• রবিবার, ২২ জুলাই ২০১৮, ৭ শ্রাবণ ১৪২৫
  • ||

শৈত্যপ্রবাহকে বুড়ো আঙ্গুল দেখিয়ে অনুশীলনে টাইগার বাহিনী

প্রকাশ:  ০৫ জানুয়ারি ২০১৮, ১১:১২ | আপডেট : ০৫ জানুয়ারি ২০১৮, ১১:২৮
সম্রাট কবির
প্রিন্ট

দেশের উত্তরাঞ্চলের উপর দিয়ে গত কয়েকদিন ধরে শৈত্য প্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। বর্তমানে এটি ধেয়ে আসছে দক্ষিণ ও মধ্যাঞ্চলের দিকে। এমনকি রাজধানী ঢাকাতেও শুরু হয়েছে শৈত্যপ্রবাহ। এই শীতে কাঁপছে সারাদেশ। কিন্তু টাইগাররা বসে নেই। এই শৈত্য প্রবাহকে বুড়ো আঙ্গুল দেখিয়ে এই প্রচণ্ড ঠাণ্ডাতেও শুক্রবার টাইগাররা তাদের নিয়মিত অনুশীলনে নেমে পড়েন।

খেলোয়াড়দের মধ্যে এই ঠান্ডার কোনো প্রভাব পড়েনি বরং তাদের চোখে মুখে ছিলো আসন্ন ত্রি-দেশীয় সিরিজের জয়ের নেশা। টাইগাররা শুক্রবার সকাল ৯টায় তারা তাদের স্কিল ট্রেইনিংয়ে অংশ নেন।

দরজায় কড়া নাড়ছে ত্রি-দেশীয় সিরিজ।বাংলাদেশ ছাড়াও এতে অংশ নিচ্ছে শ্রীলংকা ও জিম্বাবুয়ে। দেশের মাটিতে অনুষ্ঠেয় এ টুর্নামেন্টের শিরোপা জিততে চান মাশরাফি। বাংলাদেশের ওয়ানডে দলের অধিনায়ক সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘ আমাদের মূল কাজ হবে ঠিকঠাক কাজগুলো করা। দেশে ও বাইরের সিরিজের মধ্যে আকাশপাতাল ব্যবধান থাকে। ঘরের মাঠের সিরিজ আমরা জিততে চাই।’ মাশরাফি ও সাকিব আসন্ন সিরিজের কোচ। এমনটাই বলেছেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। এ প্রসঙ্গে মাশরাফি বলেন, ‘ উনি (পাপন) যেটা বুঝিয়েছেন, সেটা হলো সিনিয়র খেলোয়াড়দের দায়িত্বের বিষয়টা। যেটা সব সময়ই থাকে।আলাদা কিছু করতে গেলে আরো সমস্যার উদ্ভব হতে পারে। আমার কাছে মনে হয় যেভাবে চলছিল, সেটাই ঠিক আছে।’ জয়ের ব্যাপারে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সহকারী কোচ তিনিও আশাবাদী। আসন্ন সিরিজে বাংলাদেশকেই ফেবারিট বলেছেন হ্যালসল। তিনি বলেন, ‘ দেশের মাটিতে খেলা। তার উপর আবার মিরপুরে। হোম অব ক্রিকেটে বাংলাদেশ ওয়ানডেতে ‘ভয়ংকর’ দল। এই দলে বেশ কিছু ভালো ক্রিকেটার আছে। ইংল্যান্ড ছাড়া গত তিন বছরে এখানে আমাদের অন্য কোনো দল হারাতে পারেনি।’

এছাড়া আসন্ন সিরিজ নিয়ে বাংলাদেশের টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান বলেন, ‘ আমাদের খুব ভালো সম্ভবনাই আছে। কিন্তু দুইটা দলই ভালো। তাছাড়া ওরা আমাদের খেলোয়াড় এবং কন্ডিশন সম্পর্কে ভালো জানে তাই আমার মনে কঠিন প্রতিদ্বন্দ্বীতাই হবে। তবে আমরা যেহেতু অনেক ভালো একটা দলে পরিণত এখন তাই আমাদের ভালো করার সম্ভবনাই অনেক বেশি।’

আগামী ১৫ জানুয়ারি থেকে শেরে বাংলায় ত্রিদেশীয় ক্রিকেট। প্রথম দিনই মাঠে নামবে স্বাগতিক বাংলাদেশ ও জিম্বাবুয়ে।জানা গেছে প্রথম দল হিসেবে ১০ জানুয়ারি বাংলাদেশে এসে পৌঁছাবে জিম্বাবুয়ে। আর প্রথম খেলা ১৭ জানুয়ারি, তাই শ্রীলঙ্কা আসবে ১৩ তারিখ।

এর আগে ২৭ ডিসেম্বর থেকে শুরু হয়েছে প্রস্তুতি। ৩২ জনের প্রাথমিক দল এখনো নিয়মিত অনুশীলন করে যাচ্ছে বিসিবি একাডেমী মাঠে। এই ৩২ জন থেকে পর্যায়ক্রমে তিন জাতি ওয়ানডে স্কোয়াড, শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি দল সাজানো হবে।

ক্যাম্পে পর্যাপ্ত ক্রিকেটার খেলাও হবে দেশের মাটিতে, তাই দল সাজানোর জন্য তাড়া ছিল না নির্বাচকদের। কিন্তু একটি বিশেষ কারণে তিন জাতি ক্রিকেট শুরুর এক সপ্তাহ আগেই ওয়ানডে দল চূড়ান্ত করে ফেলতে হচ্ছে। জানা গেছে আগামী ৭ জানুয়ারি ত্রিদেশীয় সিরিজের জন্য দল ঘোষণা করা হবে।

বুধবার সকালে দল নির্বাচন প্রসঙ্গে প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু বলেন, আশা করি ৭ জানুয়ারি ত্রিদেশীয় ক্রিকেটের দল চূড়ান্ত করে ফেলবো। আসর শুরুর ৮ দিন আগে দল সাজানো কেন? এমন প্রশ্নের জবাবে নান্নু আরও বলেন, আরও কারণ আছে। ৯ জানুয়ারি থেকে বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগ (বিসিএল)।তার আগে ১৪ জন বেছে নিতে পারলে বাকিরা বিসিএল খেলতে পারবে।

/সম্রাট

সাব্বিরের পাশে ধোনি