Most important heading here

Less important heading here

Some additional information here

Emphasized text
  • সোমবার, ২৫ মার্চ ২০১৯, ১১ চৈত্র ১৪২৫
  • ||

শিশু সন্তানকে হত্যা

সেই পাষণ্ড বাবা গ্রেফতার

প্রকাশ:  ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৯:৫০
গাজীপুর প্রতিনিধি
প্রিন্ট icon

নিজ শিশু সন্তানকে হত্যার পর ঘরের খাটের নিচে পাতিলে রেখে পালিয়ে যাওয়া সেই পাষণ্ড বাবা রফিকুল ইসলামকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

সোমবার (১১ ফেব্রুয়ারি) ভোররাতে গাজীপুর মহানগরের নীলেরপাড়া এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতার রফিকুল ইসলাম গাজীপুরের কাপাসিয়ার উপজেলার চাপাত গ্রামের মাইন উদ্দিনের ছেলে এবং তার স্ত্রী নাসরিন আক্তার একই উপজেলার হালজোড় গ্রামের গোলাপ হোসেনের মেয়ে। রফিকুল-নাসরিন দম্পতির একমাত্র সন্তান ছিলেন মনিরা খাতুন।

রফিকুল পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে জানায়, নাসরিন দ্বিতীয় স্বামীকে বাদ দিয়ে ২০১২ সালে প্রেমের সম্পর্কের জেরে তৃতীয় স্বামী হিসেবে রফিকুল ইসলামকে বিয়ে করেন। রফিকুলের সঙ্গে বিয়ের আগেও তার দুটি বিয়ে হয়েছিল। রফিকুল ২০১৪ সালে ওমান চলে যায়। সেখানে থাকাবস্থায় এ সংসারে মনিরা খাতুনের জন্ম হয়।

এদিকে নাসরিন অন্য এক যুবকের সঙ্গে পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়ার সংবাদে প্রবাস থেকে দেশে ফিরে আসেন রফিকুল ইসলাম। দেশে ফেরার পর পরকীয়ার সন্দেহে রফিকুল ও নাসরিনের মধ্যে প্রায়ই কলহ লেগে থাকতো। এরপর নাসরিন ২০১৭ সালে গাজীপুর সদর উপজেলার হোতাপাড়া এলাকায় বসবাস শুরু করে সেখানে একটি কারখানায় চাকরিরত অবস্থায় এক গার্মেন্টস কর্মীর সঙ্গে নিরুদ্দেশ হয়ে বিয়ে করে।

এদিকে নাসরিন আর কোনো ছেলের সঙ্গে পরকীয়া প্রেম করবে না বলে স্বীকারোক্তি দিলে প্রায় তিন মাস আগে তারা গাজীপুরের কাপাসিয়া থেকে পার্শ্ববর্তী শ্রীপুর উপজেলার গিলারচালা গ্রামে ভাড়া বাসায় বসবাস শুরু করে। তারা দুজনই স্থানীয় ডেনিম্যাক গার্মেন্টস লিমিটেড কারখানায় চাকরি নেয়। এরপরও কারখানার এক সহকর্মীর সঙ্গে পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়ে নাসরিন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে রফিকুল ৮ ফেব্রুয়ারি স্ত্রীর সঙ্গে ঝগড়া করে কাপাসিয়ার চাপাত গ্রামের নিজ বাড়িতে চলে যায়। ওই রাতে মেয়েকে হত্যা করে নিজে আত্মহত্যা করার পরিকল্পনা নিয়ে গত শনিবার বিকেলে গিলারচালা ভাড়া বাড়িতে আসেন রফিকুল। ওইদিন নিজ সন্তানকে হত্যার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন তিনি। পরদিন রোববার বিকেল সোয়া চারটায় দিকে একমাত্র মেয়ে মনিরাকে শ্বাসরোধে হত্যা করে মরদেহ ঘরের খাটের নিচে পাতিলের ভেতর রেখে পালিয়ে যান তিনি।

শ্রীপুর থানার ওসি জাবেদুল ইসলাম বলেন, এ ঘটনায় নাসরিন আক্তার বাদী হয়ে স্বামী রফিকুল ইসলামের নামে একটি হত্যা মামলা করেছেন। এ হত্যার ঘটনায় বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শামীমা খাতুনের আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন রফিকুল।


পিবিডি/এসএম

গাজীপুর,হত্যা,গ্রেফতার
apps
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত