Most important heading here

Less important heading here

Some additional information here

Emphasized text
  • বৃহস্পতিবার, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ৯ ফাল্গুন ১৪২৫
  • ||

মালয়েশিয়ায় জিয়াউর রহমানের ৮৩তম জন্মবার্ষিকী পালিত

প্রকাশ:  ২০ জানুয়ারি ২০১৯, ১৭:৩৫
আহমাদুল কবির, মালযেশিয়া
প্রিন্ট icon

সাবেক রাষ্ট্রপতি শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের ৮৩তম জন্মবার্ষিকী পালন করেছে মালয়েশিয়া বুকিত বিনতাং শাখা বিএনপি।

শনিবার রাত ৮টায় কুয়ালালামপুরের হোটেল মেট্রোতে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়।

আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদের প্রবক্তা ও বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রতিষ্ঠাতা হিসেবে সমাদৃত। একজন সৈনিক হিসেবে কর্মজীবন শুরু করলেও প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের জীবনের বিশেষ বৈশিষ্ট্য হচ্ছে দেশের সঙ্কটে ত্রাণকর্তা হিসেবে তিনি বারবার দেশকে সঙ্কট থেকে মুক্ত করেছেন। তিনি স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়েছেন আবার অস্ত্র হাতে যুদ্ধ করেছেন। যুদ্ধ শেষে আবার পেশাদার সৈনিক জীবনে ফিরে গেছেন। শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান সময়ের প্রয়োজনেই চার দশক আগে প্রতিষ্ঠা করেছিলেন বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি)। তার গড়া সেই রাজনৈতিক দল তার সহধর্মিণী সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে নানা চড়াই উতরাই পেরিয়ে আজ দেশের অন্যতম বৃহৎ রাজনৈতিক দল হিসেবে স্বীকৃত।

তারা বলেন, অসাধারণ দেশপ্রেমিক, অসম সাহসিকতা, সততা-নিষ্ঠা ও সহজ-সরল ব্যক্তিত্বের প্রতীক প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের অবদান অসামান্য। ১৯৬৫ সালে পাক-ভারত যুদ্ধে খেমকারান সেক্টরে অসীম সাহসিকতার সাথে তিনি যুদ্ধ করেন। বাংলাদেশ ও বাংলাদেশীদের বিশ্ব মানচিত্রে তিনি ব্যাপকভাবে পরিচিত করিয়েছেন স্বাতন্ত্র্য বৈশিষ্ট্যে। জাতির মর্যাদাকেও বিশ্বব্যাপী প্রশংসিত করেছেন তার শাসনামলে। এই জনপ্রিয়তাই তার জন্য কাল হয়েছে। তার এই জনপ্রিয়তা কোনোভাবেই সহ্য করতে পারেনি দেশি-বিদেশি চক্রান্তকারীরা।

বক্তারা বলেন, বেগম জিয়া সত্য ও ন্যায়ের প্রতীক, গণতন্ত্রের প্রতীক। সুপরিকল্পিতভাবে তাকে সাজা দিয়ে বন্দি করে রেখেছে সরকার। বেগম জিয়ার মামলায় জামিন নিয়ে টালবাহানা করছে সরকার।

বক্তারা আরও বলেন, ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনে মহাভোট ডাকাতির পর গণতন্ত্রকে চূড়ান্তভাবে শিকল পরানো হয়েছে। বিরোধী দলগুলোর ওপর সর্বপ্রকার রাষ্ট্রীয় নৃশংস সন্ত্রাস চালিয়ে এবং সব ধরনের নোংরা কৌশল অবলম্বন করে জনগণের ভোটাধিকার ছিনতাই করেছে। মানুষের বিশুদ্ধ নিশ্বাস নেয়ার জন্য গণতন্ত্রের মুক্ত বাতাস প্রবাহিত করতে হবে। বেগম খালেদা জিয়াকে কারামুক্ত করার মধ্য দিয়েই গণতন্ত্রের বিজয় নিশ্চিত হবে।

বুকিত বিনতাং বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন সেলিমের সভাপতিত্বে ও আবু কাওসারের অনুষ্ঠান পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন বিএনপির কেন্ত্রীয় কমিটির সদস্য ও মালয়েশিয়া বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ মোশাররাফ হোসেন, মালয়েশিয়া বিএনপির সিনিয়র সহসভাপতি ও কেন্দ্রীয় সেচ্ছাসেবক দলের সহ সভাপতি মাহবুব আলম শাহ, প্রচার সম্পাদক এস এম বশির আলম, সেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি মোহাম্মদ হাবিবুর রহমান রতন তালুকদার, যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক আহমেদ হোসেন সাগর প্রমুখ।

আলোচনা সভা শেষে জিয়াউর রহমানের রুহের মাগফিরাত কামনা করা হয়। সেই সঙ্গে তাঁর সহধর্মিণী সাবেক প্রধানমন্ত্রী বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া, বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ দলের সকল নেতাকর্মীদের সুস্বাস্থ্য কামনায় মোনাজাত করা হয়।

/পিবিডি/একে

বিএনপি
apps
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত