• মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১০ বৈশাখ ১৪৩১
  • ||

ভুটানে জংখ্যা ভাষায় অনূদিত ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’র প্রকাশনা উৎস

প্রকাশ:  ০২ এপ্রিল ২০২৪, ১৭:১৭
পূর্বপশ্চিম ডেস্ক

হিমালয়ের মানুষের জন্য উন্মুক্ত হলো ইতিহাসের এক অজানা অধ্যায়। থিম্পুতে বাংলাদেশ দূতাবাসের উদ্যোগে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অমূল্য গ্রন্থ ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ ভুটানের জংখ্যা ভাষায় প্রকাশিত হয়েছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার আঞ্চলিক পরিচালক জাতির পিতার দৌহিত্রী সায়মা ওয়াজেদ এবং ভুটানের প্রিন্সেস ডেচেন ইয়াংজোম ওয়াংচুক সোমবার থিম্পুস্থ জিচেনখার মিলনায়তনে জাতির পিতার ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’র ভুটানি অনুবাদের মোড়ক উন্মোচন করেন। বাংলাদেশের তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী মোহাম্মদ আলী আরাফাত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

মঙ্গলবার (২ এপ্রিল) দূতাবাস থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

থিম্পুতে বাংলাদেশ দূতাবাসের উদ্যোগে ভুটানের সর্বোচ্চ গবেষণা প্রতিষ্ঠান সেন্টার ফর ভুটান স্টাডিজের (সিবিএস) কমিশনার ও ভুটানের প্রখ্যাত লেখক দাশো কর্মা উড়ার নেতৃত্বে ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’র জংখ্যা ভাষায় অনুবাদ করা হয়।

প্রকাশনা অনুষ্ঠানে ভুটানের প্রধানমন্ত্রী দাশো শেরিং তোবগে, স্বাস্থ্য মন্ত্রী তান্ডিন ওয়াংচুক, কৃষি ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী ইয়ন্তেন ফুন্টশো, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী লিয়নপো শেরিং, শিল্প, বাণিজ্য ও কর্মসংস্থান মন্ত্রী নামগিয়াল দরজি, ভুটানে নিযুক্ত কুয়েতের রাষ্ট্রদূত, বাংলাদেশে নিযুক্ত ভুটানের রাষ্ট্রদূ্ত, থিম্পু ভিত্তিক কূটনৈতিক মিশনের প্রধান, সচিব, শিক্ষাবিদ, বুদ্ধিজীবী, গবেষক এবং প্রবাসী বাংলাদেশি নাগরিকগণ উপস্থিত ছিলেন।

এসময় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার আঞ্চলিক পরিচালক সায়মা ওয়াজেদ বলেন, জাতির পিতার ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’র জংখ্যা অনুবাদ সাংস্কৃতিক সংযোগের নতুন সুযোগ তৈরি করবে এবং বইটি ভুটান ও বাংলাদেশের গবেষকদের জন্য একটি মাইলফলক হিসেবে কাজ করবে। ইতিহাসে নতুন তথ্য উদঘাটনে বইটির জংখ্যা সংস্করণ উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখবে। এ অমূল্য অনুবাদ সম্পন্ন করার জন্য তিনি ভুটান সরকার এবং সেন্টার ফর ভুটান স্টাডিজকে (সিবিএস) ধন্যবাদ জানান।

‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ প্রকাশনা অনুষ্ঠানের স্বাগত বক্তব্যে ভুটানে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত শিব নাথ রায় জাতির পিতার প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন এবং ওয়াংচুক রাজবংশ ও জাতির পিতার পরিবারের সম্পর্ক বিশদভাবে তুলে ধরেন। তিনি ভুটানের বুদ্ধিজীবীদের ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’র জংখ্যা সংস্করণকে ইতিহাসের অজানা তথ্য উৎঘাটনের জন্য ব্যবহার করার আহ্বান জানান। বাংলাদেশি রাষ্ট্রদূত জংখ্যা সংস্করণ প্রকাশের জন্য সেন্টার ফর ভুটান স্টাডিজ (সিবিএস) থেকে দাশো কর্মা উরা এবং তার দলকে ধন্যবাদ জানান।

এছাড়া কাউন্সেলর সুজন দেবনাথ বাংলাদেশি ও ভুটানি শিক্ষার্থীদের নিয়ে বইটির সারমর্ম উপস্থাপন করেন। শিক্ষার্থীরা বইটির জংখ্যা, ইংরেজি ও বাংলা সংস্করণের কিছু অংশ পড়ে শোনান। বইটি থিম্পুর পিটি প্রিন্টিং থেকে প্রকাশিত হয়েছে। অনুষ্ঠান শেষে উপস্থিত অতিথিদের বইয়ের কপি উপহার দেওয়া হয়।

বইটি ভুটানের লাইব্রেরি, বিশ্ববিদ্যালয়, কলেজ, গবেষণা কেন্দ্রে বিতরণ করা হবে। ভুটানিজ ভাষায় জাতির পিতার ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ বাংলাদেশ ও ভুটানের মধ্যে ঐতিহাসিক সংযোগের একটি নতুন মাধ্যম হিসেবে পরিগণিত হবে। উভয় দেশের মধ্যে সাংস্কৃতিক বন্ধন সুদৃঢ় করার জন্য বইটি ব্যবহৃত হবে।

অসমাপ্ত আত্মজীবনী,ভুটান,প্রধানমন্ত্রী
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close