Most important heading here

Less important heading here

Some additional information here

Emphasized text
  • বৃহস্পতিবার, ২৪ জানুয়ারি ২০১৯, ১১ মাঘ ১৪২৫
  • ||

আড়াইহাজারে শতাধিক ঘরবাড়ি ও দোকানপাট ভাংচুর, আহত ৩০

প্রকাশ:  ১১ জানুয়ারি ২০১৯, ২১:৫৫
নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি
প্রিন্ট icon

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে বিচার-শালিসকে কেন্দ্র করে দুর্বৃত্তরা চম্পক নগর গ্রামে লুটপাট ও ভাংচুর চালিয়েছে। প্রায় দুই ঘন্টাব্যাপী চলা এই লুটপাট ও ভাঙচুরের শিকার হওয়া ঐ গ্রামটি এখন যুদ্ধ বিধ্বস্ত কোন গ্রামে রুপ নিয়েছে। লুটপাটের ঘটনায় রক্ষা পায়নি প্রায় দেড় শতাধিক বাড়িঘরের ফ্রিজ, টেলিভিশন, আসবাবপত্র, এমনকি নারী-পুরুষের মোবাইল ফোন সেটও।

শুক্রবার (১১ জানুয়ারি) উপজেলার খাগকান্দা ইউনিয়নের চম্পক নগর গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। এসময় চম্পক নগরের লোকজন সন্ত্রাসীদের প্রতিহত করার চেষ্টা করলে ৩ গ্রামবাসীর মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের সৃষ্টি হয়। সংঘর্ষে নারীসহ কমপক্ষে ৩০জন আহত হয়েছেন।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ২ দিন আগে স্থানীয় একটি স্কুলের ৯ম শ্রেনীর ছাত্র সিয়ামকে কাকাইল মোড়া গ্রামের লোকজন মারধর করে। এই নিয়ে গতকাল শুক্রবার সকাল ৯টায় চম্পক নগরের মঞ্জুরের বাড়িতে একটি বিচার শালিসী বসে। বিচারে তর্ক বিতর্কের এক পর্যায়ে কাকাইল মোড়া গ্রামের সরকারদলীয় লোকমান মেম্বার ও বাহেরচর গ্রামের হত্যা মামলার আসামী তোফাজ্জলের নেতৃত্বে চম্পক নগরের লোকজনের উপর দা, টেটা. ছুরি, বল্লম নিয়ে ঝাপিয়ে পড়ে। এক পর্যায়ে হামলাকারীরা চম্পক নগর গ্রামে ছড়িয়ে পরে গ্রামবাসীর বাড়িঘরে লুটপাট, ভাংচুর ও মারধর শুরু করে। চম্পক নগরের পক্ষে স্থানীয় মোসলেম মেম্বার তার লোকজন নিয়ে হামলা প্রতিরোধের চেষ্টা করলে শুরু হয় রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ।

চম্পক নগরের মোসলেম মেম্বার জানান, সংঘর্ষ চালাকালিন সময় কাকাইল মোড়া ও বাহের চর গ্রামের পাচ-ছয় শতাধিক লোক লোকমান মেম্বার ও তোফাজ্জলের নেতৃত্বে চম্পক নগর গ্রামে এসে তান্ডব চালায়। এতে দেড় শতাধিক ঘরবাড়ী ভাংচুর করা হয়। চম্পক নগরের বাজার থেকে দোকান-পাটেও লুটপাট করা হয়। চম্পক নগর গ্রামবাসীর অন্তত অর্ধ কোটি টাকার ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে।

গ্রামবাসীর অভিযোগ, অভিযুক্ত লোকমান মেম্বার ও তোফাজ্জল পারিবারিকভাবে বিএনপির রাজনীতির সাথে যুক্ত ছিল। ২০০১ এর পর বিএনপি-জামাত জোট আমলে তাদের অত্যাচারে আওয়ামী লীগের লোকজন এলাকায় থাকতে পারেনি। কিন্তু স্থানীয় আওয়ামী লীগের এমপি নজরুল ইসলাম বাবুর সাথে আওয়ামীলীগে যোগদানের পর তারা ফের অপ্রতিরোধ্য হয়ে উঠেছে। এদিকে লোকমান ওতোফাজ্জলের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তাদের পাওয়া যায়নি।

আড়াইহাজার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আক্তার হোসেন জানান, বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। মুলহোতা লোকমান মেম্বারকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

পিবিডি/ হাসনাত

চম্পক নগর,ভাংচুর,নারায়ণগঞ্জ
apps
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত