Most important heading here

Less important heading here

Some additional information here

Emphasized text
  • শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০১৯, ৭ বৈশাখ ১৪২৬
  • ||

জেনেশুনে কিছু করিনি, কঙ্গনার কাছে ক্ষমাপ্রার্থী: আলিয়া

প্রকাশ:  ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১০:১৮
বলিউড ডেস্ক
প্রিন্ট icon

খুব শিগগিরিই বিয়ে করতে চলেছেন বলিউডের স্বনামধন্য অভিনেত রণবীর কাপুর ও আলিয়া ভাট! এমনটাই শোনা যাচ্ছে। যদিও তাদের সম্পর্ক কখন কোথায় কীভাবে বাঁক নিচ্ছে তা বোঝা দায়। যেমন কিছুদিন আগেই শোনা যাচ্ছিল তলানিতে গিয়ে ঠেকেছে তাদের প্রেম। কিন্তু তারপরই কখনও আইসক্রিম খেতে, কখনও আবার সিনেমা দেখতে- সকলকে কাঁচকলা দেখিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছেন তারা।

সম্প্রতি ভারতীয় গণমাধ্যম আনন্দবাজারকে একটি সাক্ষাৎকার দিয়েছেন আলিয়া। সাক্ষাৎকারটি পূর্বপশ্চিমের পাঠকদের জন্য হুবুহু তুলে ধরা হলো-

‘গাল্লি বয়’ ছবিতে আপনাকে আবার ডি-গ্ল্যাম চরিত্রে দেখা যাবে...

জোয়া আখতারের মতো পরিচালক খুব কম আছেন। উনি অভিনেতাদের দিয়ে কাজটা করিয়ে নিতে জানেন। ‘গাল্লি বয়’ একজন আন্ডারডগের গল্প নিয়ে। আর সেই গল্পে আমার একটা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা আছে। এই প্রথম আমি এমন একটা চরিত্রে কাজ করলাম, যার সঙ্গে আমার কোনও মিল নেই। আমি কখনই চাইব না, সাকিনার মতো রাগী মানুষের সঙ্গে কারও পরিচয় ঘটুক! কিছুদিন আগে আমি আর রণবীর (সিংহ) ছবিটা দেখছিলাম। তখন ও আমাকে বলল, ‘বাবা তোর কী রাগ! মনে হচ্ছে, যেকোনও মুহূর্তে বোমা ফাটবে!’ আমি হেসে বললাম, ওটা একটা চরিত্র। নিজের জীবনে আমি এ রকম নই।

আলিয়া তা হলে কখন রেগে যান?

আমি শর্ট টেম্পার্ড। এলোপাথাড়ি বিষয় নিয়ে রেগে যাই। যেমন একটা পানির গ্লাস যদি দিনের পর দিন একই জায়গায় পড়ে থাকে আর সেটাকে জায়গা মতো না রাখা হয়, আমি রেগে যাই! তবে খুব তাড়াতাড়ি শান্তও হয়ে যাই। আর যার উপরে রেগে গিয়েছি, তাকে ‘সরি’ বলে দিই। আই অ্যাম আ ফরগিভিং পার্সন। জিয়ো অউর জিনে দো... এটাই আমার জীবনের ফিলোজফি।

‘গাল্লি বয়’ ভ্যালেন্টাইন্স ডে-তে মুক্তি পাচ্ছে। বিশেষ কোনও পরিকল্পনা আছে ওই দিন?

আমার জীবনে এই মুহূর্তে একজনই আছে, যার সঙ্গে দিনটা সেলিব্রেট করব। সেদিন সম্ভবত আমি আর রণবীর (কাপুর) ‘ব্রহ্মাস্ত্র’র শুটিং করব। তাই সেটেই সময় কাটাব। সঙ্গে অয়ন (মুখোপাধ্যায়) আর অমিতাভ বচ্চনও থাকবেন (হেসে)। স্কুলে পড়ার সময়ে ভ্যালেন্টাইন্স ডে’র গুরুত্ব অনেকটা ছিল। কে কয়টা কার্ড পেল, কী গিফট পেল, কে কাকে গোলাপ দিল এগুলো সব খেয়াল রাখতাম। আমি একবার একটা পারফিউম পেয়েছিলাম আর ১০ দিনের মধ্যে মেখে মেখে সেটা শেষও করে ফেলেছিলাম।

রণবীরের (সিংহ) সঙ্গে কাজের অভিজ্ঞতা কী রকম?

রণবীরকে আমি অনেকদিন ধরেই খুব পছন্দ করি। ও খুব রিয়্যাল। ভীষণ ভালো অভিনেতা! ‘গাল্লি বয়’ করার সময়ে আমি অবশ্য অন্য এক রণবীরকে দেখতে পাই। সংবেদনশীল, ধীর-স্থির। অন্য সময়ে আমরা যে রণবীরকে দেখি, রংচঙে জামা পরে চেয়ারের উপরে দাঁড়িয়ে নাচছে... সেটাও ওর একটা বৈশিষ্ট্য। আসলে সকলকে খুশি রাখতে ও ভালোবাসে। আমরা ঠিক করেছি, আমরা আবার কাজ করব। এপিক রোম্যান্স করার ইচ্ছে আছে। শুধু চিত্রনাট্যের অপেক্ষা।

তার আর দীপিকার রিসেপশনে যেতে পারেননি বলে রণবীর দুঃখ পেয়েছিলেন?

আমারই ভীষণ খারাপ লেগেছিল। আমি সেদিন সকাল সাতটা থেকে ভোর চারটে পর্যন্ত শুটিংয়ে ছিলাম। তারপর কিছু টেকনিক্যাল সমস্যাও হয়েছিল, যার জন্য আমাদের আরও দেরি হয়ে গিয়েছিল। আমার পোশাকও তৈরি ছিল, কিন্তু যেতে পারলাম না! আমি মেসেজ করে দীপিকা আর রণবীরকে ‘সরি’ ও বলেছিলাম। তাদের প্রথম বিবাহবার্ষিকীতে আমি যাবই, ঠিক করে রেখেছি।

‘সঞ্জু’র সময়ে রণবীর (কাপুর) বলেছিলেন, তিনি আপনার কাছ থেকে অনেক কিছু শিখেছেন। আপনি কী শিখেছেন তার কাছ থেকে?

রণবীরের মতো এত ঠাণ্ডা মাথার অভিনেতা আমি খুব কম দেখেছি। ওর চোখ দু’টো খুব সৎ এবং সরল। আর অভিনয়টা ও খুব অনায়াসে করে। আমি সেটে রণবীরকে অবজার্ভ করি। ওর কাজের আমি বিরাট ভক্ত!

নিতু সিংহ এবং ঋষি কাপুরের সঙ্গে আপনার অনেক ছবি দেখতে পাই সোশ্যাল মিডিয়ায়। তাদের সঙ্গে কেমন সম্পর্ক আপনার?

দু’জনেই ভীষণ বড় মাপের শিল্পী। রণবীর ওর চিলড আউট অ্যাটিটিউড ওর মায়ের কাছ থেকেই পেয়েছে। নিতুজি আমার খুব ভালো বন্ধু। আর ঋষি কাপুরের জন্য একটাই কথা বলব, হি ইজ ইউনিক!

কঙ্গনা রানাওয়াত মন্তব্য করেছেন যে, ‘মণিকর্ণিকা’ দেখে আপনি তাকে মেসেজ বা কল করেননি। অথচ ‘রাজি’র ট্রেলার পাঠিয়ে তার ফিডব্যাক চেয়েছিলেন এবং উনি সেটা দিয়েও ছিলেন। কী বলবেন?

আমি আশা করছি, কঙ্গনা আমার উপরে রেগে যায়নি। তার মতো ব্যক্তিত্ব আমি খুব কম দেখেছি। খুব সাহসী। আমি যদি তাকে কোনোভাবে দুঃখ দিয়ে থাকি, তা হলে ব্যক্তিগতভাবে তার কাছে ক্ষমাপ্রার্থী। জেনেশুনে কিছু করিনি। আমি শুটিংয়ে ব্যস্ত ছিলাম, কাউকে আপসেট করতে চাইনি।

/অ-ভি

apps
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত