Most important heading here

Less important heading here

Some additional information here

Emphasized text
  • বুধবার, ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ৮ ফাল্গুন ১৪২৫
  • ||
শিরোনাম

কেমন হবে ঈদের সাজ

প্রকাশ:  ১১ জুন ২০১৮, ০৫:২৯ | আপডেট : ১১ জুন ২০১৮, ০৬:৪২
লাইফস্টাইল ডেস্ক
প্রিন্ট icon

ঈদ এসে গেছে। কেনাকাটাও এখন প্রায় শেষ পর্যায়ে। এখন ঈদের দিনটি ঘিরে চলছে নানা পরিকল্পনা। ঈদের সাজে নিজেকে কিভাবে সাজাবেন এ নিয়ে ভাবছেন অনেকেই। ঈদে আনন্দের পাশাপাশি থাকে নানা কাজের চাপ। এই উৎসব আনন্দে হাজারটা কাজের মাঝেও নিজেকে একটু পরিপাটি আর আকর্ষণীয় করে সাজিয়ে রাখতে মন সবারই চায়। আপনার চিন্তা অনেক সহজ হয়ে যাকে যদি আগেই ঈদের দিনের সাজটাকে তিন ভাগে ভাগ করে নিতে পারেন। সেই অনুযায়ী পরিকল্পনা করুন সকাল, দুপুর ও রাতের সাজ এবং পোশাক কী হবে।

ঈদ মানেই উৎসব আর আনন্দ। এই উৎসব আনন্দের মাঝেই থাকে হাজারটা কাজের ঝামেলা। ঈদের নানা ঝক্কি ঝামেলার মাঝেও নিজেকে একটু সুন্দর, পরিপাটি আর আকর্ষণীয় করে সাজিয়ে রাখতে চায় সবাই। নিজেকে অন্যদের চোখে আলাদাভাবে উপস্থাপন করতে সবারই ইচ্ছে করে। আর ঈদের আনন্দের পূর্ণতা পায় নতুন জামা-কাপড় সঙ্গে মানানসই সাজে আর্কষনীয় রাখার মধ্যে দিয়ে।

পোশাকের সঙ্গে মানানসই সাজ ঈদের দিন একটু আরামদায়ক পোশাক পরিধান করাই ভালো। এক্ষেত্রে হালকা সুতি হলে বেশি ভালো হয়। শাড়ি, সালোয়ার কামিজ, ফতুয়া, জিন্স যেটাই হোক তার সঙ্গে ম্যাচিং করে পরা যায় দুটি চুড়ি, পায়ে দুই ফিতার চটি। সবার মধ্যেই খুশিখুশি ভাবটা থাকে তাই সাজগোজের ব্যাপারটিও এ সময় বেশি প্রাধান্য পায়। তবে এ দিন শিফন, জর্জেট, সুতি, ঢাকাই জামদানি, মসলিন, টাঙ্গাইলের জামদানি কাপড়গুলোও পরতে পারেন। কারণ এ গুলো হালকা হওয়ায় খুব আরামদায়ক হবে। ঈদে কেউ কেউ শাড়ি পড়লেও অনেকেই বেছে নেন কামিজ-সালোয়ার। তবে যে পোশাকই হোক না কেন, নিজের আকর্ষণীয় এবং ভিন্নভাবে উপস্থাপনের জন্য মানানসই সাজের বিকল্প নেই। এক্ষেত্রে পারফেক্ট আই মেকআপ আপনার সৌন্দর্য ও ব্যক্তিত্বে যোগ করতে পারে ভিন্নমাত্রা। পোশাকের সঙ্গে চোখের মেকআপের সামঞ্জস্য না হলে পুরো সাজটাই হবে বেমানান। পোশাকের সঙ্গে চুলের বিন্যাস এবং নানা স্টাইলে চুল বাঁধার বিষয়টি যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ।

সকালের সাজ সকালে একটু-আধটু কাজের চাপ থাকে, তাই চলাফেরা করতে সহজ হয় এমন কোনো পোশাক বেছে নিন। সকালের আবহাওয়ার সাঙ্গে মানানসই কোন হালকা কালারের পোশাক পরতে পারেন।মেকাপের শুরুতে অবশ্যই ত্বক পরিষ্কার করে নিতে হবে। এরপর টোনার ও ময়েশ্চারাইজার লাগিয়ে স্কিন টোনের সঙ্গে মিলিয়ে ফাউন্ডেশন দিয়ে পাউডার ভালোভাবে লাগিয়ে নিন। সকাল বেলায় ভারি মেকাপ না নেওয়ায় ভালো। এসময় চোখে কাজল পরতে চাইলে কালো না পরে ব্রাউন কালার বেছে নিতে পারেন ।এছাড়া সালোয়ার-কামিজের সঙ্গে কেমন সাজ নেবেন এ প্রসঙ্গে বিউটি এক্সপার্ট শারমিন আখতার বলেন, সকালে সুতির সালোয়ার-কামিজের সঙ্গে সাজটা একেবারে শুভ্র ও ন্যাচারাল হবে। চোখে কাজল এবং ঠোঁটে ন্যাচারাল কালারের লিপিস্টিক লাগিয়ে নিলে চেহারায় সকালের শুভ্রতার একটা প্রতিচ্ছবি ফুটে উঠবে। চুলটা এ সময় বাঁধা থাকবে।

দুপুরের সাজ ঈদের দিন দুপুরে বাড়িতেই থাকার চেষ্টা করুন। দুপুরে হালকারঙ এর পোশাক বেছে নিন। আর সাজের ক্ষেত্রে ফাউন্ডেশনের সঙ্গে পাউডার মেখে হালকা করে ব্লাশন বুলিয়ে নিন দুই গালে। আর দিতে পারেন লিপগ্লোস। চোখের সাজে ভিন্নতা আনতে স্যাডো আর আইলাইনার দিন। পোশাকের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে কানে আর গলায় ছোট গয়না বেশি মানাবে।দুপুরে আইশ্যাডোর রঙ সঙ্গে ম্যাচ করতে পারেন, আবার কন্ট্র্যাস্টও করতে পারেন।চোখের পুরোটা পাতায় বেজ কালার করে নিন। তারপর অন্য কালারগুলো লাগান। চোখের লেশের কোল ঘেঁষে পেন্সিল আইলানারের টান আবার আউটার কর্নারটাও একটু টেনে দিতে পারেন। গালে আলতো করে একটু ব্লাশন ছুঁইয়ে নিন। লিপলাইনার দিয়ে ঠোঁট এঁকে লিপিস্টিক লাগিয়ে নিন।

রাতের সাজ রাতে আপনি আপনার ইচ্ছেমতো সাজুন। বাইরে গেলে শাড়ি পরুন। বাঙ্গালি নারীর শাড়িতেই পূর্ণ সৌন্দর্য প্রকাশ পায়। মুখ, গলায় ফাউন্ডেশন কমপ্যাক্ট পাউডার দিন। সাজ বেশি সময় স্থায়ী করতে স্পঞ্জ পানিতে ভিজিয়ে মুখে চেপে মেকাপ বসিয়ে নিন। চোখে মাশকারা, আইলাইনার এবং গাঢ় রঙ এর স্যাডো ব্যবহার করুন। রাতের সাজে শাড়ি খুব বেশি গর্জিয়াস হলে মেকাপটা পরিচ্ছন্ন ও উজ্জ্বল হবে। চোখের ওপরে অ্যাকোয়া ব্লু এবং গ্রে আইশ্যাডো একসঙ্গে মিলিয়ে লাগান। চোখের ইনার কর্নারে গোল্ড বা শিমারি পিঙ্ক আইশ্যাডো স্মাজ করে লাগিয়ে নিন। তবে ব্লাশনের রঙ বেশি উজ্জ্বল না হওয়াই ভালো। হালাকা রঙে লিপিস্টিক রাতের সাজের জন্য বেশি মানানসই হবে।

ঈদের দিন,ঈদ,মানানসই সাজ
apps
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত