Most important heading here

Less important heading here

Some additional information here

Emphasized text
  • সোমবার, ২৫ মার্চ ২০১৯, ১১ চৈত্র ১৪২৫
  • ||

সংরক্ষিত নারী আসনে অগ্রাধিকার পাচ্ছেন যারা

প্রকাশ:  ১৬ জানুয়ারি ২০১৯, ১৮:১৯
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট icon
ফাইল ছবি

একাদশ জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনে আগ্রহী প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র বিতরণ শুরু করেছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। চলবে নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার আগ পর্যন্ত। তবে সম্ভাব্য প্রার্থীদের তালিকা অনেকটাই চূড়ান্ত বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

একাদশ জাতীয় সংসদে ভোটে জয়ী দলগুলোর মধ্যে আনুপাতিক প্রতিনিধিত্ব পদ্ধতিতে ৫০টি সংরক্ষিত আসনের মধ্যে আওয়ামী লীগ পাবে ৪৩টি, জাতীয় পার্টি ৪টি, জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ১টি এবং স্বতন্ত্র ও অন্যান্য দল মিলে ২টি আসন পাবে।

সূত্র জানায়, দশম সংসদে সংরক্ষিত আসন না পাওয়া ২৫টি জেলাকে এবার অগ্রাধিকার দিচ্ছে আওয়ামী লীগ। এ নিয়ে প্রাথমিক তালিকার একটি খসড়া ইতোমধ্যে চূড়ান্ত করেছেন দলের সভাপতি শেখ হাসিনা। এতে পুরনোদের পাশাপাশি স্থান পেয়েছেন বিভিন্ন পেশার পরিচিত মুখেরা। দলে অবদান রাখা প্রয়াত নেতাদের পরিবারের সদস্য এবং সমাজে বিশেষ অবদান রাখা নারীদের নামও আছে এ খসড়ায়। এছাড়া ১৪ দলের শরিকদের কাছেও সম্ভাব্য প্রার্থীদের নাম চাওয়া হয়েছে।

আওয়ামী লীগের সংশ্লিষ্ট সূত্রমতে, দশম সংসদে সংরক্ষিত নারী আসন না পাওয়া ২৫ জেলার জন্য ২৫টি আসন রাখা হয়েছে। ঢাকায় এবার দুটি আসন কমিয়ে ৬টি করা হতে পারে। বাকি ১২টি আসনে জাতীয় পর্যায়ে পরিচিত মুখ, বিভিন্ন পেশাজীবী ও আলোচিত নারী ও পুরনোদের মধ্য থেকে মনোনয়ন দেয়া হবে।

দশম সংসদের সংরক্ষিত আসনবঞ্চিত ২৫টি জেলা হলো- পঞ্চগড়, দিনাজপুর, জয়পুরহাট, বগুড়া, চাঁপাইনবাবগঞ্জ, নওগাঁ, নাটোর, পাবনা, ঝিনাইদহ, যশোর, খুলনা, বরিশাল, ঝালকাঠি, পিরোজপুর, জামালপুর, নেত্রকোনা, গাজীপুর, সিলেট, মৌলভীবাজার, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, বান্দরবান, খাগড়াছড়ি এবং মানিকগঞ্জ।

দশম জাতীয় সংসদে ঢাকা জেলায় সংরক্ষিত মহিলা এমপি আছেন ৮ জন। এর মধ্যে আওয়ামী লীগের ৬ এবং বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি ও জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল- জাসদের একজন করে এমপি আছেন।

এর বাইরে চারটি জেলায় দু’জন করে এমপি আছে। এগুলো হচ্ছে- রংপুরে ২টি (আওয়ামী লীগ-১, জাতীয় পার্টি-১), সাতক্ষীরায় ২টি (আওয়ামী লীগ), চট্টগ্রামে-২টি (আওয়ামী লীগ-১, জাতীয় পার্টি-১) এবং কুমিল্লায়-২টি (আওয়ামী লীগ-১, জাতীয় পার্টি-১) আসন আছে।

একাদশ জাতীয় সংসদে এই ৪টি জেলা থেকে কাউকে মনোনয়ন না দেয়ার ব্যাপারে এক রকম নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছে দলটি। তবে এবারও ঢাকা জেলা থেকে কমপক্ষে ৫টি আসনে নতুন মুখ দেখা যেতে পারে জানায় সংশ্লিষ্ট সূত্র।

দশম জাতীয় সংসদে একটি করে সংরক্ষিত নারী আসনপ্রাপ্ত ৩৪ জেলা হলো- ঠাকুরগাঁও, নীলফামারী, কুড়িগ্রাম, লালমনিরহাট, গাইবান্ধা, রাজশাহী, সিরাজগঞ্জ, মেহেরপুর, কুষ্টিয়া, চুয়াডাঙ্গা, মাগুরা, টাঙ্গাইল, বাগেরহাট, বরগুনা, পটুয়াখালী, ভোলা, ময়মনসিংহ, কিশোরগঞ্জ, শেরপুর, মুন্সীগঞ্জ, ফরিদপুর, মাদারীপুর, শরীয়তপুর, হবিগঞ্জ, সুনামগঞ্জ, নড়াইল, ফেনী, কক্সবাজার, রাঙ্গামাটি, নরসিংদী, নারায়ণগঞ্জ, রাজবাড়ী, চাঁদপুর ও গোপালগঞ্জ।

এসব জেলার বিভিন্ন পেশায় পরিচিত মুখ- যারা সংসদে জোরালো ভূমিকা পালন করতে পারেন এমন ৪ থেকে ৫ জনকে মনোনয়ন দিতে পারে আওয়ামী লীগ। সেখানে থাকতে পারেন ১৪ দলের প্রার্থীও।

সূত্র আরও জানায়, সংসদের সরব উপস্থিতি ও কার্যকর ভূমিকা পালনে বেশ কয়েকজন পরিচিত মুখ ও নারীনেত্রীকে বিশেষ কোটায় মনোনয়ন দেবে আওয়ামী লীগ।

এ বিষয়ে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম ও সংসদীয় মনোনয়ন বোর্ডের সদস্য লে. কর্নেল (অব.) ফারুক খান জানান, যেসব জেলা থেকে দশম জাতীয় সংসদে সংরক্ষিত আসনে মনোনয়ন দেয়া হয়নি, সেসব জেলা এবার অগ্রাধিকার পাবে। এসব জেলার প্রার্থী নির্ধারণে যোগ্যতাকেই বেশি গুরুত্ব দিয়ে কাজ করা হচ্ছে। এর বাইরেও দলে ও সমাজে বিশেষ অবদান রাখা, সামাজিক কর্মকাণ্ডের সঙ্গে সম্পৃক্ত ও শিক্ষাগত যোগ্যতাও দেখা হবে প্রার্থীদের।

জানা গেছে, নিয়ম অনুযায়ী প্রতি ৬টি আসনের বিপরীতে যে কোনো দল বা জোট ১টি সংরক্ষিত আসন পেয়ে থাকে। সে হিসাবে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন ১৪ দলের শরিক ওয়ার্কার্স পার্টি, জাসদ, বিকল্পধারাসহ অন্যদের কোনো সংরক্ষিত আসন পাওয়ার সম্ভাবনা নেই। তবে এক্ষেত্রে নিজেদের কয়েকটি আসন শরিকদের ছাড় দিতে পারে আওয়ামী লীগ।

/পিবিডি/আরাফাত

সংরক্ষিত নারী আসন,নিারী,সংসদ,আওয়ামী লীগ
apps
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত