Most important heading here

Less important heading here

Some additional information here

Emphasized text
  • রবিবার, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ৫ ফাল্গুন ১৪২৫
  • ||

নতুন বইয়ে নান্দনিক মেলা

প্রকাশ:  ০৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১০:৩২
রবিউল কমল
প্রিন্ট icon

নতুন নতুন বইয়ের সমাহারে ভরে উঠেছে অমর একুশের গ্রন্থমেলার প্রতিটি স্টল। নতুন বইয়ের বাহারে মেলার প্যাভিলিয়নসহ প্রায় সবগুলো স্টল হয়ে ওঠেছে বইয়ে বইয়ে ভরপুর। নতুন বইয়ের নানা রংয়ের অঙ্গসজ্জায় আকর্ষণীয় প্রচ্ছদের সম্মিলন মেলায় সৃষ্টি করেছে দৃষ্টিনন্দন পরিবেশ। প্রকাশনার এমনি বাহারি সৌন্দর্য কেড়ে নিচ্ছে পাঠকদের দৃষ্টিও।

তুলনামূলক লোকসমাগম কম হলেও প্রতিদিন সন্ধ্যার পর থেকে মেলা প্রাঙ্গণ জমে ওঠে পাঠক-দর্শনার্থীদের মুখরতায়। তবে জনপ্রিয় লেখকদের অধিকাংশই এখনো মেলায় সেভাবে আসতে শুরু করেননি। কিন্তু থেমে নেই প্রতিদিন মেলায় আসা নতুন বইয়ের খবর।

প্রকাশনীগুলো তাদের বেশিরভাগ নতুন বই মেলায় তুলেছেন। তাই পাঠকদের চোখ এখন প্রিয় লেখকদের নতুন বইয়ের দিকে। বাংলা একাডেমি ও সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে দুপুর গড়াতেই মানুষের পদচারণা দেখা মিললেও মেলার কোনো প্রাঙ্গণই এখনো জমে ওঠেনি।

তবে এরই মধ্যে মেলায় আসা অধিকাংশ বইপ্রেমীদের ঘুরেফিরে সার্বিক পরিবেশ দেখতেই দেখা যাচ্ছে। আবার অনেক ক্রেতা ও দর্শনার্থীরা স্টল ঘুরে নেড়ে-ছেড়ে দেখছেন পছন্দের বই, বিকিকিনিও হচ্ছে অল্প-বিস্তর। পাঠকরা হাতে নিয়েই নতুন বইয়ের গন্ধে ফিরে পাচ্ছেন নবপাঠের প্রেরণা। বেশির ভাগ বইয়ের রঙের উজ্জ্বলতা এবং বিভিন্ন বিষয়-বৈচিত্র্যের শত শত বইয়ের দৃষ্টিনন্দন প্রচ্ছদ আকৃষ্ট করছে পাঠকদের।

একদিকে প্রকাশনা সংস্থাগুলোর দৃষ্টিমুখর স্টল, অপরদিকে প্রাণছোঁয়া ও বিষয়-বৈচিত্র্যের প্রচ্ছদে আবৃত বইয়ের সমাহার। সব মিলিয়ে মন মাতানো আবহে এগিয়ে চলছে এবারের বইমেলা। মেলার এবারের পরিবেশও বেশ পরিচ্ছন্ন। এবারের বইমেলার মূল থিম ‘বিজয়: ১৯৫২ থেকে ১৯৭১ নবপর্যায়’।

বাংলা একাডেমি ও সোহরাওয়ার্দী উদ্যান মিলিয়ে এবার গ্রন্থমেলার ২৫ হাজার বর্গফুট বেড়েছে। সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে গতবার ২ লাখ ৭৫ হাজার বর্গফুট জায়গা জুড়ে গ্রন্থমেলা আয়োজন হলেও এবার তা বিস্তৃত হয়েছে ৩ লাখ বর্গফুটে। সোহরাওয়ার্দী উদ্যান অংশকে ৪টি চত্বরে ভাগ করা হয়েছে।

একাডেমি প্রাঙ্গণে ১০৪ প্রতিষ্ঠানকে ১৫০টি এবং সোহরাওয়ার্দী উদ্যান অংশে ৩৯৫ প্রতিষ্ঠানকে ৬২০টি ইউনিট; সব মিলিয়ে ৪৯৯ প্রতিষ্ঠানকে ৭৭০টি ইউনিট এবং বাংলা একাডেমিসহ ২৪টি প্রকাশনা প্রতিষ্ঠানকে ২৪টি প্যাভিলিয়ন বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। লিটল ম্যাগাজিন চত্বরে ১৮০টি লিটলম্যাগকে দেওয়া হয়েছে ১৫৫টি স্টল। ২৫টি স্টলে ২টি করে লিটল ম্যাগাজিনকে স্থান দেওয়া হয়েছে। অন্য ১৩০টি প্রতিষ্ঠান বরাদ্দ পেয়েছে একক স্টল।

এবারও মেলার সোহরাওয়ার্দী উদ্যান অংশে রয়েছে শিশু চত্বর। এ কর্নারকে শিশুকিশোর বিনোদন ও শিক্ষামূলক অঙ্গসজ্জায় সজ্জিত করা হয়েছে। মাসব্যাপী গ্রন্থমেলায় এবারও প্রতি শুক্র ও শনিবার ‘শিশু প্রহর’ ঘোষণা করা হয়েছে।

অমর একুশের গ্রন্থমেলা,শিশু চত্বর
apps
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত