• সোমবার, ২০ আগস্ট ২০১৮, ৫ ভাদ্র ১৪২৫
  • ||

সাংবাদিক, হকার এজেন্টের বিরুদ্ধে মামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন

প্রকাশ:  ১১ জুন ২০১৮, ১৫:৩১ | আপডেট : ১১ জুন ২০১৮, ১৫:৩৩
গফরগাঁও প্রতিনিধি
প্রিন্ট

ময়মনসিংহ জেলার গফরগাঁও উপজেলার সিনিয়র সাংবাদিক গফরগাঁও প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ও দৈনিক ইত্তেফাকের স্থানীয় সংবাদদাতা আতাউর রহমান মিন্টু, প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও দৈনিক যুগান্তরের প্রতিনিধি তফাজ্জল হোসেন সাংবাদিক, সংবাদপত্রের এজেন্ট রুকুন উদ্দিন সবুর ও পত্রিকার হকারদের বিরুদ্ধে জিআরপি পুলিশের দায়ের করা মামলাকে মিথ্যা আখ্যায়িত করে এর প্রতিবাদে মানববন্ধন করা হয়েছে।

ঘটনায় শনিবার (৯ জুন) থেকে পাঠকদের কাছে পত্রিকা বিতরণ বন্ধ রয়েছে।

মানববন্ধন চলাকালে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানিয়ে বক্তব্য দেন গফরগাঁও প্রেস ক্লাব সভাপতি আব্দুল্লাহ আল আমিন বিপ্লব, সাংবাদিক ফকির এ মতিন, উপাধ্যক্ষ শফিকুল কাদির, আজিম উদ্দিন মাস্টার, আতিক উল্লাহ, রোবেল মাহমুদ, নাজমুল হক বিপ্লব, আব্দুস সালাম সবুজ, শফিউল আলম মারুফ, এইচ কবির টিটো প্রমুখ।

আজ সোমবার সকাল ১১টায় গফরগাঁও প্রেস ক্লাবের সামনের সড়কে প্রায় ঘণ্টাব্যাপী অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে স্থানীয় সাংবাদিক, পত্রিকার হকার ও ব্যবসায়ীরা পৃথক ব্যানার নিয়ে অংশগ্রহণ করেন। এ সময় মানববন্ধনের সঙ্গে সংহতি জানিয়ে, শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ অংশগ্রহণ করেন।

সংবাদপত্র এজেন্ট ও পত্রিকা হকারদের অভিযোগ, গত বুধবার বিকালে তোফায়েল নামে এক জিআরপি পুলিশ রেলওয়ে বুকস্টলে এসে টাকা ছাড়া পত্রিকা নিতে চাইলে বুকস্টলের স্বত্বাধিকারী ও সংবাদ পত্রের এজেন্ট রুকন উদ্দিন সবুরের সাথে কথা কাটাকাটি ও হাতাহাতি হয়। এর জের ধরে জিআরপি পুলিশ রুকন উদ্দিন সবুরকে দোকান থেকে ধরে নিয়ে দুই দফা মারধর করে।

পরে উত্তেজিত সংবাদপত্র বিক্রেতা ও স্থানীয় লোকজন জিআরপি ফাঁড়ি ঘেরাও করে পুলিশ সদস্য রঞ্জু মিয়াকে মারধর করে। খবর পেয়ে স্থানীয় সাংবাদিকরা ঘটনাস্থলে সংবাদ সংগ্রহ করতে যান।

এ ঘটনা গফরগাঁও জিআরপি ফাঁড়ির ইনচার্জ এস আই শফিকুর রহমান বাদী হয়ে গফরগাঁও বুক স্টলের স্বত্বাধিকারী ও সংবাদপত্র এজেন্ট রুকুন উদ্দিন সবুর, গফরগাঁও প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ও দৈনিক ইত্তেফাকের স্থানীয় সংবাদদাতা আতাউর রহমান মিন্টু, প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও দৈনিক যুগান্তরের প্রতিনিধি তফাজ্জল হোসেনসহ ১৭জনের নাম উল্লেখ করে আরও অজ্ঞাত ১৫০জনের বিরুদ্ধে ময়মনসিংহ জিআরপি থানায় মামলা দায়ের করেন।

গফরগাঁওয়ের সংবাদপত্র এজেন্ট রুকন উদ্দিন সবুর বলেন, গত বুধবার বিকালে পুলিশ কনস্টেবল তোফায়েল আমার দোকানে গিয়ে হুমকি দিয়ে বলেছেন, ‘রেলওয়ে স্টেশনে ব্যবসা করতে হলে ফাঁড়িতে ‘ফ্রি’ পত্রিকা দিতে হবে। আমি রাজি না হওয়ায় তিনি আমাকে দোকানেই মারধর করেন।

পরে ফাঁড়িতে তুলে নিয়ে গিয়ে আবারও মারধর করে। পরে আমাকে মারধরের খবর পেয়ে উত্তেজিত স্থানীয় জনতা ও কয়েকজন সংবাদপত্র বিক্রেতা রঞ্জু মিয়া নামে এক পুলিশ সদস্যকে মারদর করেছে। পুলিশ স্থানীয় সাংবাদিকসহ আমাকে ও সংবাদপত্র হকারদের আসামি করে মামলা দায়ের করায় গফরগাঁওয়ে পত্রিকা বিক্রি বন্ধ রয়েছে।

ময়মনসিংহ রেলওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল মান্নান ফরাজী বলেন, সংবাদপত্রের এজেন্টকে মারধর করার অভিযোগটির তদন্ত চলছে।