• মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১০ বৈশাখ ১৪৩১
  • ||

ক্রিকেটারদের মানসিকতা, মনোভাব, শট নির্বাচন জঘন্য-বিশ্রি: নাজমুল

প্রকাশ:  ২৬ মার্চ ২০২৪, ১৮:৩৬
পূর্বপশ্চিম ডেস্ক

অফস্টাম্পের এক হাত বাইরের বল জায়গায় দাঁড়িয়ে খেলতে গিয়ে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দেন নাজমুল হোসেন শান্ত। লিটন কুমার দাস নিজের প্রথম বলে তেড়েফুড়ে খেলতে আসেন ডাউন দ্য উইকেটে। ক্যাচ তুলে দেন আকাশে। সিলেটে শান্ত ও লিটন ব্যাখ্যাতীত শটে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে আউট হলেও বাকিদের আলাদা করা যাবে না একটুও। প্রায় প্রত্যেকেই উইকেট বিলিয়ে এসেছেন।

দ্বিতীয় ইনিংসে মুমিনুল হক বাদে নুন্যতম লড়াই করতে পারেননি কেউ। টেস্ট খেলার যে ধৈর্য্য, লড়াই করার যে মানসিকতা, টিকে থাকার যে মনোভাব তা ধরা পড়েনি একটুও। বরং আসা-যাওয়ার মিছিল দেখে স্পষ্ট বোঝা যাচ্ছিল, খেলাটাকে স্রেফ তামাশা বানিয়ে ফেলেছেন তারা। কেন এমন বিপর্যয়, এমন বিধ্বস্ত হওয়া?

সেই উত্তর খুঁজে পেতে মঙ্গলবার (২৬ মার্চ) মিরপুরে হাজির হয়েছিলেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। পরিচালক, প্রধান নির্বাচকদের সঙ্গে বসেছিলেন। কি করলে উন্নতি হতে পারে সেসব নিয়ে করেছেন আলোচনা। তবে সিলেটে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৩২৮ রানের হার বোর্ড সভাপতি কাছে স্রেফ অসহায় আত্মসমর্পণের সমান।

ক্রিকেটারদের ওপর মহাবিরক্ত তিনি তা কথায় বোঝা গেছে, ‘মিরপুরে গণমাধ্যমে মুখোমুখি হয়ে তিনি বলেছেন, ‘সমস্যা হচ্ছে হারাটা গুরুত্বপূর্ণ না। সমস্যা হচ্ছে যেভাবে তারা হেরেছে। যেভাবে তারা খেলেছে। যে মানসিকতায়, যে মনোভাব, তাদের শট সিলেকশন জঘন্য, বিশ্রি ছিল দেখতে। মনে হয়েছে তারা হয়তো খেলতে চায় না টেস্ট ক্রিকেট অথবা অন্য কোনো সমস্যা। এটা নিয়ে আমরা কষ্ট পেয়েছি। হারা জিতা নিয়ে আমরা একদমই চিন্তিত না। এই ধরনের শট সিলেকশন, এই ধরনের মাইন্ডসেট; এটা টেস্টে যায় না। এরা কেউ বাচ্চা ছেলে না যে হঠাৎ করে ওদের মাঠে নামিয়ে দেওয়া হয়েছে। তারা প্রত্যেকে জানে। ঠিক এই কারণেই আমাদের মনটা খারাপ হয়েছে।’

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ম্যাচ হারলেও কয়েক মাস আগে এই মাঠেই নিউ জিল্যান্ডকে হারিয়েছিল বাংলাদেশ। নাজমুল হাসানের মতে, নতুন অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্তর নেতৃত্বে তরুণ ও উদ্দীপ্ত দল নিয়ে খেলছে বাংলাদেশ। অভিজ্ঞ ক্রিকেটারদের শূন্যস্থান পূরণে লাগবে সময়। এজন্য সময় দেওয়ার আহ্বান তার কণ্ঠে, ‘সবার কাছে যেমন লেগেছে আমার কাছে তেমনই লেগেছে (দলের পরাজয়)। এখানে ভালো লাগার কোনো কারণ নেই নিশ্চিতভাবেই। আমার মতামত বলতে পারি, হারা জিতা নিয়ে অত উদ্বিগ্ন না। দেখবেন, অন্যান্য দেশের অভিজ্ঞ ক্রিকেটাররা যখন চলে যান তখন নতুন একটা দল আসে তারা চার-বছর স্ট্রাগল করেই। সেই দিক থেকে বলবো আমাদের দলে ওইরকম খারাপ অবস্থা হয়নি এখনো। যতটা খারাপ অন্যান্য দেশের হয়েছে। নাম বলছি না। তবে আমাদেরটা এতো খারাপ না।’

আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে এগিয়ে যাওয়ার কথা বললেন তিনি, ‘একটা হচ্ছে, তামিম-সাকিব-মুশফিক-মাহমুদউল্লাহর মতো খেলোয়াড় নেই। ওরা এই প্রথম একটা খেলা খেলতে যাচ্ছে যেখানে কেউ নেই। দ্বিতীয়ত, উইকেট। আমরা সম্পূর্ণ অন্য ধরনের একটা উইকেটে খেলাচ্ছি। এতে করে আমরা যারা খেলছে তাদের জন্য নতুন অভিজ্ঞতা। আমাদের পরবর্তী স্টেজে যাওয়ার জন্য আমরা যেসব স্টেপ নিয়েছি তার মধ্যে এটা একটা। এদিক থেকে বলবো, হারা জিতা গুরুত্বপূর্ণ না। এটা নিয়ে আমি চিন্তিত না। এটা যে একদমই প্রত্যাশিত ছিল না তা না। টি-টোয়েন্টিতে হারলাম কেন? সেটা হারায় মনে দুঃখ আছে। আপনারা যদি বলেন ওয়ানডে সিরিজ ৩-০ ব্যবধানে জিতলাম না কেন তাহলে সেটা নিয়ে আক্ষেপ আছে। সেটা কেন জিতবো না। টেস্টে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে জিতবোই ওই আত্মবিশ্বাস ছিল না।’

নাজমুল,বিসিবি,সভাপতি
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close