Most important heading here

Less important heading here

Some additional information here

Emphasized text
  • শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০১৯, ৬ বৈশাখ ১৪২৬
  • ||

রাজধানীর বিভিন্ন সড়কে শিক্ষার্থীদের অবস্থান, যান চলাচল বন্ধ

প্রকাশ:  ২০ মার্চ ২০১৯, ১১:৪৭ | আপডেট : ২০ মার্চ ২০১৯, ১৩:২৭
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট icon

রাজধানীর বসুন্ধরায় যমুনা ফিউচার পার্কের সামনে নর্দ্দা এলাকায় সুপ্রভাত পরিবহনের বাসের চাপায় বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসের (বিইউপি) ছাত্র আবরার আহমেদ নিহত হওয়ার প্রতিবাদে, ঘাতক বাসচালকের ফাঁসি ও নিরাপদ সড়কের দাবিতে দ্বিতীয় দিনের মতো আজও সড়কে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করছেন শিক্ষার্থীরা।

বুধবার (২০ মার্চ) সকালে রাজধানীর চার সড়কে অবস্থান নিয়েছিলেন তারা। তবে ঘণ্টাব্যাপী অবরোধের পর ফার্মগেটের সড়ক থেকে তারা সরে গেছেন।

এদিন সাড়ে ৯টায় বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার মূল ফটকের সামনে জড়ো হয়ে ওই সড়কের যান চলাচল বন্ধ করে দেন বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা।

বেলা ১১টার কিছু আগে রাজধানীর দুর্ঘটনাস্থল প্রগতি সরণিত, রামপুরা, ফার্মগেইট ও শাহবাগে অবস্থান নেওয়ার কথা সাংবাদিকদের জানান রাজধানীর প্রগতি সরণিতে বিইউপির ছাত্র শাহীন জামান।

এর মধ্যে সকাল সাড়ে ৯টা থেকে প্রগতি সরণিতে অবস্থান নেন শিক্ষার্থীরা। এছাড়া আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অনুরোধে ফার্মগেটের সড়ক থেকে বেলা ১১টার দিকে সরে যান আন্দোলনকারী।

সকাল ৮টা থেকেই শিক্ষার্থীদের এই কর্মসূচি শুরু কথা থাকলেও সেসময় তাদের উপস্থিতি খুব একটা লক্ষ্য করা যায়নি। উল্টো ঘটনাস্থলে ছিল আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের ব্যাপক উপস্থিতি। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক পুলিশের কয়েকজন কর্মকর্তা সকালে জানিয়েছিলেন, জনদুর্ভোগ হয় এমন কোনো কর্মসূচি তারা কাউকে পালন করতে দেবেন না।

তবে সকাল ৯টার পর থেকেই শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি চোখে পড়তে থাকে। তারা পুলিশের বাধা উক্ষেপ করে সড়ক অবরোধ করতে চেষ্টা করেন। ৯টা ২৭ মিনিটে পুলিশ একবার শিক্ষার্থীদের রাস্তা থেকে সরিয়ে দেয়। কিন্তু সাড়ে ৯টা বাজতেই আবারও অবরোধ করেন তারা। শিক্ষার্থীদের তোপের মুখে পিছু হটে পুলিশ।

নর্থসাউথ বিশ্ববিদ্যালয়, আইইউবি, এআইইউবি, ইমপেরিয়েল কলেজ ও বিইউপি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা বসুন্ধরা গেইটে দুপাশের রাস্তা অবরোধ করে রেখেছেন। এর ফলে কুড়িল বিশ্বরোড থেকে মালিবাগ এবং মালিবাগ থেকে বিমানবন্দরগামী সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়েছে। যানজটে আটকা পড়েছে শত শত যানবাহন

মঙ্গলবার সকালে রাজধানীর বসুন্ধরায় যমুনা ফিউচার পার্কের সামনে নর্দ্দা এলাকায় সুপ্রভাত পরিবহনের একটি বাসের চাপায় নিহত হন বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসের (বিইউপি) ছাত্র আবরার আহমেদ চৌধুরী। এ ঘটনার পর রাস্তায় নামেন শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসী। তাঁরা সেখানে সড়ক অবরোধ করে রাখেন। তাঁরা ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত ও দায়ী ব্যক্তিদের বিচার দাবি করেন।

বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা আট দফা দাবি জানিয়েছেন। দাবিগুলোর মধ্যে রয়েছে বাসচালকের শাস্তি, নতুন বাসচালকেরা যেন যথাযথ নিয়মে ড্রাইভিং লাইসেন্স পান, গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় জেব্রাক্রসিংয়ের ব্যবহার, জেব্রাক্রসিংয়ের সামনে ক্লোজড সার্কিট (সিসি) ক্যামেরা স্থাপন, প্রগতি সরণির সামনে পদচারী-সেতু স্থাপন।

আবরার আহমেদ চৌধুরী নিহত হওয়ার ঘটনায় গুলশান থানায় মামলা হয়েছে। গত রাতে মামলা করেছেন নিহত আবরারের চাচা। ঘটনার পর ঘাতক বাসটির চালককে গ্রেপ্তার করা হয়।

এর আগে গত বছরের ২৯ জুলাই রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কে বাসচাপায় দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যুর প্রতিবাদে নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনে নামে শিক্ষার্থীরা। সারা দেশেই ছড়িয়ে পড়ে তা। ২৯ জুলাই থেকে ৮ আগস্ট পর্যন্ত চলে ওই আন্দোলন। সেই আন্দোলনে সমর্থন ছিল নিহত আববারের।

পিবিডি/জিএম

বাস চাপায় নিহত,বিইউপি,বিক্ষোভ,বসুন্ধরা আবাসিক এলাকা
apps
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত