Most important heading here

Less important heading here

Some additional information here

Emphasized text
  • মঙ্গলবার, ১৯ মার্চ ২০১৯, ৫ চৈত্র ১৪২৫
  • ||

ক্রাইস্টচার্চে হামলায় নিহত বাংলাদেশী আবদুস সামাদের স্ত্রী জীবিত

প্রকাশ:  ১৬ মার্চ ২০১৯, ১৩:৫৬ | আপডেট : ১৬ মার্চ ২০১৯, ১৪:৪৮
পূর্ব পশ্চিম ডেস্ক
প্রিন্ট icon

ক্রাইস্টচার্চে মসজিদে বন্দুকধারীর হামলায় অন্তত তিনজন বাংলাদেশী নিহত হয়েছেন বলে এর আগে বাংলাদেশ দূতাবাসের কর্মকর্তারা জানালেও তারা এখন বলছেন, সংখ্যা নিয়ে বিভ্রান্তি তৈরি হয়েছিল।

দূতাবাসের অনারারী কনসাল শফিকুর রহমান শুক্রবার (১৫ মার্চ) দিবাগত রাত দেড়টার দিকে বিবিসি বাংলাকে জানিয়েছেন, বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক ড. আবদুস সামাদের স্ত্রী জীবিত আছেন এবং নিউজিল্যান্ডে তাদের বাড়িতে অবস্থান করছেন বলে মিঃ সামাদের পুত্র তারেক দূতাবাসকে জানিয়েছেন।

মোট নিহত বাংলাদেশীর সংখ্যা এখন দুইজন বলেন শফিকুর রহমান।

তিনি বলেন, নিহতের সংখ্যা নিয়ে কনফিউশন হলেও এটা ভালো দিক যে একজন জীবিত আছেন বলে জানা গেল।

এর আগে নিহত বাংলাদেশীর সংখ্যা তিনজন বলে উল্লেখ করা হয়েছিল।

এর মধ্যে ড. আবদুস সামাদের স্ত্রী, যাকে নিখোঁজ হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছিল তার মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করা হয়েছিল শুক্রবার বাংলাদেশ সময় বিকেল সাড়ে চারটার দিকে।

তবে পরে তার পরিবার দূতাবাসকে জানায় যে, মিসেস সামাদের খোঁজ পাওয়া গেছে এবং তিনি সুস্থ আছেন।

ড. আবদুস সামাদ স্থানীয় লিঙ্কন বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন শিক্ষক ছিলেন। এর আগে ড. সামাদ বাংলাদেশে কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করেছেন বলে জানান মি. ভুইয়া।

নিহত আরেকজনে পরিচয় সম্পর্কে মি. রহমান বলেন যে, মিসেস হোসনে আরা ফরিদ একজন গৃহবধূ ছিলেন।

মসজিদে হামলার ঘটনায় অন্তত পাঁচজন বাংলাদেশী আহত হয়েছে বলে বাংলাদেশের দূতাবাস এখন পর্যন্ত খবর পেয়েছে।

এদের মধ্যে দু'জনের অবস্থা গুরুতর বলে জানান মি.রহমান।।

এছাড়া এখনো একজন নিখোঁজ রয়েছেন বলে কর্মকর্তারা বলছেন।

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে জুমার নামাজের সময় দুটিতে মসজিদে স্বয়ংক্রিয় রাইফেল নিয়ে চালানো ভয়াবহ এই হামলায় অন্তত ৪৯ জন নিহত হয়েছেন। গণহত্যা চালানোর আগে অস্ট্রেলীয় বংশোদ্ভূত এক শ্বেতাঙ্গ হামলাকারী অনলাইনে একটি পোস্ট করে জানায়, সে শ্বেতাঙ্গ শ্রেষ্ঠত্ববাদে বিশ্বাসী। দখলদারদের (অভিবাসী) ওপর প্রতিশোধ নিতেই সে এই হামলা করেছে। অবশ্য তাকে এবং আরও তিনজনকে আটক করেছে নিউজিল্যান্ডের পুলিশ।এই উগ্রপন্থী সন্ত্রাসী হামলার সময় আল নূর মসজিদে নামাজ পড়তে গিয়েছিলেন বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সদস্যরা। মসজিদে ঢোকার কিছুক্ষণ আগে ওই হামলার ঘটনাটি ঘটে। ফলে অল্পের জন্য জীবন রক্ষা পান বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা।

পিবিডি/জিএম

ক্রাইস্টচার্চে মসজিদে বন্দুকধারীর হামলা,কনসাল শফিকুর রহমান,শিক্ষক,ড. আবদুস সামাদ
apps
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত