Most important heading here

Less important heading here

Some additional information here

Emphasized text
  • বৃহস্পতিবার, ২৪ জানুয়ারি ২০১৯, ১১ মাঘ ১৪২৫
  • ||

চিকিৎসা শেষে মঙ্গলবার দেশে ফিরবেন চামেলী

প্রকাশ:  ০৯ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:৫১ | আপডেট : ০৯ ডিসেম্বর ২০১৮, ০১:০২
রাজশাহী প্রতিনিধি
প্রিন্ট icon
ফাইল ছবি

চিকিৎসা শেষে আগামী মঙ্গলবার দেশে ফিরবেন বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দলের সাবেক খেলোয়াড় চামেলী খাতুন। ভারতের ব্যাঙ্গালুরুর স্পর্শ বেসরকারি অর্থপেডিক হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ চামেলীকে ছাড়পত্র দিয়েছে বলে জানা যায়।

শনিবার (৮ ডিসেম্বর) দুপুরে তাকে এই ছাড়পত্র দেয়া হয়। আগামী ১১ ডিসেম্বর মঙ্গলবার বিকেল নাগাদ তিনি দেশে ফিরবেন। বেসরকারি বিমান জেট এয়ারওয়েজের একটি ফ্লাইটে চামেলী দেশে আসবেন। পরের দিন বুধবার সকালে ফিরবেন নিজ শহর রাজশাহীতে। বিষয়টি শনিবার রাতে নিশ্চিত করেন অলরাউন্ডারের ভাগ্নি মুশফিকা রোজি।

তিনি জানান, ডা. প্রশান্ত তেজওয়ানি আগামী তিন মাসের সকল বিষয়ে পরামর্শ দিয়েছেন।

ডাক্তারের বরাত দিয়ে রোজি জানান, রোগীর পায়ের পরিস্থিতি উন্নতির দিকে রয়েছে। তবে সেলাই কাটতে আরো দুই সপ্তাহ সময় লাগবে। স্থানীয়ভাবে তা করার ব্যাপারে পরামর্শ দিয়েছেন ডা. প্রশান্ত। পুরোপুরি সেরে উঠতে আরও ছয় মাস লাগবে। এক বছরের মধ্যে মাঠে ফিরতে পারবেন চামেলী। এ সময়ের মধ্যে চামেলীকে নিয়মিত ওষুধ সেবন করতে হবে এবং কিছু ফিজিওথেরাপি নিতে হবে।

রোজি জানান, আগামী ১০ ডিসেম্বর রাজশাহী ফেরার কথা থাকলেও প্লেনের টিকেট কনফার্ম না হবার কারণে তা হচ্ছে না। ১১ ডিসেম্বর মঙ্গলবার তারা ব্যাঙ্গালুর ছাড়বেন সকাল ৮ টা ২০মিনিটে। এ দিন বিকেল নাগাদ দেশের ঢাকা হযরত শাহজালাল বিমানবন্দরে পৌঁছাবেন। পরের দিন বুধবার সকাল সাড়ে ১১টার নাগাদ রাজশাহী হযরত শাহমুখদুম বিমান বন্দরে পৌঁছাবেন। এই কয়দিন সোয়েতা গেস্ট হাউজে থাকবেন তারা।

এদিকে চামেলী জানান, আগের তুলনায় অনেকটা সুস্থ্যবোধ করছেন এখন। চিকিৎসকের পরামর্শে তিনি এখন ধীরে ধীরে চলাফেরার চেষ্টাও করছেন এবং পারছেন। তার সঙ্গে ভারতে অবস্থান করছেন তার বড় বোনের মেয়ে মুশফিকা রোজি এবং বোনের ছেলে মোহাম্মদ রায়হান।

ভারতের ব্যাঙ্গালুরুর শীর্ষ পর্যায়ের স্পর্শ বেসরকারি অর্থপেডিক হাসপাতালে রাজশাহীর মেয়ে চামেলীর ডান পায়ের লিগামেন্টের অস্ত্রোপচার হয়েছে সপ্তাহ খানেক আগে। অস্ত্রোপচার শেষে হাসপাতালের ঠিক দক্ষিণে দুই মিনিটের হাঁটা পথে সোয়েতা গেস্ট হাউজে থেকেই প্রতিদিনের ড্রেসিং আর এই কয়দিনের সুষ্ঠু চিকিৎসা নেন।

উল্লেখ্য, চামেলীর পায়ের লিগামেন্ট ছিঁড়ে যাওয়ায় দীর্ঘদিন থেকে অবস্থান করছিলেন রাজশাহী মহানগরীর দরগাপাড়ার জরাজীর্ণ একটি ঘরে।

বিষয়টি বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশ হলে অনেকেই তার পাশে এসে দাঁড়ান। এ সময় তার চিকিৎসার সকল দায়িত্ব নেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

গত ২ নভেম্বর রাজশাহী থেকে ঢাকা নিয়ে ভর্তি করা হয় জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতাল ও পুনর্বাসন প্রতিষ্ঠানের (পঙ্গু হাসপাতালে) ২১৬ নং কেবিনে। সেখানে প্রাথমিক পর্যায়ের পরীক্ষা নিরীক্ষা শেষে হাসপাতালেই চিকিৎসার প্রস্তুতি শরু হয়। কিন্তু চামেলী দাবি করেন ভারতে চিকিৎসার জন্য। তার দাবির প্রতি সম্মান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর থেকে তার চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয় ভারতে।

বাংলাদেশ জাতীয় নারী দলের হয়ে ১৯৯৯ থেকে ২০১১ পর্যন্ত মাঠ মাতিয়ে বেড়িয়েছেন চামেলী খাতুন। ২০১০ সালের এশিয়া কাপের রানার আপ হওয়া দলের হয়ে মাঠ মাতান এই দাপুটে ক্রিকেটার। এর বাইরে ঢাকা বিভাগে খেলেছেন টানা। দুই মৌসুম শেখ জামালের ক্যাপ্টেন হিসেবে সামনে থেকে টেনে নিয়ে গেছেন দলকে। সেই তিনিই পরাস্ত হন ইনজুরিতে। এখন তার চিকিৎসা চলছে।

ওএফ

apps
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত