Most important heading here

Less important heading here

Some additional information here

Emphasized text
  • সোমবার, ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ৬ ফাল্গুন ১৪২৫
  • ||

নিউইয়র্কের বইমেলায় হঠাৎ তসলিমা নাসরিন

প্রকাশ:  ২৪ জুন ২০১৮, ১৬:৫৫ | আপডেট : ২৪ জুন ২০১৮, ১৭:০১
হাসানুজ্জামান সাকী, নিউইয়র্ক থেকে
প্রিন্ট icon

আজ থেকে প্রায় দেড় দশক আগে নির্বাসিত লেখিকা তসলিমা নাসরিনের ''ক'' নিয়ে আমার একটি রিপোর্ট যুগান্তর-এ ছাপা হয়েছিল। এরপরের ইতিহাস হয়তো অনেকেই জানেন। বইটি নিষিদ্ধ হওয়ার আগে ও পরে লাখো কপি বিক্রি হয়েছিল। সম্প্রতি প্রয়াত হওয়া একজন লেখক আমাকে চাকরি খেয়ে ফেলার হুমকি দিয়েছিলেন। কিন্তু আমার চাকরি যায়নি। তিনি তসলিমা নাসরিন ও প্রকাশকের বিরুদ্ধে মামলা করেছিলেন। মামলার ফলশ্রুতিতে বইটি নিষিদ্ধ হয়েছিল কিন্তু তিনি বইয়ের কাটতি কমাতে পারেননি। নামে-বেনামে বহু প্রকাশনী হাজার হাজার কপি ছেপে দেদারসে বিক্রি করেছিল "ক"।

০২. এক যুগ আগে সার্ক শীর্ষ সম্মেলন কাভার করতে দিল্লি গিয়েছিলাম। সেখান থেকে কলকাতায় এসেছিলাম দুজন ব্যক্তির ইন্টারভিউ করতে। একজনের ইন্টারভিউয়ের অনুমতি পেতেই তিনদিন সময় লেগেছিল। তাঁরটা নিতে গিয়ে অপর জনের ইন্টারভিউয়ের সুযোগ হারিয়েছিলাম। যার নিতে পেরেছিলাম তিনি তসলিমা নাসরিন। আর যার সুযোগ হারিয়েছিলাম তিনি প্রয়াত জ্যোতি বসু। তসলিমা নাসরিনের সেই ইন্টারভিউ তখন টিভিতে প্রচার হয়নি। নিউজের ভাষায় কিল বা ব্ল্যাক অাউট যাকে বলে। এখন যারা দেশে সাংবাদিকতা করেন তারা নিশ্চয়ই জানেন, নিউজ কিল কাকে বলে!!

০৩. এবার নিউইয়র্কের বইমেলায় এসেছেন সেই "ক" এর প্রকাশক অঙ্কুর ও চারদিক প্রকাশনীর স্বত্ত্বাধিকারী মেসবাহ আহমেদ। তাঁরই স্টলে হঠাৎ বিদ্যুৎ চমকের মতো এসে হাজির হলেন বাংলাদেশের ''আধুনিক নারী জাগরণের প্রতিকৃত" তসলিমা নাসরিন। বিশ্বাস করুন, মেলার আয়োজক, লেখক-প্রকাশক-পাঠক, তাঁর অনুসারী-বিরুদ্ধাচারী সবাই যেন একটু নড়েচড়ে দাঁড়ালেন।

০৪. আরও সবিস্তারে লিখবো কখনও। যদি বেঁচে থাকি। আজ এতটুকুই।

লেখক: যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী সাংবাদিক

তসলিমা নাসরিন
apps
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত