Most important heading here

Less important heading here

Some additional information here

Emphasized text
  • বুধবার, ২০ মার্চ ২০১৯, ৬ চৈত্র ১৪২৫
  • ||
শিরোনাম

সংরক্ষিত আসন থেকে এমপি হতে চান দিনাজপুরের পাঁচ নেত্রী

প্রকাশ:  ২৫ জানুয়ারি ২০১৯, ২১:৫৬
দিনাজপুর প্রতিনিধি
প্রিন্ট icon

দিনাজপুর থেকে সংরক্ষিত মহিলা আসনে সংসদ সদস্য হতে অনেকেই মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করলেও এগিয়ে আছেন দিনাজপুর জেলা আওয়ামীলীগের পাঁচজন নেত্রী। তাদের মধ্যে রয়েছেন দিনাজপুর জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও ঢাকা উত্তর মহানগর মহিলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি শিরিন ইসলাম, দিনাজপুর মহিলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা জাতীয় মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান তারিকুন বেগম লাবুন, জেলা যুব মহিলা লীগের সভানেত্রী ছবি সিনহা, সদর উপজেলা মহিলা আওয়ামীলীগের আহবায়ক ও সদর উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জেসমিন আরা জোৎস্না এবং ৯ম জাতীয় সংসদে সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য সুলতানা বুলবুল।

সংরক্ষিত মহিলা আসনে এম.পি হতে এগিয়ে থাকাদের মধ্যে শিরিন ইসলাম একজন। তিনি বর্তমানে দিনাজপুর জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও ঢাকা উত্তর মহানগর মহিলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি পদে দায়িত্ব পালন করছেন। ১৯৯২ সালে আওয়ামীলীগে যোগদানকারী শিরিন ইসলাম ১/১১ এর সময়ে শেখ হাসিনার মুক্তির দাবীতে আন্দোলন করতে গিয়ে হামলার শিকার হন, আটক হয়ে কারাবরণও করেন।

বিএনপি জামায়াত জোট সরকারের আমলে আন্দোলন সংগ্রামে অগ্রনী ভূমিকা পালনকারী শিরিন ইসলাম বলেন, দিনাজপুরে ইয়াসমিন ধর্ষণ ও হত্যা, কৃষক হত্যাসহ সকল আন্দোলন সংগ্রামে রাজপথে সংগ্রাম করেছি। জোট সরকারের আমলে দলীয় ক্যাডারদের হামলার সম্মুখীন হয়েছি, আমার বাড়িতে ককটেল নিক্ষেপ করা হয়েছে। এতকিছু সহ্য করেও জাতির জনকের আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে দলের জন্য নিবেদিত প্রাণ হিসেবে কাজ করেছি। রাজপথে থেকেছি।

তিনি আরও বলেন, দল তাকে মনোনয়ন দিলে নারীর ক্ষমতায়ন, নারীদের অর্থনৈতিক মুক্তিসহ নারী উদ্যোক্তা তৈরীতে কাজ করে যাবেন তিনি।

সংরক্ষিত মহিলা সাংসদ হয়ে এলাকার নারীদের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে নতুন নতুন কর্মসূচি পালনের মাধ্যমে নারীদেরকে স্বাবলম্বি করে তুলতে ভূমিকা রাখতে চান তারিকুন বেগম লাবুন। বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠনে দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি দিনাজপুর মহিলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও ২০০৯ সাল থেকে বর্তমান সময় পর‌্যন্ত জেলা জাতীয় মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান পদে দায়িত্ব পালন করছেন। স্বামী প্রয়াত বীর মুক্তিযোদ্ধা শরিফুল ইসলাম লাল জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতিসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন করেছিলেন। রাজনৈতিক পরিবারের সদস্য লাবুন বলেন ১৯৯০ সালে আওয়ামীলীগের রাজনীতির সাথে যুক্ত হয়েছেন। যে সময় মহিলারা রাজনীতি করতে চাইতো না। প্রায় ৩০ বছর ধরে রাজনীতির মাঠে থাকা সংসদ সদস্য প্রার্থী লাবুন বলেন, রাজনৈতিকভাবে আমার প্রাপ্তীর খাতা বলতে গেলে শূন্য। তিনি আশা প্রকাশ করেন প্রধানমন্ত্রী তাকে যোগ্য মনে করে মনোনয়ন দেবেন এবং মনোনয়ন পেলে তিনি সরকারের ঘোষিত ইশতেহার অনুযায়ী কাজ করবেন।

মহিলা আসনে বসতে চান জেলা যুব মহিলালীগের সভানেত্রী ছবি সিনহা। দূর্ণীতি ও জঙ্গীবাদ মুক্ত সমাজ গঠনের পাশাপাশি মহিলা ও শিশুদের এগিয়ে রাখতে গুরুত্বের সাথে কাজ করবেন বলে জানান তিনি। ২০০০সাল থেকে আওয়ামীলীগের রাজনীতির সাথে জড়িত ছবি সিনহা ২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলা ও বিএনপি জামায়াত সরকারের অপকর্মের বিরুদ্ধে গড়ে তোলা আন্দোলনে অগ্রনী ভুমিকা পালন করেছেন। হামলার শিকারও হয়েছেন। রাজনীতির পাশাপাশি দিনাজপুর উদীচি ও মহিলা পরিষদের সদস্য হয়ে সামাজিক ও সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডে যুক্ত রেখেছেন নিজেকে। তিনি বলেন, দীর্ঘ সময় ধরে রাজনীতির মাঠে আছি। মানুষের অধিকার আদায়ের লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছি। প্রধানমন্ত্রী সংসদ সদস্য হিসেবে মনোনীত করলে দূর্ণীতিমুক্ত ও জঙ্গীবাদমুক্ত দেশ গঠনে প্রধানমন্ত্রীর হাতকে শক্তিশালী করার লক্ষ্যে তার নির্দেশনা মোতাবেক কাজ করে যাবো।

সংসদ সদস্য হতে জোর তৎপরতা চালাচ্ছেন বর্তমান দিনাজপুর সদর উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জেসমিন আরা জোৎস্না। একইসাথে দায়িত্ব পালন করছেন সদর উপজেলা মহিলা আওয়ামীলীগের আহবায়ক হিসেবেও। আওয়ামী পরিবারের সদস্য জেসমিন আরা জোৎস্নার বাবা ছিলেন ইউপি চেয়ারম্যান। ছিলেন বঙ্গবন্ধুর ৬দফা আন্দোলনে অংশগ্রহনকারী রাজনীতিবিদ। বড় ভাই আমজাদ হোসেন ১৯৭৩ ও ১৯৮৬ সালে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন। সক্রিয়ভাবে আওয়ামী রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত হয়েছেন ২০০০সালে। তিনি বলেন, মানুষের কল্যানের জন্য বাবা ও ভাই কাজ করে গেছেন। তাদেরই পথ ধরে রাজনীতির মাঠে আছি। মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বঙ্গবন্ধুর আদর্শের রাজনীতি করি। বিভিন্ন আন্দোলন সংগ্রামে থাকার ফলে একধিকবার হামলার শিকার হয়েছি।

চেয়ারম্যান পদে আছি কেউ কোনদিন কোন অভিযোগ তুলতে পারেনি এমন মন্তব্য করে তিনি বলেন প্রধানমন্ত্রী আমাকে মহিলা সাংসদ হিসেবে দায়িত্ব দিলে মানুষের কল্যানে পূর্বের ন্যায় কাজ করে যাবো। বিশেষ করে নারীদের উন্নয়নে তিনি ভূমিকা রাখবেন বলে জানান।

সংরক্ষিত আসনে মাঠে আছেন সাবেক মহিলা আসনের সাংসদ সুলতানা বুলবুল। বর্তমানে জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সভানেত্রীর পদে দায়িত্ব পালন করছেন। রাজনীতির পাশাপাশি বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক সংঠনের দায়িত্ব পালন করে চলেছেন দীর্ঘদিন ধরে। বিএনপি জামায়াত জোট সরকারের সময়ে হামলার শিকার হয়ে আঘাত প্রাপ্ত হয়ে হাসপাতালে থেকেছেন, দ্রুত বিচার আইনে মামলাও খেয়েছেন।

তিনি বলেন, ৯ম জাতীয় সংসদে মহিলা সংরক্ষিত আসনে সাংসদ থাকাকালে স্কুল কলেজসহ অনেক উন্নয়ন কাজ করেছি। ১৯৭৫ সাল থেকে আওয়ামী রাজনীতির সাথে যুক্ত থাকা সুলতানা বুলবুল বলেন, প্রধানমন্ত্রী আমাকে যোগ্য মনে করে মনোনয়ন দিলে ভবিষৎ প্রজন্মকে এগিয়ে নিতে এবং নারীর কল্যানে কাজ করে যাবো। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নকে বাস্তবায়ন করার লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছি কাজ করে যাবো এবং বর্তমান সরকারের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে সচেষ্ট হবো।

পিবিডি/ ইকা

পাঁচ নেত্রী,দিনাজপুর,এমপি,সংরক্ষিত আসন
apps
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত