Most important heading here

Less important heading here

Some additional information here

Emphasized text
  • শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০১৯, ৬ বৈশাখ ১৪২৬
  • ||

চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন কণ্ঠশিল্পী শাহনাজ রহমতুল্লাহ

প্রকাশ:  ২৪ মার্চ ২০১৯, ১৫:১৪
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট icon
ফাইল ছবি

কিংবদন্তি কণ্ঠশিল্পী শাহনাজ রহমতুল্লাহ'র দাফন সম্পন্ন হয়েছে। রোববার (২৪ মার্চ) বাদ জোহর বেলা ২টা ৪০ মিনিটের দিকে রাজধানীর বনানীস্থ সম্মিলিত সামরিক বাহিনীর কবরস্থানে দাফন করা হয় তাকে। এর আগে বাদ জোহর একমাত্র জানাজা হলো বারিধারার ৯ নম্বর রোডের পার্ক মসজিদে।

শাহনাজ রহমতুল্লাহ'র মেয়ে নাহিদ রহমতুল্লাহ লন্ডনে আর ছেলে সায়েফ রহমতুল্লাহ থাকেন কানাডায়। ছেলে-মেয়ের অপেক্ষায় না থেকে দাফনের সিদ্ধান্ত প্রসঙ্গে তার স্বামী মেজর (অব.) আবুল বাশার রহমতুল্লাহ বলেন, যে গেছে তাকে তো আর ফেরানো যাবে না। ছেলে কবে আসতে পারছে তার নিশ্চয়তা সকলের দোয়া চাই এখন।

প্রসঙ্গত, শনিবার দিবাগত রাত আনুমানিক ১ টার দিকে শ্বাসকষ্টজনিত কারণে বারিধারাস্থ নিজ বাসাতেই এই নন্দিত শিল্পী শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। বেশ কয়েকদিন ধরে তিনি শ্বাস কষ্টে ভুগছিলেন।

দীর্ঘ ৫০ বছর গান গেয়েছেন শাহনাজ রহমতুল্লাহ। তবে দেশাত্মবোধক গান গেয়েই সর্বাধিক জনপ্রিয়তা অর্জন করেন তিনি। এ তালিকায় উল্লেখযোগ্য ‘প্রথম বাংলাদেশ আমার শেষ বাংলাদেশ’, ‘আমার দেশের মাটির গন্ধে’, ‘আমায় যদি প্রশ্ন করে’, ‘একবার যেতে দে না আমার ছোট্ট সোনার গাঁয়’, ‘এক নদী রক্ত পেরিয়ে’, ‘একতারা তুই দেশের কথা বল রে আমায় বল’ প্রভৃতি।

দেশীয় চলচ্চিত্রের স্বর্ণযুগে প্লেব্যাকে অপরিহার্য ছিলেন শাহনাজ রহমতুল্লাহ। তিনি দশ বছর বয়স থেকেই গান শুরু করেছিলেন মায়ের অনুপ্রেরণায়। খেলাঘর থেকে শুরু করা এ শিল্পীর কণ্ঠ শুরু থেকেই ছিল বেশ পরিণত। গজল সম্রাট মেহদী হাসানের শিষ্য হয়েছিলেন তিনি।

মুক্তিযুদ্ধে বিজয় লাভের মূহুর্তে শাহ্‌নাজ রহমত উল্লাহর কণ্ঠেই ধ্বনিত হয়েছিলো জয় বাংলা - বাংলার জয় গানটি।

শাহনাজ রহমতুল্লাহ জন্ম ১৯৫২ সালের ২ জানুয়ারি ঢাকায়। শিল্পী পরিচিতি পান ছোটবেলাতেই। মাত্র ১১ বছর বয়সে ১৯৬৩ সালে ‘নতুন সুর’ চলচ্চিত্রে প্লে-ব্যাক করেন। সেই থেকে ১৯৮৫ সাল পর্যন্ত নিয়মিত গান করেছেন। টেলিভিশনে গান গাইতে শুরু করেন ১৯৬৪ সাল থেকে।

১৯৭৩ সালে তিনি আবুল বাশার রহমতুল্লাহ সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন। তাদের এক মেয়ে নাহিদ রাহমত উল্লাহ এবং এক ছেলে একে এম সায়েফ রহমত উল্লাহ। সঙ্গীতে অবদানের জন্য তিনি একুশে পদক, জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার, বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমী পুরস্কার, বাচসাস পুরস্কার’সহ বহু সম্মানায় ভূষিত হয়েছেন।

তার ভাই আনোয়ার পারভেজ ছিলেন এদেশের প্রখ্যাত একজন সুরকার এবং সঙ্গীত পরিচালক। আরেক ভাই জাফর ইকবাল ছিলেন এদেশের চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় নায়ক। বিবিসির জরিপে সর্বকালের সেরা ২০টি বাংলা গানের তালিকায় শাহনাজ রহমতুল্লাহ’র গাওয়া চারটি গান স্থান পায়।


/পিবিডি/একে

শাহনাজ রহমতুল্লাহ
apps
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত