• সোমবার, ২২ জুলাই ২০২৪, ৭ শ্রাবণ ১৪৩১
  • ||

প্রেমিকের মা-বাবাকে ‘আয়ত্বে’ আনার ১০ উপায়

প্রকাশ:  ০৪ জুলাই ২০২৩, ২১:২৫
নাদীমুল হোসেন নিলয়

দীর্ঘদিনের প্রেমের পর বিয়ের কথা ভাবছেন? তাহলে এবার বয়ফ্রেন্ডের মা-বাবার সাথে দেখা করে ফেলুন। তাদের ইমপ্রেস করতে পারলেই কাজ অনেকটা এগিয়ে যাবে। প্রথমেই তাদের বুঝাতে হবে যে, তাদের সন্তান আপনার কাছে নিরাপদ। তবে একটি দীর্ঘমায়াদী সম্পর্কের জন্য আরও অনেক কিছুই করতে হবে আপনাকে। এর ফলে আপনার হবু শশুর-শাশুড়ি আপনাকে আর না বলতে পারবেন না।

নিজেকে প্রস্তুত করুন

প্রস্তুতি না নিয়ে সঙ্গীর মা-বাবার সাথে দেখা করবেন না। আগে নিজেকে মানসিকভাবে প্রস্তুত করুন। সঙ্গীর পিতা-মাতার ব্যাপারে জেনে নিন। যদি তাদের বিবাহবিচ্ছেদ হয়ে থাকে তাহলে কথা বলায় সচেতন হন। যদি কেউ একজন প্রয়াত হযে থাকেন সেভাবে পদক্ষেপ নিন। তাদের সম্পর্কে জেনে দেখা করুন।

সঠিক পোশাক নির্বাচন করুন

যে পোশাক পরা আপনি আপনার বয়ফ্রেন্ডের সাথে ক্যান্ডেল লাইট ডিনারে যাবেন, নিশ্চয়ই তা পরে তার মা-বাবার কাছে যাবেন না। তার মানে এই না যে, আপনাকে সন্ন্যাসিনী সেজে যেতে হবে। এ ক্ষেত্রে, খুব চটকদার পোশাক বেছে নিবেন না। আবার, লেগিংস এবং ছেঁড়া-ফাটা জিনসও পরবেন না। এমন পোশাক বাছাই করুন যা একটি মার্জিত লুক এনে দিবে। আপনাকে পরিপাটি দেখাবে।

শিষ্টাচার

কিছু মৌলিক আচার-আচরণ রয়েছে যা জেনে নেওয়া ভাল। প্রথমে সংবর্ধনা জানান। কথা বলুন নরম স্বরে। তাদের ধন্যবাদ জানান। আপনার আচার-ব্যবহার, আপনার বেড়ে ওঠাকে প্রতিফলিত করে। তাদের প্রতি ভাল আচরণ করুন। এতে তারা মুগ্ধ হবেন।

সাহায্য করুন

খাবার পরিবেশন করার সময় আপনার সঙ্গীর মা-বাবাকে সাহায্য করুন। খাবার বেড়ে দিন। পানির গ্লাসটি পূরণ করুন। কিছুটা সাহায্য করলেই সম্ভাব্য পুত্রবধূ হওয়ার সুযোগ বেড়ে যাবে।

উপহার

খালি হাতে কোথাও না যাওয়াটা এক ধরনের ভদ্রতা। চেষ্টা করুন তাদের জন্য উপহার নিয়ে যেতে। আপনার সঙ্গীর থেকে জেনে নিন তার মা-বাবার পছন্দের জিনিস ব্যাপারে জেনে নিন। এরপর সে অনুযায়ী উপহার কিনে দিন। এতে তারা খুশি হয়ে যাবেন।

হাসি মুখ বজায় রাখুন

মুখে হাসি বজায় রাখুন। বিরক্তির ভাব মুখে না থাকাই ভাল। হাসি একটি উষ্ণ শক্তি। মনস্তাত্ত্বিকভাবে, যারা হাসে তাদের বন্ধুত্বপূর্ণ আড্ডায় জড়িত হতে দেখা যায়। তাই হেসে ভদ্রতার সাথে প্রতিটি কথার উত্তর দিন।

খুব সিরিয়াস হবেন না

স্পর্শকাতর বিষয়গুলি নিয়ে মতামত থাকলেও এড়িয়ে যান। তাদের কথা শুনুন। যেকোনো আলাপ নিয়ে সিরিয়াস হওয়ার সময় এটি নয়। সাধারণত ধর্ম বা রাজনীতির বিষয়গুলি এড়িয়ে চলার চেষ্টা করুন।

প্রশ্ন করুন

সঙ্গীর মা-বাবাকে প্রশ্ন করুন। তাদের ব্যাপারে জানতে চান। অনেকেই নিজের সম্পর্কে কথা বলে যায়। এটি করবেন না। তাদের পছন্দ-অপছন্দ জানতে চান। এতে মনে হবে যে, আপনি আপনার সঙ্গীর পিতা-মাতারও যত্ন নিচ্ছেন।

নিজেকে উপস্থাপন করুন

নিজেকে সৎ ভাবে উপস্থাপন করুন। যেকোনো প্রশ্নে হ্যাঁ অথবা না দেওয়ার পরিবর্তে, একটি চিন্তাশীল উত্তর দিন। কথা বলার সময় নিজের প্রশংসা করে যাবেন না। কোনো রকমের বড়াই করবেন না। এতে করে তারা আপনাকে বিশ্বাস করবে।

প্রকাশ্যে স্নেহশীল হবেন না

ভালবাসা প্রকাশে কোনো ভুল নেই। কিন্তু দয়া করে তা সঙ্গীর মা-বাবার সামনে দেখাবেন না। তাদের সামনে সঙ্গীর হাত ধরে থাকবেন না। সঙ্গীর দিকে ঝুঁকে থাকবেন না। এগুলো পরিবারের সদস্যদের বিব্রতকর পরিস্থিতিতে ফেলবে।

প্রেমিক,প্রেমিকা,প্রেম,বিয়ে
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close