Most important heading here

Less important heading here

Some additional information here

Emphasized text
  • বুধবার, ২৩ জানুয়ারি ২০১৯, ১০ মাঘ ১৪২৫
  • ||

ভূমিকম্প হলে যেভাবে নিজেকে রক্ষা করবেন

প্রকাশ:  ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৫:৫৩
পূর্বপশ্চিম ডেস্ক
প্রিন্ট icon

বাংলাদেশে সাম্প্রতি সময়ে বেশ কয়েকবার ভূমিকম্প আঘাত হেনেছে। এ সময় আতঙ্কে লোকজন দৌড়ে বাড়ির ভেতর থেকে রাস্তায় নেমে আসেন।

ভয়াবহ ক্ষয়ক্ষতি ও প্রানহানির হাত থেকে নিজেকে রক্ষা করার কিছু উপায় এখানে দেওয়া হলো৷ একনজরে দেখে নেয়া যাক ভূমিকম্পের আগে ও পরে কী করতে পারেন৷

ভূমিকম্পের আগে করণীয়ঃ

১. বাড়ির ভেতরে এবং বাইরে নিরাপদ স্থানগুলো চিহ্নিত করা জরুরি, যাতে ভূমিকম্পের সময় ভাবতে না হয় কোথায় আশ্রয় নেবেন আপনি। বাড়িতে ছোটদের এ বিষয়টি ভালো করে বুঝিয়ে দিন।

২. ভারী মালপত্র ওপরে রাখবেন না, শেলফের নিচের দিকে রাখুন। ঝাঁকুনিতে যাতে এগুলো গায়ের ওপর না পড়ে।

৩. লিক হওয়া গ্যাস লাইন, বৈদ্যুতিক লাইন মেরামত করে নিন এবং নিয়মিত পরীক্ষা করুন।

৪. মাঝে মধ্যেই জরুরি প্রয়োজনে দৌড়ে বাড়ির বাইরে বের হওয়ার মহড়া দিন। যাতে কম্পন অনুভূত হলেই সবাই এক দৌড়ে বাইরে বের হতে পারেন।

৫. নিজের কর্মক্ষেত্রে, বাড়িতে এবং প্রতিবেশীদের এ বিষয়ে সচেতন করুন, যাতে আতঙ্ক না ছড়িয়ে সাবধানে থাকতে পারেন।

৬. শুকনা খাবার ও জরুরি প্রাথমিক চিকিৎসার কিছু সরঞ্জাম হাতের কাছে রেখে দিন।

৭. অন্ধকারে দেখার জন্য টর্চ রাখুন হাতের কাছে।

৮. স্কুলে স্কুলে ভূমিকম্প সম্পর্কে ছাত্রছাত্রীদের অবহিত করুন। বাড়িতেও আপনার সন্তানকে এ বিষয়ে শিক্ষা দিন।

ভূমিকম্পের সময় ঘরে থাকলে করণীয়ঃ

১. ভূমিকম্প শুরু হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে মাটিতে হামাগুড়ি দিয়ে বসে পড়ুন, শক্ত-মজবুত কোনো আসবাবের নিচে ঢুকে যেতে পারেন এবং সেটিকে হাত দিয়ে শক্ত করে রাখুন, যাতে সরে না যায়। মনে রাখবেন, আমাদের দেহের মধ্যে মাথা হলো সবচেয়ে নমনীয় অঙ্গ, আসবাবের আশ্রয় না পেলে হাত দিয়ে মাথা রক্ষা করুন।

২. আসবাবপত্র না পেলে ঘরের ভেতরের দিকের দেয়ালের নিচে বসে আশ্রয় নিতে পারেন। বাইরের দিকের দেয়াল বিপজ্জনক।

৩. জানালার কাচ, আয়না, আলমারি, দেয়ালে ঝুলানো বস্তু থেকে দূরে থাকুন। এগুলো ভেঙে মাথায় পড়তে পারে, তাই সতর্ক থাকুন।

৪. বহুতলে থাকলে ঘরের ভেতরে থাকাই ভালো। কারণ নিরাপদ স্থানে পৌঁছানোর আগেই ভূমিকম্পের মাত্রা বেড়ে যেতে পারে। এছাড়া নামতে নামতেও ক্ষয়ক্ষতি হতে পারে।

৫. ভূকম্পন থেমে গেলে বের হয়ে আসুন।

৬. নিচে নামতে চাইলে কোনোভাবেই লিফট ব্যবহার করবেন না। সিঁড়ি দিয়ে হেঁটে নামুন। নামার সময় মোবাইল ফোন আর ঘরের চাবিটা সম্ভব হলে হাতেই রাখুন।

৭. বিছানায় শুয়ে থাকলে বেশি দূরে না গিয়ে মজবুত বিছানা হলে তার নিচেই আশ্রয় নিন।

ভূমিকম্পের সময় ঘরে থাকলেঃ

১. খোলা জায়গা খুঁজে আশ্রয় নিন। বহুতলের নিচে কোনোভাবেই দাঁড়াবেন না।

২. লাইটপোস্ট, বিল্ডিং, ভারী গাছ অথবা বৈদ্যুতিক তার ও পোলের নিচে কোনো অবস্থাতেই দাঁড়াবেন না।

৩. রাস্তায় ছোটাছুটি করবেন না। মাথার ওপর কাচের টুকরা, ল্যাম্পপোস্ট অথবা বৈদ্যুতিক তার ছিঁড়ে পড়ে দুর্ঘটনা ঘটতে পারে।

চলমান গাড়িতে থাকলে করণীয়ঃ

১. তৎক্ষণাৎ গাড়ি থামিয়ে খোলা জায়গায় পার্ক করে গাড়ির ভেতরেই আশ্রয় নিন।

২. কখনই ব্রিজ, ফ্লাইওভারে থামবেন না।

৩. বহুতল কিংবা বিপজ্জনক জায়গা থেকে দূরে গাড়ি থামান।

৩. ভূমিকম্প না থামা পর্যন্ত গাড়ির ভেতরেই অপেক্ষা করুন।

ভূমিকম্পের পর করণীয়ঃ

১. ভূমিকম্প শেষ হলেও আগামী কম্পনের জন্য প্রস্তুত থাকুন। প্রায়ই পরপর কয়েকবার কম্পন হয়। এ আফটার শকের কোনো নির্দিষ্ট সময় নেই। এবারের আফটার শক এক ঘণ্টার মধ্যেই দুবার হয়ে যায়। কখনো এক মাসের মধ্যেও হতে পারে।

২. যথাসম্ভব শান্ত থাকুন। কম্পন থেমে গেলেও কিছুক্ষণ অপেক্ষা করুন, তারপর বের হন। ওপর থেকে ঝুলন্ত জিনিসপত্র কিছুক্ষণ পরও পড়তে পারে।

৩. নিজে আহত কি না পরীক্ষা করুন, অপরকে সাহায্য করুন। বাড়িঘরের ক্ষতি পর্যবেক্ষণ করুন। নিরাপদ না হলে সবাইকে নিয়ে বের হয়ে যান।

৪. গ্যাসের সামান্যতম গন্ধ পেলে জানালা খুলে বের হয়ে যান এবং দ্রুত মেরামতের ব্যবস্থা করুন।

৫. কোথাও বৈদ্যুতিক স্পার্ক চোখে পড়লে মেইন সুইচ বা ফিউজ বন্ধ করে দিন। ক্ষতিগ্রস্ত বিল্ডিং থেকে সাবধান থাকুন। অগ্নিকাণ্ড হতে পারে।

ধ্বংসস্তূপে আটকে পড়লে করণীয়ঃ

১. আগুন জ্বালাবেন না। বাড়িটিতে গ্যাসের লাইন লিক থাকলে দুর্ঘটনা ঘটে যেতে পারে।

২. ধুলাবালির মধ্যে পড়লে হাত অথবা রুমাল দিয়ে নাক মুখ ঢেকে নিন।

৩. ধীরে নড়াচড়া করুন এবং উদ্ধারের অপেক্ষায় থাকুন।

৪. উদ্ধার কাজের সময় নিজের অস্তিত্ব জানান দিতে পাইপ অথবা দেয়ালে আস্তে আস্তে টোকা দিয়ে শব্দ করুন। চিৎকার না করাটাই ভালো, এতে প্রচুর পরিমাণে ধুলা নিঃশ্বাসের সঙ্গে ঢুকে যেতে পারে।

ভূমিকম্প,করণীয়
apps
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত