। তবে এ গুরুত্বপূর্ণ সমস্যা শুধু পাকিস্তানেই নয়। এশিয়া দেশগুলোতেও এ সমস্যাটি কম-বেশি উল্লেখযোগ্য। তাছাড়া পাকিস্তানের মাত্র ৩০ শতাংশ মানুষ ইন্টারনেট সচেতন। বাকিদের জিজ্ঞেস করলে, তারা বলেন, ইন্টারনেট কী! এটা কীভাবে ব্যবহার করে, তার ব্যাখা দিতে।

যদিও ৬৯ শতাংশ ‘ইন্টারনেট অজ্ঞ’ মানুষ থেকে ১৭ শতাংশ বলেছিলেন যে, তারা ইন্টারনেট ব্যবহার করেছিলেন। কিন্তু এটা ব্যবহার করার মূল কারণ কি, কেনো ইন্টারনেট ব্যবহার করবেন, তা সম্পর্কে কিছু না জানায় তারা এ নেটওয়ার্ক থেকে দূরে সরে আসেন।

দেশটিতে বরাবরের মতো শহুরে মানুষের চেয়ে গ্রামের লোকজনই ইন্টারনেট কী সেটা জানেন না। আর এ সমীক্ষায় পাকিস্তানই এশিয়া দেশগুলোর মধ্যে সবার নিচে।

পাকিস্তানে ইন্টারনেট ব্যবহার করার ক্ষেত্রে পুরুষের চেয়ে ৪৩ শতাংশ পিছিয়ে আছেন নারীরা। দেশটিতে ১০০ জন পুরুষ ইন্টারনেট ব্যবহারে সচেতন থেকে থাকলে, সেখানে ৫৭ জন নারী ইন্টারনেট জানেন। যদিও পার্শ্ববর্তী দেশগুলোতে নারী ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা আরও কম।

ভারতে পুরুষের চেয়ে ৫৭ শতাংশ কম নারী ইন্টারনেট ব্যবহার করেন। আর বাংলাদেশে ৬২ শতাংশ কম। লার্ন এশিয়ার প্রধান নির্বাহী বলেন, পাকিস্তানে যারা মোবাইল ব্যবহার করে থাকেন, তাদের মধ্যে ৫৩ শতাংশ মানুষের ফোনে ইন্টারনেট ব্যবহার করার কোনো ব্যবস্থাই নেই। সাধারণ মোবাইল এসব।

এদিকে, পাকিস্তান টেলিকমিউনিকেশন অথরিটি এ প্রতিবেদনটি অস্বীকার করেছে। তারা প্রতিবেদনটির অন্য কোনো প্রতিক্রিয়া না দিয়ে বলেছে, দেশে ভালো টেলি-ঘনত্ব রয়েছে।

ওএফ

apps