Most important heading here

Less important heading here

Some additional information here

Emphasized text
  • বৃহস্পতিবার, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ৯ ফাল্গুন ১৪২৫
  • ||

দিনাজপুরে উদ্ভটাকৃতি তিন মাথা বিশিষ্ট নবজাতকের জম্ম

প্রকাশ:  ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৯:৪০
দিনাজপুর প্রতিনিধি
প্রিন্ট icon

দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে অবিচ্ছিন্ন তিনটি অংশ সম্বলিত মাথা আর চোখ দুটি ভিতর থেকে বাহির হওয়ার মত অস্বাভাবিক অবস্থায় জন্ম নিয়েছে এক নবজাতক মেয়ে শিশু। অস্বাভাবিক শিশুটিকে দেখতে মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভির করছে অনেকেই। শিশুটিকে বর্তমানে অক্সিজেন দিয়ে রাখা হয়েছে ইনকিউবেটরে। তবে বর্তমানে সুস্থ আছেন শিশু ও তার মা।

রোববার (১০ ফেব্রুয়ারি ) দুপুর ১২টার সময় দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে সিজারের মাধ্যমে শিশুটির জন্ম হয়। জন্মকালে শিশুটির ওজন হয়েছে ৩ কেজি। শিশুটির চোখের ভ্রু নেই। বড় বড় দুটি চোখ, যা এখনো ফুটেনি। মাথার দুই পাশের দুটি অংশে যথারীতি কান থাকলেও তা নীচে এবং কিছুটা পেছনের দিকে। দুই চোখের মাঝ বরাবর নাক থাকলেও তা অস্বাভাবিক রকমের ছোট।

নবজাতক মেয়ে শিশুটি দিনাজপুর জেলার পার্বতীপুর উপজেলার গুলপাড়া, নতুন বাজার এলাকার জয়নব বানু ও রিয়াজুল ইসলামের দ্বিতীয় সন্তান। নবজাতকের বাবা রিয়াজুল ইসলাম জানান, ‘এটি তার দ্বিতীয় সন্তান। বড় ছেলের বয়স ৭বছর। ঢাকায় এক গার্মেন্টস এ চাকুরী করে সে। স্ত্রী জয়নবকে নিয়মিত চিকিৎসা করাতো দিনাজপুর মেডিকেলের ডা.শাপরিন আক্তার এর কাছে। ডাক্তার আলট্রাসনোগ্রাম করানোর পরামর্শ দেয়। রিপোর্ট দেখার পরে মাথার মধ্যে সামান্য সমস্যা দেখা যাচ্ছে বলেই ডাক্তার সিজার করার জন্য বলেছে।’

দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের কর্তব্যরত ইন্টার্নি ডাক্তার শারমিন নাহার প্রিয়া বলেন, নবজাতকটিকে অস্বাভাবিক মনে হলেও শরীরের গলা থেকে পা পর্যন্ত স্বাভাবির বাচ্চামতই রয়েছে ।

মেয়ের বাবা রিয়াজুল আরো বলেন, ‘ আমি বেজার হই নাই। আল্লাহ যেভাবে জন্ম দিয়েছে সেটা তার ব্যাপার। সরকারসহ সবার সহযোগিতা কামনা করে মেয়ের চিকিৎসার জন্য সহায়তা কামনা করেন তিনি।

দিনাজপুর মেডিক্যাল সুত্রে জানা গেছে , গাইনী বিভাগের ডাঃ রুমেলা আক্তারের নেতৃত্বে ডাঃ রেশমা , ডাঃ কামরুন নাহার অস্ত্রপাচারের মাধ্যমে নবজাতকের জম্ম হয় ।

দিনাজপুর মেডিক্যাল কলেজের শিশু বিশেষজ্ঞ ডা জোবায়ের রহমান জানান , নবজাতকটি অন্যান্য নবজাতকের মতই কান্নাকাটি করছে । তবে মাথাটি বিচ্ছিন্ন তিন অংশে বিভক্ত এবং চোখের অংশটি অস্বাভাবিক । এর ধরনের নবজাতক এর আগে কখন আমি দেখিনি । এটা মুলত মায়ের অসচেতনার কারনে হতে পারে । ঠিকমত চেকআফ আর নবজাতকটি মায়ের গর্ভে আসার পরই পুষ্টিকর খাবার তেমন খায়নি । তিনি আরোও বলেন এই নবজাতকের চিকিৎসা দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিক্যাল কলেজে নেই । এই নবজাতকটিকে ঢাকায় নিয়ে গেলে এর চিকিৎসা করালে হয়ত ভাল হতে পারে ।

পিবিডি/আর-এইচ

apps
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত