Most important heading here

Less important heading here

Some additional information here

Emphasized text
  • বৃহস্পতিবার, ২৪ জানুয়ারি ২০১৯, ১১ মাঘ ১৪২৫
  • ||

নেট বোলার থেকে প্রথম হ্যাটট্রিকের মালিক

প্রকাশ:  ১১ জানুয়ারি ২০১৯, ২০:২৮
সম্রাট কবীর
প্রিন্ট icon

১৮৪ রানের লক্ষ্য ভালোভাবেই টার্গেটের দিকে যাচ্ছিলো রংপুর রাইডার্স। ম্যাচের শেষদিকে জয়ের জন্য তাদের দরকার ছিল ১৮ বলে ২৬ রান। হাতে ছিল ৬ উইকেট।ঠিক তখনই বল হাতে ঘূর্ণি ঝড় নিয়ে হাজির হন আলিস আল ইসলাম। পরপর তিন বলে ফিরিয়ে দেন মিথুন, মাশরাফি ও ফরহাদ রেজাকে। তার অনবদ্য হ্যাটট্রিকে শ্বাসরূদ্ধকর ম্যাচে ২ রানের দুর্দান্ত জয় পায় বিপিএলের সাবেক চ্যাম্পিয়ন ঢাকা ডায়নামাইটস।

সাভারের তরুণ আলিস আল ইসলাম। বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ ক্রিকেটের ফ্র্যাঞ্চাইজি ঢাকা ডায়নামাইটসের নেট বোলার ছিলেন। সেখান থেকে একাদশে এসে বিপিএলের ষষ্ঠ আসরের প্রথম হ্যাটট্রিকম্যান হয়েছেন তিনি।

ইসলামের হ্যাটট্রিকেই ঢাকা ডায়নামাইটসের কাছে পরাস্ত হয়েছে রংপুর রাইডার্স। শিরোপা প্রত্যাশী দল দু’টির হাই ভোল্টেজ ম্যাচে শেষ পর্যন্ত ফলাফল নির্ধারক হয়ে উঠলেন অচেনা-অজানা একজন তরুন।

ইসলামের প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেট বা লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটও খেলা হয়নি এখনো। মিরপুরে এর আগেও কখনো খেলা হয়নি তাঁর। জীবনে প্রথমবার মিরপুরে খেলতে নেমেই হ্যাটট্রিক করলেন ঢাকা ডায়নামাইটসের হয়ে এই তরুণ অফ স্পিনার।

ঢাকার কোচ খালেদ মাহমুদ সুজনের নজর কেড়ে ছিলেন নেটে বোলিং করার সময়। সেখান থেকেই সোজা দলের একাদশে।রংপুর রাইডার্সের মতো বড় দলের বিপক্ষে করেছেন হ্যাটট্রিক। রংপুরকেতো হারিয়েছেন এই তরুণই। ৪ ওভারে ২৬ রান দিয়ে নিয়েছেন চারটি উইকেট। ইনিংসের ১৮তম ওভারে এসে ইসলাম একে একে ফিরেছেন মাশরাফী, ফরহাদ রেজা ও সোহাগ গাজীদের।

ওভারের চতুর্থ ৪৯ রান করা মোহাম্মদ মিথুনকে দিয়েই শুরু করেন হ্যাটট্রিকের মিশন। পঞ্চম বলে শূন্য রানে মাশরাফী ও ওভারের শেষ বলে শূন্য রান করা সোহাগ গাজীকে সাজঘরে পাঠান তিনি।

/এস কে

apps
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত