Most important heading here

Less important heading here

Some additional information here

Emphasized text
  • শুক্রবার, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১০ ফাল্গুন ১৪২৫
  • ||

ভারতকে ১৬৩ রানের টার্গেট দিলো পাকিস্তান

প্রকাশ:  ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২০:৫০ | আপডেট : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১:০৬
স্পোর্টস ডেস্ক
প্রিন্ট icon

এশিয়া কাপে আজকের ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছে দুই চির প্রতিদ্বন্দী ভারত-পাকিস্তান। এই ম্যাচকে ঘিরে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে দুই দলের সমার্থকদের মধ্যে।টসে জিতে আগে ব্যাটিং করে ৪৩.১ ওভার খেলে ১০ উইকেট হারিয়ে মাত্র ১৬২ রান করেছে। জবাবে ভারতকে জিততে হলে ৫০ ওভারে ১০ উইকেটে ১৬৩ রান করতে হবে। যা ভারতে ব্যাটিং লাইনআপের কাছে মামোলি ব্যাপার।

দুবাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় বিকেল সাড়ে ৫টায় শুরু হয় ভারত-পাকিস্তানের মহারণ। অবশ্য হংকংয়ের বিদায়ের কারণে এরই মধ্যে দুই দলের সুপার ফোর নিশ্চিত হয়ে গেছে। কিন্তু ম্যাচটি ভারত-পাকিস্তানের বলে উত্তেজনার পারদ ঊর্ধমুখীই থাকবে।

দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৪৭ রান করেছেন বাবর আজম। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৪৩ রান করেছেন শোয়েব মালিক। ভারতীয় বোলারদের মধ্যে ১৫ রান দিয়ে তিনটি উইকেট শিকার করেছেন ভুবনেশ্বর কুমার। ২৩ রান দিয়ে তিনটি উইকেট শিকার করেছেন কেদার যাদব। ২৩ রান দিয়ে দুইটি উইকেট শিকার করেছেন জ্যাসপ্রীত বুমরাহ। একটি উইকেট শিকার করেছেন কুলদীপ যাদব।

এশিয়া কাপের এবারের আসরে উভয় দলই তাদের প্রথম ম্যাচে জয় তুলে নিয়েছে। তাই এ ম্যাচটি হবে গ্রুপ সেরা নির্বাচনী ম্যাচ। যে এ ম্যাচে জয় পাবে সে হবে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন। আর পরাজিত দল হবে রানার্সআপ।

এর আগের ১২৯টি ম্যাচে ৭৩টিতে জয় পেয়েছে পাকিস্তান ও ৫২টিতে জয় পেয়েছে ভারত। বাকি ৪টি ম্যাচের ফলাফল হয়নি। আর এশিয়া কাপের ইভেন্টে ১১টি ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছে দু’দল। উভয় দলই পাঁচটি করে ম্যাচে জয় পেয়েছে। বাকি একটি ম্যাচে জয় পায়নি।

এশিয়া কাপের ১৪টি আসরের সর্বোচ্চ পাঁচবারের চ্যাম্পিয়ন ভারত। পাকিস্তান চ্যাম্পিয়ন দুইবারের। তবে এ দু’দলের ম্যাচে আগে ভাগে কিছু বলা মুশকিল। ভারতকে নিয়ে বাজি ধরলেও পাকিস্তানকে নিয়ে বাজি ধরতে চাবে না কেউই।

এর কারণ হিসেবে রয়েছে পাকিস্তানের আনপ্রেডিক্টেবলিটি। ক্রিকেট যতটা না আনপ্রেডিক্টেবল তার চেয়ে বেশি আনপ্রেডিক্টেবল পাকিস্তান। কারণ পাকিস্তান এই উড়ছে তো এই ধপাস করে মাটিতে ভূপাতিত। তবে নিজেদের দিনে পাকিস্তান কাউকেই তোয়াক্কা করে না এটা ক্রিকেট বিশ্ব ভাল করেই মানে।দলীয় তিন রানের মধ্যে সাজঘরে ফিরে যান দুই ওপেনার। ইনিংসের তৃতীয় ওভারে ভুবনেশ্বর কুমারের বলে উইকেটরক্ষকের হাতে ক্যাচ হন ইমাম-উল-হক। পঞ্চম ওভারে ভুবনেশ্বর কুমারের বলে যুজবেন্দ্র চাহালের হাতে ক্যাচ হন ফখর জামান।

এরপর ৮২ রানের পার্টানারশিপ গড়েন বাবর আজম ও শোয়েব মালিক। দলীয় ৮৫ রানে কুলদীপ যাদবের বলে বোল্ড হন বাবর আজম। দলের রান যখন ৯৬ তখন কেদার যাদবের বলে মনিশ পান্ডের হাতে ধরা পড়েন সরফরাজ আহমেদ। দলীয় ১০০ রানে রান আউট হন শোয়েব মালিক।

দলের রান যখন ১১০ তখন কেদার যাদবের বলে উইকেটরক্ষকের হাতে ক্যাচ হন আসিফ আলী। দলীয় ১২১ রানে কেদার যাদবের বলে স্ট্যাম্পিং হন শাদব খান। এরপর ফাহিম আশরাফ ও মোহাম্মদ আমির ৩৭ রানের পার্টনারশিপ গড়েন। ইনিংসের ৪২তম ওভারে জ্যাসপ্রীত বুমরাহর বলে শিখর ধাওয়ানের হাতে ক্যাচ হন ফাহিম আশরাফ। ৪৩তম ওভারে ভুবনেশ্বর কুমারের বলে দিনেশ কার্তিকের হাতে ধরা পড়েন হাসান আলী। ৪৪তম ওভারে জ্যাসপ্রীত বুমরাহর বলে বোল্ড হন উসমান খান।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

পাকিস্তান ইনিংস: ১৬২ (৪৩.১ ওভার)

(ইমাম-উল-হক ২, ফখর জামান ০, বাবর আজম ৪৭, শোয়েব মালিক ৪৩, সরফরাজ আহমেদ ৬, আসিফ আলী ৯, শাদব খান ৮, ফাহিম আশরাফ ২১, মোহাম্মদ আমির ১৮*, হাসান আলী ১, উসমান খান ০; ভুবনেশ্বর কুমার ৩/১৫, জ্যাসপ্রীত বুমরাহ ২/২৩, হার্দিক পান্ডিয়া ০/২৪, যুজবেন্দ্র চাহাল ০/৩৪, কুলদীপ যাদব ১/৩৭, আম্বাতি রায়ডু ০/০, কেদার যাদব ৩/২৩)।

/এস কে

apps
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত