Most important heading here

Less important heading here

Some additional information here

Emphasized text
  • বুধবার, ২০ মার্চ ২০১৯, ৬ চৈত্র ১৪২৫
  • ||

আমাজনকে নিউইয়র্কেই সদর দপ্তর নির্মাণের আহবান

প্রকাশ:  ০৯ মার্চ ২০১৯, ২০:৩০
পূর্বপশ্চিম ডেস্ক
প্রিন্ট icon

নিউইয়র্ক থেকেই যাত্রা শুরু করেছেল বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ প্রযুক্তি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান আমাজন। তাই নিউইয়র্কেই প্রতিষ্ঠানটির সদর দপ্তর নির্মাণের আহবার জানিয়েছেন গভর্নর অ্যান্ড্রু কুমোসহ ব্যবসায়ী নেতা ও অঙ্গরাজ্যের কর্মকর্তারা। তার আমাজনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) জেফ বেজোসের কাছে ব্যক্তিগতভাবে এ অনুরোধ জানিয়েছেন। এর আগে গত সপ্তাহে ৭০ জন স্বাক্ষরিত একটি খোলা চিঠি দিয়ে গণমাধ্যমে বিজ্ঞাপন দেওয়া হয়েছে । খোলা চিঠিতে স্বাক্ষর করে নিউইয়র্ক টাইমস পত্রিকায় এক পাতার বিজ্ঞাপন দিয়েছেন তাঁরা।

ওই চিঠিতে নিউইয়র্কের ৭০ প্রভাবশালী ব্যক্তি স্বাক্ষর করেন, যার মধ্যে কংগ্রেসম্যান গ্রেগরি মিকসও আছেন। কংগ্রেসম্যান গ্রেগরি মিকস বলেন, ‘আমি জানি, প্রস্তাব দেওয়ার কারণেই আমাজন নিউইয়র্কে আসতে চেয়েছিল। অদ্ভুত ব্যাপার এই, আমরা তাদের তাড়িয়ে দিয়েছি। আমরাই আবার আসার জন্য অনুরোধ করছি। এখনো আমাজনকে ফিরিয়ে আনার ব্যাপারে ৫০/৫০ সুযোগ রয়েছে।’

নিউইয়র্ক নগরের একটি নামীদামি ব্যবসায়ী গ্রুপ বিজ্ঞাপন আকারে খোলা চিঠি প্রকাশের জন্য অর্থ সরবরাহ করেছে বলে জানা গেছে। এর ফলে এটি পরিষ্কার যে, ব্যবসায়ীরা আমাজনের সঙ্গে অংশীদারত্বের জন্য কতটা উন্মুখ হয়ে আছে। মিকস বলেন, তারা আমাজনের প্রকল্পটি ফিরে পেতে ইচ্ছুক। কংগ্রেসম্যান গ্রেগরি মিকস আবারও মনে করিয়ে দেন, আমাজন নিউইয়র্কে আসলে কী কী সুযোগ তৈরি হবে।

অ্যাম্পায়ার স্টেট ডেভেলপমেন্টের মতে, ২৫ হাজার মানুষের জন্য নতুন চাকরির সুযোগ সৃষ্টি হবে। বছরে ২ হাজার ৮০০ কোটি মার্কিন ডলারের রাজস্ব পাবে নিউইয়র্ক নগর। কংগ্রেসম্যান গ্রেগরি মিকস আরও বলেন, জনগণের আয়কে বৈচিত্র্যময় করে তুলতে কারিগরি শিল্পের কথা ভাবা হচ্ছে। গুগল, ইয়াহু বা হতে পারে ফেসবুক যারা কেবল আর্থিক প্রতিষ্ঠানের ওপর নির্ভর করে না ।

নিউইয়র্ক নগর কর্তৃপক্ষ আমাজনকে প্রায় ৩০০ কোটি ডলারের অর্থনৈতিক সাহায্যের প্রণোদনা দিয়েছিল। বিষয়টি নিয়ে কংগ্রেসম্যান আলেকজান্দ্রিয়া ওকাসিও-করটেজসহ অন্যরা আমাজনের সঙ্গে চুক্তির বিরোধিতা করেছিলেন।

চুক্তির বিষয়টি খণ্ডন করেকংগ্রেসম্যান গ্রেগরি মিকস বলেন, সরকার আমাজনকে কোনো চেক লিখে দিচ্ছে না। এটি হবে জনসাধারণের ব্যক্তিগত অংশীদারত্বের বিনিয়োগ, যা থেকে বছরে আয় হবে দ্বিগুণেরও বেশি। ৩০০ কোটি ডলার বিনিয়োগে ফেরত আসবে ৩ হাজার কোটি ডলারের কাছাকাছি। এটি হবে একটি একটি ‘পাবলিক-প্রাইভেট পার্টনারশিপ’-এর (সরকারি-বেসরকারি অংশীদারত্ব) বিনিয়োগ।

খোলা চিঠিতে স্বাক্ষর করেছেন নিউইয়র্ক অঙ্গরাজ্যের সিনেটর লেরয় কম্রি । লেরয় কম্রি জনসাধারণের আবাসনের বিষয়ে নেতিবাচক প্রভাবকে বড় করে দেখেছিলেন। তিনিও এবার কুইন্সে চাকরির বাজারকে গুরুত্ব দিয়ে দেখছেন।

স্বল্প আয়ের বাসিন্দাদের বাসা ভাড়ার বিষয়টি নিয়ে কংগ্রেসম্যান গ্রেগরি মিকস যুক্তি দেন, পাবলিক হাউজিং ভাড়া বাড়বে না। কারণ পাবলিক হাউজিং ভাড়া সিটি কর্তৃক নিয়ন্ত্রিত হয়। মানুষ আমাজন সদর দপ্তরের কাজের সুযোগ উপভোগ করতে পারবে।

মিকস বলেন, যদি আমাজন পুনর্বিবেচনা করে ফিরে আসে তবে একটি চুক্তি মাধ্যমে আশপাশের স্কুলের উন্নতির জন্য কাজ করা হবে। বৈষম্য কমাতে, মানুষকে আরও বেশি সচ্ছল করতে আমাজনের সুযোগকে কাজে লাগাতে হবে। গভর্নর, মেয়রসহ নিউইয়র্কের প্রভাবশালী বাসিন্দারা এখনো তৎপরতা চালাচ্ছেন। তাদের প্রত্যাশা, আমাজন তাদের মত পরিবর্তন করে নিউইয়র্কে তাদের স্থাপনা নিয়ে আসবে।

অবশ্য আমাজনের পক্ষ থেকে এ নিয়ে এখনো কোনো সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়নি।

এনই

আমাজন
apps
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত