Most important heading here

Less important heading here

Some additional information here

Emphasized text
  • রবিবার, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ৫ ফাল্গুন ১৪২৫
  • ||

দ্রুত এগোচ্ছে রূপপুর বিদ্যুৎ কেন্দ্রের নির্মাণ কাজ

প্রকাশ:  ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৯:৪০
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট icon
ফাইল ছবি

পাবনার রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের প্রাথমিক পর্যায়ের কাজ শেষে মূল নির্মাণ কাজ ক্রমেই এগিয়ে চলেছে। এরই মধ্যে দেশের প্রথম পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের প্রথম ইউনিটে স্থাপন করা হয়েছে বিশেষ নিরাপত্তা কাঠামো বা কোর ক্যাচার। চলতি বছরের শেষ নাগাদই পারমাণবিক চুল্লী বা রিয়্যাক্টর ভবন দৃশ্যমান হবে জানিয়ে প্রকল্প সংশ্লিষ্টরা বলছেন, নির্ধারিত সময়েই উৎপাদনে আসবে বহুল কাঙ্ক্ষিত বৃহৎ এই বিদ্যুৎ প্রকল্প।

পাকিস্তানিদের কূটকৌশল আর পরবর্তীতে বিভিন্ন সরকারের নীতিগত সিদ্ধান্তের অভাবে থমকে থাকা রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্পের নির্মাণ কাজ আজ বাস্তবে রূপ নিচ্ছে একটু একটু করে। পরমাণু থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন করতে পাবনার রূপপুরের মাটি জুড়েই এখন তুমুল কর্মব্যস্ততা নির্মাণ শ্রমিক আর প্রকৌশলীদের।

প্রাথমিক নির্মাণ কাজ শেষে ২০১৭ সালের নভেম্বর নাগাদ সেখানে প্রথম ইউনিট এবং ২০১৮ সালের জুলাইয়ে দ্বিতীয় ইউনিটের প্রথম কংক্রিট ঢালাইয়ের পর এখন চলছে প্ল্যান্টের মূল নির্মাণ পর্ব। এরই মধ্যে নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে প্রথম ইউনিটের রিয়্যাক্টর ভবনের তলদেশে স্থাপন করা হয়েছে ২০০ টন ওজনের কোর ক্যাচার। সূক্ষ্ম প্রযুক্তি বিশিষ্ট পাঁচ স্তরের বিশেষ এই নিরাপত্তা ব্যবস্থার ফলে সেখানকার তেজস্ক্রিয় বর্জ্য বাইরে আসার আশঙ্কা নেমে আসবে শূন্যের কোটায়। রাশিয়ার ঋণ নিয়ে প্রকল্পটি নির্মাণ করা হলেও তা পরিশোধে সমস্যা না হওয়ার কথা জানাচ্ছেন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এসডিজি বিষয়ক মুখ্য সচিব আবুল কালাম আজাদ বলেন, রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের কাজ যে গতিতে এগোচ্ছে তা খুবই চমৎকার। এই বিদ্যুৎ কেন্দ্রের জন্য নেয়া ঋণ পরিশোধে কোনো সমস্যা হবে না।

এখন পর্যন্ত প্ল্যান্টের নির্মাণ কাজ এগিয়েছে ২৩ শতাংশ। ভারী যন্ত্রাংশ রাশিয়া থেকে নদীপথে পরিবহন করতে সেখানে গড়ে তোলা হচ্ছে জেটিসহ অন্যান্য স্থাপনা। সংশ্লিষ্টদের আশা চলতি বছরের শেষ নাগাদ দৃশ্যমান হবে প্রথম ইউনিটের রিয়্যাক্টর ভবন।

রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের প্রকল্প পরিচালক ড. শৌকত আকবর বলেন, এই বছরের মধ্যেই রিয়্যাক্টর ইউনিট ১ ও ২ এর দৃশ্যমান অবস্থা চলে আসবে।

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান বলেন, আমরা সময়ের দিক দিয়ে কিছুটা এগিয়ে গিয়েছি।

রাশিয়ার রাষ্ট্রায়ত্ত পরমাণু সংস্থা রোসাটমের তত্ত্বাবধানে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান অ্যাটমস্ট্রয় এক্সপোর্ট প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করছে।

বাংলাদেশের সম্মান এবং গৌরবের প্রকল্প রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের প্রাণ নিউক্লিয়ার রিয়্যাক্টরের কাজ শুরু হয়েছে। হয়তো এ বছরের শেষে দৃশ্যমান হবে রিয়্যাক্টরের মূল কাঠামো।


পিবিডি/এসএম

রূপপুর বিদ্যুৎ কেন্দ্র
apps
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত