Most important heading here

Less important heading here

Some additional information here

Emphasized text
  • শুক্রবার, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১০ ফাল্গুন ১৪২৫
  • ||

জিম্বাবুয়েকে ৪৪৩ রানের লক্ষ্য দিল বাংলাদেশ

প্রকাশ:  ১৪ নভেম্বর ২০১৮, ১৪:২৩
স্পোর্টস ডেস্ক
প্রিন্ট icon

ঢাকা টেস্টের চতুর্থ দিনে ব্যাটিংয়ে ২২৪ রান করে ইনিংস ঘোষণা করেছে স্বাগতিক বাংলাদেশ। সকালের ব্যাটিং বিপর্যয় কাটিয়ে অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহর শতকে সফরকারিদের ৪৪৩ রানের লক্ষ্য দিয়েছে বাংলাদেশ।

মিরপুর টেস্টে নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে বুধবার সকালে ব্যাট করতে নেমে প্রথম ঘণ্টায় ৪ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে যায় স্বাগতিক বাংলাদেশ। এরপর দলের হাল ধরেন অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ ও মোহাম্মদ মিঠুন। দু’জনের ব্যাটে প্রাথমিক চাপ সামলে উঠে টাইগাররা।মিঠুন হাফসেঞ্চুরি করে বেশি দূর এগুতে পারেনি। তিনি ৬৭ রান করে ক্যাচ আউট হয়ে সাজ ঘরে ফিরে যান।কিন্তু ভুল করেননি দলীয় অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ। তিনি টেস্ট ক্যারিয়ারে সেঞ্চুরির দেখা পান। এটি রিয়াদের দ্বিতীয় টেস্ট শতক। এর আগে ২০১০ সালে হেমিল্টনে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম সেঞ্চুরি করেন তিনি।১২২ বল খেলে ৪টি চার ও ২টি ছয়ের সাহায্যে সেঞ্চুরি পূরণ করেন টাইগার অধিনায়ক।

এর আগে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করেতে নেমে শুরুতেই চাপে পড়েছে বাংলাদেশ দল। এদিন ১০ রানেই ভেঙে পড়ে বাংলাদেশের টপ অর্ডার। এক এক করে বিদায় নিয়েছেন ইমরুল কায়েস, লিটন দাস ও মুমিনুল হক ও মুশফিকুর রহিম। ইনিংসের ১৩তম ওভারের প্রথম বলে দলীয় ২৫ রানে ডোনাল্ড তিরিপানোর বলে ডিপ স্কয়ার লেগে ব্র্যান্ডন মাভুতার তালুবন্দী হয়েছেন মুশফিক (৭)। পঞ্চম ওভারে বিদায় নেন ইমরুল কায়েস। কাইল জারভিসের বলে ব্রেন্ডন মাভুতার হাতে ধরা পড়ার আগে ইমরুল করেন মাত্র ৩ রান। দলীয় ৯ রানের মাথায় বাংলাদেশ প্রথম উইকেট হারায়। এক বল পরেই জারভিস বোল্ড করেন লিটন দাসকে (৬)।

এদিন প্রথম ইনিংসে দারুণ ব্যাটিং করে বাংলাদেশ দল। বাংলাদেশের হয়ে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ইনিংস খেলে অপরাজিত থাকেন মুশফিকুর রহিম। ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় ডাবল সেঞ্চুরি তুলে নেন তিনি। ৪২১ বলে ১৮টি চার আর একটি ছক্কায় করেন অপরাজিত ২১৯ রান। মুমিনুল হক ক্যারিয়ারের সপ্তম সেঞ্চুরি হাঁকান। ২৪৭ বলে ১৯টি বাউন্ডারিতে করেন ১৬১ রান। তার আগে মুশফিকের সঙ্গে ২৬৬ রানের জুটি গড়েন মুমিনুল। অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের ব্যাট থেকে আসে ৩৬ রান। আর মেহেদি হাসান মিরাজ ১০২ বলে ৬৮ রান করে অপরাজিত থাকেন।

জবাব দিতে নেমে নিজেদের প্রথম ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নেমে ১০৫.৩ ওভারে জিম্বাবুয়ে ৩০৪ রান তোলে। ব্রেন্ডন টেইলর ১৯৪ বলে ১০টি চারের সাহায্যে করেন ইনিংস সর্বোচ্চ ১১০ রান। ওপেনার ব্রায়ান চারি ৫৩ আর হ্যামিলটন মাসাকাদজা ১৪ রান করেন। ১১৪ বলে ১২টি চার আর একটি ছক্কায় ৮৩ রান করেন পিটার মুর।

প্রথম টেস্টের মতো দ্বিতীয় টেস্টেও দারুণ বোলিং করেন তাইজুল ইসলাম। মিরপুর টেস্টের প্রথম ইনিংসে তাইজুল তার ঝুলিতে ভরেন ৫টি উইকেট। মিরাজ পান তিনটি উইকেট। এর আগে সিলেট টেস্টে দুই ইনিংস মিলিয়ে ১১ উইকেট নেন এই স্পিনার।

বাংলাদেশ একাদশ: মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ (অধিনায়ক), ইমরুল কায়েস, লিটন দাস, মুশফিকুর রহিম, মুমিনুল হক, মোহাম্মদ মিঠুন, খালেদ আহমেদ, মোস্তাফিজুর রহমান, মেহেদি হাসান মিরাজ, আরিফুল হক এবং তাইজুল ইসলাম।

জিম্বাবুয়ে একাদশ: হ্যামিলটন মাসাকাদজা (অধিনায়ক), ব্রায়ান চারি, ব্রেন্ডন টেইলর, শন উইলিয়ামস, সিকান্দার রাজা, পিটার মুর, রেগিস চাকাভা, ব্রেন্ডন মাভুতা, ডোনাল্ড তিরিপানো, কাইল জারভিস এবং তেন্দাই চাতারা।

/এস কে

apps
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত