Most important heading here

Less important heading here

Some additional information here

Emphasized text
  • সোমবার, ২৫ মার্চ ২০১৯, ১১ চৈত্র ১৪২৫
  • ||

রুপগঞ্জে র‌্যাব পরিচয়ে ডাকাতি, গ্রেফতার ৪

প্রকাশ:  ২৭ জানুয়ারি ২০১৯, ১৫:৫৫ | আপডেট : ২৭ জানুয়ারি ২০১৯, ১৬:০৫
নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি
প্রিন্ট icon

নারায়ণগঞ্জের রুপগঞ্জে র‌্যাব পরিচয়ে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে সংঘবদ্ধ ডাকাতি ও ছিনতাইকারি চক্রের চার সদস্যকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১ ব্যাটালিয়ানের সদস্যরা। রোববার (২৭ জানুয়ারি) ভোরে উপজেলার ভুলতা ইউনিয়নের ইসলামবাগ এলাকার একটি মেহগনি বাগান থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

এসময় তাদের কাছ থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, দুইটি ম্যাগজিন, দুই রাউন্ড গুলি, ৪ টি মোবাইল ফোন, দইুটি মোটরসাইকেল, একটি পাসপোর্ট ও নগদ ১১ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- রুপগঞ্জের মর্তোজাবাদ এলাকার মাসুদ মিয়ার ছেলে মোঃ আতিকুর রহমান, সোহেল (২৫), শিংলাবো এলাকার সাইফুল ইসলামের ছেলে মোঃ সোহান ভূঁইয়া, রাফি (২৩) মুর্তোজাবাদ এলাকার মোঃ আবু মিয়ার ছেলে মোঃ নাজমুল হোসেন (২৪) এবং একই এলাকার মোজ্জাম্মেল হকের ছেলে মোঃ রাব্বি হাসান (২৩)। র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন র‌্যাব-১ এর অধিনায়ক লেফটেনেন্টে কর্নেল মোঃ সারওয়ার-বিন-কাশেম স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে গণমাধ্যমকে এসব তথ্য জানান।

প্রেস বিজ্ঞিপ্তিতে আরো বলা হয়, র‌্যাবের গোয়েন্দা টিম নারায়ণগঞ্জের রুপগঞ্জে সংঘবদ্ধ ডাকাত ও ছিনতাইকারি চক্রের একটি সন্ধান পায়। তারা র‌্যাব পরিচয় দিয়ে মানুষকে গাড়ি থেকে নামিয়ে নিয়ে শারীরিক নির্যাতন করে বিকাশের মাধ্যমে মুক্তিপণ আদায় করে আসছিলো। এই চক্রটি সর্বশেষ চলতি বছরে ১৪ জানুয়ারি মাদারীপুরের জনৈক্য সোহেল রানা দুপুরে দিকে রাজধানীর যাত্রাবাড়ি থেকে সিএনজি যোগে বন্ধুর বাসায় যাওয়ার পথে ৪/৫ জন ব্যাক্তি নিজেদের র‌্যাব পরিচয় দিয়ে সিএনজি গতিরোধ করে। সোহেল রানাকে তারা একটি মোটরসাইকেলে তুলে ভুলতা গাউছিয়া সড়কের একটি নির্জনস্থানে নিয়ে গিয়ে শাররিক নির্যাতন করে তার কাছ থেকে নগদ ১১ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয়। পরে সোহেল রানার পরিবারের কাছ থেকে বিকাশের মাধ্যমে আরো ৭০ হাজার টাকা আদায় করে ছেড়ে দেয়।

এ বিষয়ে সোহেল রানা রাজধানীর যাত্রাবাড়ী থানায় একটি সাধারণ ডায়রী করেন, যার নম্বর-১৪২৪। বিষয়টি ২১ জানুয়ারি সোহেল রানা র‌্যাব-১ বরাবর লিখিতভাবে জানালে র‌্যাব গোয়েন্দা তৎপরতা বৃদ্ধি করে এই চক্রটির সন্ধান পায়। পরে র‌্যাবের গোয়েন্দা টীম এই চক্রটিকে নজরদারিতে রাখে।

র‌্যাব জানায়, এই চক্রের ৮ থেকে ১০ জন সদস্য রয়েছে। তারা র্দীঘদিন ধরে র‌্যাবের পরিচয় ব্যবহার করে অপরাধ কর্মকাণ্ড চালিয়ে আসছে। র‌্যাবের প্রতি মানুষের আস্থা ও বিশ্বাস আছে বলে তারা র‌্যাবের নাম ব্যবহার করে সহজে মানুষকে কব্জায় আনতে পারে। চক্রটি বিভিন্ন দর্শনীয় ও বিনোদন স্পটে গিয়ে মানুষকে অনুসরণ করে। পরে সুযোগ বুঝে ভিকটিমকে নির্জনস্থানে তুলে এনে অস্ত্রশস্ত্র প্রদর্শন করে নগদ টাকা পয়সা লুট করে নিয়ে যেতো। গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে ডাকাতি, ভাঙচুরসহ বিভিন্ন অপরাধে একাধিক মামলা রয়েছে বলেও র‌্যাব প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানায়।

পিবিডি/পি.এস

নারায়ণগঞ্জ,র‌্যাব,ডাকাত,গ্রেফতার
apps
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত