Most important heading here

Less important heading here

Some additional information here

Emphasized text
  • বৃহস্পতিবার, ২৪ জানুয়ারি ২০১৯, ১১ মাঘ ১৪২৫
  • ||

মিস ওয়ার্ল্ডের ১৩তম সুন্দরী ঐশীর অজানা কথা

প্রকাশ:  ০৯ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৭:৫২ | আপডেট : ০৯ ডিসেম্বর ২০১৮, ২১:৫৯
হাসনাত কাদীর
প্রিন্ট icon

আপনার কাছে সৌন্দর্যের সংজ্ঞা কী?

খালি চোখে আমরা সুন্দরী নারী বলতে এমন নারীকে বুঝি যিনি দেখতে সুন্দর, নির্মেদ ও আকর্ষনীয় গড়নের অধিকারী। কিন্তু শুধুই সাধারণের দৃষ্টি দিয়ে তো বিশ্ব সুন্দরী নির্বাচন করা হয় না। বিশ্ব সুন্দরী নির্বাচনে শারীরিক সৌন্দর্যের পাশাপাশি গুরুত্বের সাথে বিবেচনা করা হয় তাঁর বুদ্ধিমত্তা, সৃজনশীলতা, কাজ ও তাঁর চিন্তা চেতনাকেও। তাই বিশ্ব সুন্দরী হওয়া যে কোন নারীর জন্যই বিশেষ সম্মান ও অর্থবহ। ফলে একজন জান্নাতুল ফেরদৌস ঐশী যখন মিস ওয়ার্ল্ডের ফাইনালে জায়গা করে নেন তখন বাংলাদেশি হিসেবে আমরা গর্ব বোধ করি।

এবার বিশ্বের ১১৮টি দেশের প্রতিযোগীদের পেছনে ফেলে সেরা ৩০ জনকে নিয়ে শুরু হয় মিস ওয়ার্ল্ডের গ্রান্ড ফিনালে। শনিবার (৮ ডিসেম্বর) চীনের সানায়া শহরে অনুষ্ঠিত ২০১৮ সালের গ্রান্ড ফিনালেতে প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে জায়গা করে নেন অষ্টাদশী সুন্দরী, বুদ্ধিমতি, মেধাবী ঐশী। সেরা ৩০ জন থেকে শেষ পর্যন্ত তিনি ১৩তম স্থান লাভ করে বাংলাদেশের জন্য বিশেষ সম্মান বহন করে আনেন।

ইতোমধ্যে প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে মিস ওয়ার্ল্ডের ফাইনালে জায়গা করে এই বিশেষ অর্জনের জন্য তিনি প্রশংসায় ভাসছেন। গণমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তাঁকে অভিনন্দন জানিয়ে প্রকাশ করা হচ্ছে ভালোবাসা।

এর আগে ৩০ হাজার প্রতিযোগীকে পেছনে ফেলে ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ-২০১৮’তে বিজয়ী হয়ে তিনি মুকুট তুলে নেন মাথায়। এই সাফল্যের সুবাদেই চীনে অনুষ্ঠিত বিশ্ব সুন্দরী প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করার সুযোগ এসে যায়।

অষ্টাদশী সুন্দরী ঐশী জন্মেছিলেন বরিশালের পিরোজপুর জেলার মাটিভাঙা নামের এক সবুজাভ গ্রামে। সেখানেই তিনি প্রকৃতির কোলে বেড়ে ওঠেন প্রকৃতির মতো সহজ, সতেজ সৌন্দর্যে। মধ্যবিত্ত পরিবারের বুদ্ধিমতি মেয়েটি এইচএসসি শেষ করে জুলাই মাসে ঢাকায় এসেছিলেন বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি কোচিং করার জন্য। স্বপ্ন, ভালো কোথাও ভর্তি হয়ে বাবা-মায়ের মুখ উজ্জ্বল করা। শুরু করেছিলেন আইইএলটিএস কোচিংও।

আত্মীয়ের বাসায় থেকে পড়াশোনা করতেন ঐশী। সাদামাটা একটা জীবন। হঠাৎ-ই শুনলেন মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ ২০১৮-এর আবেদন চলছে। ছেলেবেলা থেকেই নিজের সৌন্দর্যের জন্য অনেক প্রশংসা পেয়েছেন তিনি। সেই আত্মবিশ্বাসে বলীয়ান হয়ে কৌতূহল মেটাতেই নাম লিখিয়েছিলেন প্রতিযোগিতায়। কিন্তু সুন্দর মুখের জয় সর্বত্র। সেই সৌন্দর্যের সাথে ঐশীর আছে বুদ্ধি ও বিচক্ষণতা। ফলে তরতর করে তিনি এগিয়ে গেলেন। আর গ্রামের সবুজ-সতেজ মেয়েটি ৩০ হাজার প্রতিযোগীকে পেছনে ফেলে ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ-২০১৮’তে বিজয়ী হয়ে মুকুট তুলে নিলেন মাথায়।

ঐশী বলেন, 'যদি আপনি আপনার লক্ষ্যে ফোকাস থাকেন তাহলে আপনি অবশ্যই বিজয়ী হবেন। আমি আমার লক্ষ্যে ফোকাসড ছিলাম। বিশ্ব দরবারে বাংলাদেশের সৌন্দর্য তুলে ধরার সুযোগ পেয়ে দেশের শিল্প, সংস্কৃতি ও ইতিহাসকে মর্যাদার সঙ্গেই বিশ্ব দরবারে তুলে ধরার সর্বোচ্চ চেষ্টা আমি করেছি। বস্তুত, এই পর্যায়ে যারা পৌছান তাঁদের ভেতর গুনগত পার্থক্য তো তেমন থাকে না। আমি মনে করি শুধু আমি নই, সেরা ৩০এ যারাই স্থান পেয়েছেন সকলেই মাথায় বিশ্ব সুন্দরীর মুকুট বহনের যোগ্য। আমি আন্তরিকভাবে দুঃখিত। তবে হতাশ নই। এবার আমি পারিনি। কিন্তু সামনে নিশ্চয় অন্য কোন বাংলাদেশি বোন দেশের জন্য মুকুট জয় করে সম্মান বয়ে আনবে।'

ঐশীর বাবা মোঃ আব্দুল হাই একজন বিশিষ্ট সমাজসেবী। মা আফরোজা হোসনে আরা স্কুল শিক্ষিকা। ঐশীর বড় বোনের নাম শশী।

চলতি বছর মাটিভাঙা ডিগ্রি কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করা ঐশী বই পড়তে ও গান শুনতে ভালোবাসেন। তাঁর প্রিয় লেখক হুমায়ূন আহমেদ। হিমু ও মিসির আলী সিরিজের বইগুলো তিনি মন্ত্রমুগ্ধ হয়ে পড়েন।

প্রিয় অভিনেতা সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি জানান, নায়ক রাজ রাজ্জাকের অভিনয়ের ভক্ত আমি। তবে শাকিব খান আমাকে আচ্ছন্ন করে। আমি বিশ্বাস করি তাঁকে ঠিক ভাবে ব্যবহার করা গেলে তিনি অভিনয় দিয়েপুরো পৃথিবী জয় করার ক্ষমতা রাখেন। তাঁর প্রিয় অভিনেত্রী শাবানা ও নুসরাত ফারিয়া। প্রিয় শিল্পী মিফতাহ জামান। তিনি ভাত, বাইম মাছ ও আল ভর্তা খুব পছন্দ করে তৃপ্তি নিয়ে খেতে পছন্দ করেন।

বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্রী ঐশী পড়াশোনার পাশাপাশি স্কুল ও কলেজে নিয়মিত বিতর্ক করতেন বলে তাঁর যুক্তিবোধ প্রখর। বিতর্কের পাশাপাশি ছোটবেলা থেকেই তিনি যুক্ত আছেন নাচের সঙ্গে। আঁকাআঁকি, লেখালেখি, গান, উপস্থাপনায়ও তার সমান আগ্রহ।

সাঁতারে পারদর্শী এই সুন্দরীর ইচ্ছে মানবসেবায় নিজেকে নিয়োজিত করা। ভবিষ্যতে বাল্যবিয়ে নিয়ে জনসচেতনতা তৈরির কাজ করতেও আগ্রহী ঐশী।

বাংলাদেশি হিসেবে মিস ওয়ার্ল্ডের প্রথম গ্রান্ড ফিনালিস্ট হয়ে দেশের জন্য সম্মান বয়ে আনা এই সুন্দরী তরুণির জন্য পূর্বপশ্চিমবিডি.নিউজ পরিবারের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন।

পিবিডি/ হাসনাত

ঐশী,মিস ওয়ার্ল্ড
apps
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত