Most important heading here

Less important heading here

Some additional information here

Emphasized text
  • শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০১৯, ৭ বৈশাখ ১৪২৬
  • ||

বর্ণিল আলোকচ্ছটায় মালয়েশিয়ায় পালিত হলো ইংরেজী নববর্ষ

প্রকাশ:  ০১ জানুয়ারি ২০১৯, ০৯:১৮
আহমাদুল কবির, মালয়েশিয়া
প্রিন্ট icon

জমকালো আতশবাজির প্রদর্শনীর মধ্যদিয়ে নতুন বছর ২০১৯ বরণ করলো বহুজাতিক মালয়েশিয়ানরা। মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী তুন ড. মাহাথির মোহাম্মদ ইংরেজি নববর্ষ-২০১৯ উপলক্ষে দেশবাসীসহ সবাইকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন।

'বিগত বছরের সুখ-দুঃখ, আনন্দ-বেদনা পেছনে ফেলে নতুন বছরে অমিত সম্ভাবনার পথে মালয়েশিয়া এগিয়ে যাক'- এ প্রত্যাশায় মাহাথির বলেন, নববর্ষ সকলের মাঝে জাগায় প্রাণের নতুন স্পন্দন, নতুন আশা, নতুন সম্ভাবনা।

সম্ভাবনার নতুন দিগন্তে উন্মোচিত এই জমকালো আতশবাজির খেলা উপভোগ করতে এবং নতুন বছরকে স্বাগত জানাতে পর্যটন নগরী রাজধানী কুয়ায়ালালামপুরের টুইন টাওয়ার সংলগ্ন মাঠে নেমেছিল হাজারো মানুষের ঢল। মালয়েশিয়ানদের পাশাপাশি বাংলাদেশি প্রবাসীরাও উপস্থিত ছিলেন এ মাঠে।

‘সিটি অব কালার’ স্লোগান সংবলিত ফেস্টুন আর ব্যানার দিয়ে সাজানো হয়েছিল কুয়ালালামপুর শহরের বিভিন্ন এলাকাকে। আতশবাজির দৃশ্য ধারণের জন্য বিভিন্ন টেলিভিশনের ক্যামেরা পারসনরা অবস্থান নেন সুউচ্চ দালানগুলোর ছাদে। হেলিকপ্টার টহলে ছিল কুয়ালালামপুরের রাতের আকাশ।

মালয়েশিয়ার অনান্য অঞ্চলসহ পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ থেকে আসা প্রায় ৭ লাখ লোকের জমায়েত এক অভূতপূর্ব আবহ তৈরি করে এই বর্ষবরণ অনুষ্ঠান।

পনের মিনিট স্থায়ী আতশবাজির জন্য গত কয়েকদিন ধরেই প্রস্তুতি চলছিল। লাখো মানুষের উপস্থিতিতে ১২টা বাজার ১০ সেকেন্ড আগে থেকে ‘কাউন্ট ডাউন’ শুরু হয়। ঠিক ১২টা ১ সেকেন্ডে আতশবাজির ঝলকানিতে মুখরিত হয়ে ওঠে টুইন টাওয়ার প্রাঙ্গণ ও মারদেকা মাঠ। ক্ল্যাং ভ্যালির বিভিন্ন স্থানেও আরও আতশবাজি প্রদর্শন অনুষ্ঠিত হয়।

এ ছাড়া ন্যাশনাল ইউনিয়ন অব মালয়েশিয়ান মুসলিম ছাত্রদের সংগঠিত একটি দল নববর্ষের অনুষ্ঠানে অংশ নেয়। কেএল সিসিটে নববর্ষেও অনুষ্ঠান শুরুর এক ঘন্টা আগে উপ-প্রধানমন্ত্রী দাতুক সেরি ডা: ওয়ান আজিজা ওয়ান ইসমাইল সেখানে উপস্থিত হন।

এ ছাড়া মালয়েশিয়ার যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী সৈয়দ সাদিক সৈয়দ আবদুল রহমান ও উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে সংক্ষিপ্ত বক্তৃতায় ডা: ওয়ান আজিজাহ নতুন বছরের শুভ কামনা করেন এবং সকলকে (১লা জানুয়ারি) থেকে উম্মুক্তস্থানে ধুমপান না করতে সরকার যে রায় করেছে সেটা মেনে চলতে স্মরণ করিয়ে দেন তিনি।

যেকোন নাশকতা ঠেকাতে গোটা কুয়ালালামপুর, টুইন টাওয়ার এবং মারদেকা মাঠ সংলগ্ন এলাকায় ছিল বিপুল সংখ্যক পুলিশি টহল। শহরে প্রবেশ করা বাস ও ট্রেনগুলোকে সার্বক্ষণিক নজরদারিতে রাখা হয়। মধ্যরাতে জমকালো আতশবাজির মাধ্যমে মালয়ানদের পাশাপাশি হাজারো প্রবাসী নতুন বছরকে বরণ করে নেন।

এদিকে মালয়েশিয়ায় নিযুক্ত হাইকমিশনার মহ.শহীদুল ইসলাম দেশটিতে বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশিদের ইংরেজি নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। পাশাপাশি মালয়েশিয়ার নতুন আইন অনুযায়ী সকল রেস্টুরেন্ট ও বাসষ্ট্যান্ড এবং উম্মুক্ত স্থানে ধুমপান সম্পুর্ণ নিষিদ্ধ করেছে। আইন অনুযায়ি দন্ডনীয় অপরাধ। সতর্কতা অবলম্বন করে ও আইনকে সম্মান করে প্রবাসে দেশের ভাবমূর্তী বজায় রেখে নিরাপদে চলাফেরার আহবান জানান হাইকমিশনার।

পিবিডি/পি.এস

মালয়েশিয়া,বর্ণিল আলোকচ্ছটা,নববর্ষ
apps
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত